সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
আক্কেল চাচার চিঠি (আঞ্চলিক ভাষায় লেখা)
কেন স¹লি মাউন এলিজাবেত হাসপাতালে যায়
Published : Wednesday, 6 March, 2019 at 6:18 AM
পৃতিবীর মদ্দি যত সিরা হাসপাতাল আচে তার মদ্দি অইন্যতম সিরা হাসপাতাল হচ্চে সিঙ্গাপুরির মাউন এলিজাবেত। বেশিরভাগ সুমায় পৃতিবীর বড় বড় কোন মানসির অসুক বিসুক হলি তারা চিকিসসে নিতি এই হাসপাতালে আসেন। এই হাসপাতালে যে সব রুগী ভত্তি হয় তারা বেশিরভাগই অইন্য দেশের, আর তারা স¹লি বড় বড় মাপের মানুস। এর কারন এই হাসপাতালে শুদু ভালো ডাক্তার আচে বিলে ভালো চিকিসসে হয় তাই না, এই হাসপাতালে আচে সিরা চিকিসসে পোযুক্তি। আর এই পোযুক্তি কাজে লাগানোর মতো দক্ক জনবল।
চিকিসসে সিবায় নিত্য নতুন যত পোযুক্তি বারোয় তার সব হ্যানে আচে। কয়দিন আগে আমাগের দেশের সড়ক ও সেতুমুন্ত্রী ওবায়দুল কাদের চাচা হটাস অসুস্ত হইয়ে পড়লি তারেও এই হাসপাতালে ভত্তি করা হয়েচে। শুনা যাচ্চে, আল্লার দয়ায় আর ভালো চিকিসসে পাইয়ে চাচা কেরমে কেরমে এট্টু ভালোর দিকি যাচ্চেন। তিনি সুস্ত্য হইয়ে আমাগের মদ্দি ফেরট আসুক সিডাই আমরা চাই। মাউন এলিজাবেত এট্টা বেসরকারি হাসপাতাল। ১৯৭৬ সালে হাসপাতালডা বানানো শুরু হয়। ১৯৭৯ সালের ৮ ডিসেম্বর হাসপাতালডা চালু হয়। ৩৪৫ বেডের এই হাসপাতালডার বত্তমান মালিক পার্কওয়ে হোল্ডিং লিমিটেড। এই হাসপাতালে হাট, কিটনী, শিরা, দাত, পিলে, লিবারসহ ৩১ টে রোগের বিশেষজ্ঞ ডাক্তার চিকিসসে দিয়ে থাকে। এ ছাড়া এই হাসপাতালের শরীলির নানা অঙ্গ জুড়া লাগানোর অপারেশনের জন্যি খুব সুনাম আচে। সিঙ্গাপুরই পৃতিবীর পেত্তম বেসরকারি হাসপাতাল, য্যানে সব্বপেত্তম ওপেট হাট সার্জারি অপারেশন করা হইলো। ২০১৬ সালের হিসেব মতে এই হাসপাতালে ভত্তি হতি গেলি চার বেডের ওয়াডের এট্টা বেডের জন্যি পেত্তেক রাত্তিরির জন্যি খচ্চা হয় বাইশ হাজার টাকার মতো। আর এট্টা বেডের কেবিন ভাড়া নিলি খচ্চা হয় বায়ান্ন হাজার টাকার মতো। তেবে লোক আর জাগা বুইজে এই খরচ আরো বেশী হতি পারে। এর সাতে রুগীর অবস্তা, ক্লিনিক আর বিশেষজ্ঞ ডাক্তার ভেদে খচ্চা আলাদা আলাদা হিসেবে বেশী হয়। আমাগের দেশের সাবেক রাস্টপতি ইয়াজউদ্দিন আহমেদ, সাবেক রাস্টপতি জিল্লুর রহমান এই হাসাপাতালে চিকিসসে নেচেন। বত্তমান রাস্টপতি আব্দুল হামিদ নিয়মিত স্বাস্ত্য পরীক্কে করেন এই হাসপাতালে। এই হাসপাতালে চিকিসসে নিতি নিতি মইরে গেচেন ইরাম দুইজন ভিআইপি হচ্চেন আমলীগির সাবেক সাধারণ সুম্পাদক আব্দুল জলিল আর বরিশাল সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও সংসদ সদস্য শওকত হোসেন হিরণ। এর বাইরি আরো অনেক ভিআইপি এই হাসাপাতালে চিকিসসে নেচেন। আমলীগির বত্তমান সাধারন সুম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের চাচাও এই হাসপাতালে চিকিসসে নেচ্চেন।
মোট কতা হচ্চে যাগের এট্টু টাকা কড়ি আচে  তাগের এট্টু কিচু হলিই চইলে যায় এই হাসপাতালে। কারন এই হাসপাতালে ভত্তি হওয়াও যিরাম মযযদার সিরাম রুগী দিকতি যাওয়ার নাম কইরে হাসপাতালের সুমকি দাড়ায়ে সেলপী তুইলে ইস্টাটাস দিয়াও কারো কারো কাচে মযযদার বিষয়। আল্লায় জানে কবে আমাগের দেশেও ইরাম এট্টা হাসপাতাল হবে, যেদিন দেশের লোকের চিকিসসে দেশেই হবে।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft