মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর, ২০১৯
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
মোরেলগঞ্জে দুটি পুলের ভগ্নদশা ভোগান্তি চরমে
মোরেলগঞ্জ (বাগেরহাট) প্রতিনিধি :
Published : Friday, 3 May, 2019 at 6:46 AM
মোরেলগঞ্জে দুটি পুলের ভগ্নদশা ভোগান্তি চরমে বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জের জিউধরা ইউনিয়নের মঠবাড়ি ও পাথুরিয়া কালিবাড়ি গ্রামের দুটি পুলের ভগ্নদশা জনসাধারনের চলাচলের জনভোগান্তি চরমে।
সরেজমিনে জানাগেছে, ইউনিয়নের নলবুনিয়া খালের সংযোগ দু’পাড়ের এক প্রান্তে রয়েছে পাথুরিয়া কালিবাড়ি অপরপ্রান্তে মঠবাড়িয়া গ্রাম। দু’ গ্রামের জনসংখ্যা প্রায় ৫ হাজার। প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে দুটি, একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজ রয়েছে ১টি। ধর্মীয় আশ্রম ৩টি। মসজিদ ২টি। এছাড়াও দক্ষিণ পাড়ে মঠবাড়ি গ্রামে প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে ১টি। আলীম মাদ্রসা রয়েছে ১টি, মসজিদ ৩টি, এতিমখানা ১টি হাফেজি মাদ্রসা ১টি ও জেলা পরিষদের সরকারি পুকুর রয়েছে ১টি স্থানীয়দের সাপ্তাহিক বাজার ঘরামি বাজার রয়েছে ওই গ্রামে। দীর্ঘ ১০ থেকে ১৫ বছর ধরে এ দুটি গ্রামের চলাচলের মাধ্যম একমাত্র যোগাযোগ কাঠের পুল দুটি জরাজীর্ণ অবস্থায় পড়ে রয়েছে। শিক্ষার্থীসহ পথচারিদের প্রতিনিয়ত চলাচলের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। প্রতিনিয়ত ঘটছে ছোট বড় দুর্ঘটনা। ইতোপূর্বে স্থানীয়দের উদ্যোগে দুই বারে কোনোমতে মেরামত করা হয়েছিলো নলবুনিয়া খালের ওপর পুলটি। দু’ এক বছর যেতে না যেতেই একই অবস্থা ভেঙ্গে পড়ে পুল দুটি।   মোরেলগঞ্জে দুটি পুলের ভগ্নদশা ভোগান্তি চরমে
এ সর্ম্পকে কথা হয় স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. হারুন অর রশীদ হাওলাদার, ২৯১নং মঠবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সভাপতি মো. আলাউদ্দিন মুন্সী সহ একাধিক স্থানীয়রা গনমাধ্যম কর্মীদের কাছে ক্ষোভের সাথে বলেন, এ দুটি গ্রামে উন্নয়নের ছোয়া লাগেনী। দীর্ঘ বছর ধরে এ ঝুঁকিপূন পুল দুটি থেকে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে আমাদের পারাপার করতে হয়। ছেলে মেয়েদের স্কুলে পাঠিয়ে থাকতে হচ্ছে দুঃচিন্তায় সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নিকট তাদের দাবী অনতি বিলম্বে জনগুরুত্বপূর্ন  এ দুটি স্থানে দুটি কালর্ভাল নির্মানের জোর দাবী জানান।
এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান মো. জাহাঙ্গীর আলম বাদশা বলেন, জিউধরা ইউনিয়নে শুধুমাত্র ওই গ্রাম দুটি’র পুল নয় এ রকম ৭-৮টি পুল রয়েছে জেলা পরিষদের বরাদ্ধকৃত। ব্যায়বহুল বরাদ্ধের কারনে ইউনিয়ন পরিষদের বাজেট থেকে এ পুল নির্মাণ করা সম্ভব নয়। সেক্ষত্রে ইতোমধ্যে জেলা পরিষদে লিখিত আবেদনে জরাজীর্ণ পুলগুলোর বিষয়ে একাধিকবার অবহিত করা হয়েছে। অদ্যাবধি কোন ব্যবস্থা গ্রহন হয়নী।
এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য মো. সোহাগ তালুকদার বলেন, এ পুল দু’টি সর্ম্পকে ইতোপূর্বে একাধিকবার ইউনিয়ন পরিষদে মিটিংএ উত্থাপন করা হয়েছে। পুল দু’টি নির্মাণ করা হয়েছিলো জেলা পরিষদের বরাদ্ধে। এ সর্ম্পকে জেলা পরিষদকেও অবহিত করেছেন চেয়ারম্যান। 



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft