শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯
আক্কেল চাচার চিঠি (আঞ্চলিক ভাষায় লেখা)
৩০ জানুয়ারির মদ্দি এমপি পিরাত্তীগের ভোট খচ্চার হিসেব দিতি হবে
Published : Friday, 25 January, 2019 at 6:29 AM
আসচে ৩০ জানুয়ারির মদ্দি নিজ নিজ জিলার রিটানিং কম্মকত্তার কাচে এবারের জাতীয় সংসদ ভোটের খচ্চা পাতির হিসেব পিরাত্তীগের দাকিল কত্তি হবে। ভুটাররা খাইয়ে দাইয়ে চুয়া কইরে দেচে যে যেম্মি পাইরেচে। একন সেই খচ্চার হিসেব দিয়ার পালা।
গ্যালো ৩০ ডিসেম্বর সংসদ ভোটের জন্যি পিরাত্তীগের ভুটার পোতি গড় ব্যয় ১০ টাকা এবং সব্বোচ্চ ব্যয় ২৫ লক্ক টাকা নিদ্দারন কইরে দিলো নির্বাচন কমিশন। গণপোতিনিধিত্ব আদেশ (আরপিও) অনুযায়ী, ভোটের ফলাফল গেজেট আকারে পোকাশের ৩০ দিনির মদ্দি পিরাত্তীগের খচ্চাপাতির হিসেব জমা দিতি হয়। পয়লা জানুয়ারি ভোটের ফলাফল গেজেট আকারে পোকাশ করিল নির্বাচন কমিশন। এ হিসেব অনুযায়ী আসচে ৩০ জানুয়ারির মদ্দি ব্যয়ের হিসেব জমা দিয়ার শেষ সুমায়। ইসির ভোট সংশ্লিষ্ট শাখার কম্মকত্তারা জানায়েচেন, কোনো পিরাত্তী নিদ্দারিত সুমায়’র মদ্দি নির্বাচন কমিশনে হিসেব জমা না দিলি বা কমিশন নিদ্দারিত টাকার বেশী খচ্চা কল্লি তার বিরুদ্দে জেল, জরিপানার বিধান রইয়েছে। ৩০ ডিসেম্বর হইয়ে যাওয়া এগারো নম্বর জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাচন কমিশনে দলের নাম রেস্টি করা ৩৯ টে দলই ভোটে অংশ নিলো। রাজনিতিক দল ও স্বতন্ত্র মিলে মোট ১ হাজার ৮শ’৬১ জন পিরাত্তী সারাদেশে ভোটে পোতিদ্বন্দ্বিতা করিল। এর মদ্দি দলীয় পিরাত্তী ছিলো ১ হাজার ৭শ’৩৩ জন। আর স্বতন্ত্র পিরাত্তী ছিলো ১শ’২৮ জন। এই সব পিরাত্তীরা ভোটের সুমায় পুস্টার ছাপানো, ভোটের অপিস চালানো, ভোটের দিন কেন্দ্র খরচ সহ নানাখাতে খচ্চা কইরেচেন। কিডা কত টাকা কোন খাতে খচ্চা কইরেচেন তা চুতা কইরে রিটানিং অপিসারের কাচে দাকিল কত্তি হবে।
পেত্তম যকন নির্বাচন কমিশনেত্তে ভুটার পোতি খচ্চা ধরিল ১০ টাকা, তকনি অনেকের মন খারাপ হইলো। কুটুম বাড়ি খাওয়ার দাওয়োত পড়লি যিরাম অনেকে বসান দিয়ার পোস্তুতি নেয়, সিরাম অনেকেই ভোট আসলি উতলে পড়ে ভোটের চা পানি খাওয়ার আশায়। স্যানে যকন চাউর হইলো এবার মাত্তর ১০ টাকা একাকজনের ভাগে তকন অনেকেই ভাইঙ্গে পড়িল। ভাবডা যেন ইরাম গরীবির কপালে সুখ সয় না। কিন্তুক আবার যকন শুনিল, মোট খচ্চা কত্তি পারবে ২৫ লক্ক টাকা, তকন আবার গা ঝাড়া দিয়ে উটিল। কিডা কয় কাপ লাল চা, নুনতা বিস্কুট আর গুল্লা লাড্ডু খাইয়েচে তার হিসেব খাওয়ায়ালার হয়ত মনেই নেই কিন্তুক খাওয়ানোয়ালাগের ঠিকই কড়ায় গুন্ডায় হিসেব দিতি হবে।
যারা জিতেচে তাগের ঝামেলী হলিও মনে এট্টা সুক আচে জিতে গেচে বিলে। কিন্তুক যাগের জামানতই খ্যায় হইয়ে গেচে ভোট কত্তি যাইয়ে, তাগের কাচে ইডা কাটা ঘায় নুনির ছিটের মতো। এ হিসেব যেম্মি সেম্মি দিলিই হবে নানে, হিসেবে গরমিল হলিই ধরা। আলাম কনে, মলাম যে!
শব্দার্থ
মদ্দি = মধ্যে, পিরাত্তী = প্রার্থী, খচ্চা = খরচ, চুতা = তালিকা, বসান = অতিভোজন, স্যানে = সেখানে




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft