শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯
আন্তর্জাতিক সংবাদ
এবার এলে কাজ দেখাব: নরেন্দ্র মোদি
আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
Published : Monday, 1 April, 2019 at 7:41 PM
এবার এলে কাজ দেখাব: নরেন্দ্র মোদিভারতরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, যদি ফের ক্ষমতায় আসি, তাহলে স্বপ্নপূরণের কাজে হাত দেব।
স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন ওঠে, তা হলে গত পাঁচ বছরে তিনি করলেন কী? তার একটি জবাব অবশ্য মোদি দিয়েছেন। বলেছেন, গর্ত ভর্তেই অনেকটা সময় চলে গিয়েছে। যেখানে যার যা প্রয়োজন ছিল, সেগুলিই পূর্ণ করার চেষ্টা করেছেন। কোথাও শৌচালয় নেই, করেছেন। রাস্তা নেই, রেল লাইন নেই, পানি নেই, বিদ্যুৎ নেই, বাস নেই, বিমানবন্দর নেই— সেগুলি পূরণের চেষ্টা করেছেন। কিন্তু সে কাজেও যে ‘খামতি’ থেকে গিয়েছে, সেটিও কবুল করলেন।
উপলক্ষ ছিল ‘আমিও চৌকিদার’ অনুষ্ঠান। রাফালে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে ‘চৌকিদার চোর হ্যায়’ স্লোগানটি জনপ্রিয় করে তুলেছেন রাহুল গান্ধী। ভোটের মুখে সেই স্লোগানের অভিমুখ ঘোরাতেই ব্যস্ত প্রধানমন্ত্রী। নিজের ঘাড় থেকে দায় ঝেড়ে গোটাটাই ভাগ করে দিতে চেয়ে সকলকেই ‘চৌকিদার’ হতে বলছেন।
রাহুলের গুঁতোতেই আজ অমিত শাহ, রাজনাথ সিংহ, সুষমা স্বরাজ, যোগী আদিত্যনাথদের দেশের নানা প্রান্তে বসিয়ে ভিডিওর মাধ্যমে নব্য ‘চৌকিদার’দের সঙ্গে আলাপচারিতা করলেন। আর নিজে থাকলেন দিল্লিতে, তালকাটোরা স্টেডিয়ামে। সেখানে পরতে পরতে নাম না করে বিঁধলেন রাহুল গান্ধীকেই। কংগ্রেসের সভাপতি যে বিস্তর চাপে রেখেছেন, মোদীর সব কথাতেই ফুটে উঠল সেটি।
নাম না করে রাহুলকে মোদি বলেন, কিছু লোকের বুদ্ধি বাড়ে না। জনতা বলে উঠল, ‘পাপ্পু’। মোদী বললেন, চৌকিদার বলতে কিছু লোক ভাবেন, হাতে লাঠি, মুখে হুইসেল, পরনে ইউনিফর্ম। কিন্তু চৌকিদার সকলে। গ্রাম, শহর, স্ত্রী, পুরুষ, শ্রমিক, চিকিৎসক- সকলে।
সংসদে রাহুলের আলিঙ্গন নিয়েও কটাক্ষ করলেন মোদি। বলেন, কিছু লোক গলায় পড়ে যান।
পাকিস্তান নিয়ে বলতে গিয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী বলেন, বুদ্ধিমান লোকেরা মোদিকে গালি দিতে দিয়ে পাকিস্তানকে সাহায্য করছেন। মহাকাশে ক্ষেপণাস্ত্র বিষয়টি কী, সেই সামান্য বুদ্ধিও নেই।
রাফাল কেনার অঙ্ক নিয়ে রাহুলের আক্রমণের প্রসঙ্গ ঘুরপথে তুলে তিনি বলেন, মিথ্যে বলতে হয় বলেই সঠিক অঙ্ক মনে থাকে না।
ন্যাশনাল হেরাল্ড মামলার ইঙ্গিত দিয়ে রাহুলের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগও তুললেন মোদি। বিরোধীদের কটাক্ষ করে বললেন, ২০১৪ সালেও অনেকে প্রধানমন্ত্রী হতে চেয়েছিল। এবারে লাইনটা বড় হয়েছে।
আসলে রাহুলের একের পর এক অভিযোগের ধাক্কায় এমনিতেই বেকায়দায় থাকা মোদির সমস্যা বাড়িয়েছে রাহুলের ‘ন্যায়’ প্রকল্প। সে কারণে আজ এ নিয়ে অনেক কথা বলতে হল তাকে। ক্ষমতায় এলে প্রতি গরিব পরিবারকে মাসে ৬ হাজার টাকা করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন রাহুল।
মোদি বলেন, চার প্রজন্ম ধরে গরিবি-হঠাও স্লোগান দেওয়া হচ্ছে। স্লোগান যত বেড়েছে, দারিদ্রও। ক্ষমতায় আসবে না জেনে ফের মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন।
রাহুল রোজ তাঁর জনসভায় বলছেন, মোদি বছরে ২ কোটি রোজগার দেওয়ার কথা বলেছিলেন। কালো টাকা ফেরত এনে প্রত্যেকের ব্যাংক খাতে ১৫ লক্ষ টাকা করে দেওয়ার কথা বলেছিলেন। আমার সেই আইডিয়া ভাল লেগেছে। সে কারণে দলকে বলি, গরিবের ব্যাঙ্ক খাতে কত দেওয়া যায়? হিসেব কষে দেখা গিয়েছে, প্রতি মাসে ৬ হাজার টাকা দেওয়া যাবে। ফলে মোদীর মতো মিথ্যা প্রতিশ্রুতি নয়। যেটি দেওয়া সম্ভব, সেটিই বলছি। আর আমি যা বলি, সেটিই করি।
সেই সঙ্গেই খেললেন সহানুভূতি-তাস। বললেন, আমার আগেপিছে কেউ নেই, কোনও চিন্তা রাখিনি।
এক কংগ্রেসের নেতা বলেন, ভোটের মুখে নিজের ব্যর্থতা কবুল করলেন প্রধানমন্ত্রী। ন্যায় প্রকল্পের হিসেব আমাদের কষা আছে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী একটিও প্রতিশ্রুতি পালন করেননি। ২০২২-এ কৃষকদের আয় কী করে দ্বিগুণ করবেন, সে হিসেব দেননি। তার বিদায় এবার নিশ্চিত।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft