সোমবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৯
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
কেশবপুরে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে ঘেরের বেড়ি বাঁধ নির্মাণের অভিযোগ
এলাকায় টানটান উত্তেজনা, রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা
কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি :
Published : Friday, 3 May, 2019 at 6:46 AM
কেশবপুরে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে ঘেরের বেড়ি বাঁধ নির্মাণের অভিযোগকেশবপুর উপজেলার মুলগ্রাম ও হাবাসপোল গ্রামের পশ্চিম বিলে প্রায় ৫৫ জন কৃষকের ৫০ বিঘা জমিতে ফৌজদারী কার্যবিধি আইনের ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে ঘেরের বেড়ি বাঁধ নির্মাণ শুরু করায় এলাকায় টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা করছেন এলাকাবাসি।
মামলার বিবরণে জানাগেছে, হাবাসপোল গ্রামের মৃত আব্দুল হামিদ সরদারের ছেলে আবু হাসান রনি উক্ত বিলের জমির মালিকদের কাছ থেকে হারির বিনিময়ে লীজ চুক্তির মাধ্যমে ৫০ বিঘা জমিতে শান্তিপুর্ণ ভাবে মাছ চাষের জন্য ১৬ মে ২০১৯ হতে ১৫ মে ২০২৪ সাল পর্যন্ত ৫ বছর মেয়াদে ডিড করে বেড়ি বাঁধ নির্মাণ শুরু করেন। ভুয়া ডিডের মাধ্যমে ঐ ঘেরটি জবর দখল নেওয়ার জন্য একই গ্রামের মানিক সরদারের ছেলে রফিকুল ইসলাম ও তরিকুল ইসলাম দীর্ঘ দিন ধরে বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি ও খুন জখমের হুমকি দিয়ে আসছিল। যার ফলে আবু হাসান রনি সম্প্রতি ঐ জমিতে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালত যশোরের মাধ্যমে ফৌজদারী কার্যবিধি আইনে ১৪৪ ধারা জারি করেন। বুধবার  রফিকুল ইসলাম ও তরিকুল ইসলাম ঔ আইনের তোয়াক্কা না করে স্কেভেটর মেশিন নামিয়ে জোর পূর্বক বেড়ি বাঁধ নির্মাণ শুরু করেছে। যার ফলে এলাকাবাসী ও বিবাদমান উভয় পক্ষের মধ্যে টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন সময় বড় ধরনের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশাঙ্কা করছেন এলাকাবাসী। এবিষয়ে এলাকাবাসী প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
এবিষয়ে তরিকুল ইসলাম ও রফিকুল ইসলাম বলেন, আবু হাসান রনির কোন কাগজ পত্র নেই। জমির প্রায় ৫৫ জন মালিকদের মধ্যে ৪৭ জন আমাদেরকে ডিড করে দিয়েছে। সে মোতাবেক আমরা ঘেরের বাঁধ নির্মাণ কাজ শুরু করেছি। কিন্তু সে আমাদের কাজে বাধা প্রদান করে হয়রানি করছে।
এবিষয়ে আবু হাসান রনি বলেন, জমির প্রকৃত মালিকদের কাছ থেকে আমি প্রায় একবছর আগে ঘের করার জন্য ডিড করে নিয়েছি। সম্প্রতি রফিকুল ইসলাম ও তরিকুল ইসলাম ভুয়া ডিড ও জাল সই করে ওই ঘের দখল করতে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে। আমি শান্তিপূর্ণভাবে ঘের করার লক্ষে আদালতে মামলা করেছি।
এ বিষয়ে কেশবপুর থানার উপপরিদর্শক ফজলে রাব্বি গ্রামের কাগজকে জানান, আদালতের নির্দেশনা মোতাবেক ওই জমিতে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। ওই জমিতে শান্তি শৃংখলা বজায় রাখতে উভয় পক্ষকে আদালতের নিদের্শনা মেনে চলতে নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে। আদালতের নির্দেশ অমান্য করলে তদন্ত করে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।  



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft