সোমবার, ১৪ অক্টোবর, ২০১৯
আন্তর্জাতিক সংবাদ
লোকসভা নির্বাচনের পঞ্চম দফার ভোট সোমবার
আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
Published : Thursday, 2 May, 2019 at 8:50 PM
লোকসভা নির্বাচনের পঞ্চম দফার ভোট সোমবারভারতে লোকসভা নির্বাচনের পঞ্চম দফার ভোট আগামী সোমবার (৬ মে)। ভোট নেওয়া হবে বনগাঁ, ব্যরাকপুর, হাওড়া, উলুবেড়িয়া, আরামবাগ, শ্রীরামপুর ও হুগলিতে। এ দফাতেও সব বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনীর নিরাপত্তা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন।
নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এরই মধ্যে পশ্চিমবঙ্গে প্রধান রাজনৈতিক দুই প্রতিপক্ষের আক্রমণ পাল্টা আক্রমণে জমে উঠেছে প্রচারণা। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দাবি, তৃণমূলের জেলা স্তরের সভাপতি হওয়ারও যোগ্যতা রাখেন না নরেন্দ্র মোদি। অন্যদিকে মমতাকে লোকসভার ফল প্রকাশের পর পালানোর পথ ঠিক কোরে রাখতে বলেছেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ।
বুধবার (১ মে) উত্তর চব্বিশ পরগনা এবং হাওড়ায় দুটি আলাদা নির্বাচনী সভা করেন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দুটি সভাতেই ছিলো তৃণমূল সমর্থকদের উপচে পড়া ভিড়।
সভায় বিজেপির তীব্র সমালোচনার পাশাপাশি, দাঙ্গা বাধানো থেকে নাগরিকত্ব বিল, কোনো ইস্যুতেই ছাড় দেননি মোদিকে। তার প্রধানমন্ত্রীত্বের যোগ্যতা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন মমতা।
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, একটা রাজনৈতিক দল, তাদের কালচার সম্পর্কে জানা উচিত। যারা কালচার জানে না, শুধু চিন্তা করে নির্বাচন আসলেই হিন্দু-মুসলিমে লাগিয়ে দেবে, তাদের বর্জন করা উচিত।
এদিকে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহও বুধবার পশ্চিমবঙ্গে দুটি সভা করেন। বরাবরের মতোই হাসি মুখেই মমতাকে এক হাত নেন তিনি।
অমিত শাহ বলেন, মমতা দিদি, যিনি দুর্নীতি দূর করার কথা বলেন, তিনিই আজ দুর্নীতিতে যুক্ত হয়েছেন। ৪২ আসনের পশ্চিমবঙ্গ। রাজ্যটির শাসক তৃণমূল কংগ্রেসের দাবি তারা ৪২ আসনই পাবে।
অন্যদিকে বিজেপির দাবি, রাজ্যটিতে তৃণমূল সরকারের পতন ঘটবে। তবে সত্যিই কী হয় তার উত্তর মিলবে ২৩ মে ফল প্রকাশের পর।
প্রসঙ্গত, এপ্রিল ও মে মাসের সাতটি দিনে সাত দফায় লোকসভার মোট ৫৪৩টি আসনের ভোটগ্রহণ হবে। এই তারিখগুলো হলো-১১ এপ্রিল, ১৮ এপ্রিল, ২৩ এপ্রিল, ২৯ এপ্রিল, ৬ মে, ১২ মে ও ১৯ মে। আর ২৩ মে ফল ঘোষণা করা হবে।
বর্তমান লোকসভার মেয়াদ পূর্ণ হবে আগামী ৩ জুন। লোকসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে হলে জয়ী হতে হবে ২৭২টি আসনে। ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিজেপি ২৮২টি আসনে জয় পেয়েছিল। সব মিলিয়ে বিজেপির নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট পেয়েছিল ৩৩৬টি আসন। আর দুই দফা সরকার গঠনের পর মাত্র ৪৪টি আসনে জয়ী হতে পেরেছিল কংগ্রেস।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft