বুধবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯
সারাদেশ
আদমদীঘিতে ফণীর প্রভাবে ফসলের ক্ষতি
আদমদীঘি (বগুড়া) প্রতিনিধি :
Published : Saturday, 4 May, 2019 at 7:50 PM
আদমদীঘিতে ফণীর প্রভাবে ফসলের ক্ষতিবগুড়ার আদমদীঘিতে ঘূর্ণিঝড় ফণীর প্রভাবে দমকা ঝড়ো বাতাস ও বৃষ্টিপাত হয়েছে। এতে উপজেলায় ঝড়ো হাওয়ায় মাঠের আধা পাকা ধানগুলো শুয়ে পরেছে। ফলে ইরি-বোরো ফসলের ব্যাপক ক্ষতি সাধন হয়েছে। এছাড়া গতকাল শনিবার সকাল থেকে বৃষ্টি ও দমকা হাওয়ার কারনে অধিকাংশ দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিলো। যানবাহনেরও তেমন চলাচল ছিলো না।
সরেজমিনে আদমদীঘির দমদমা, সান্দিড়া, খলকুড়া, বাঘার পাতার ঘুরে দেখা গেছে অধিকাংশ আধা পাকা ধানগুলো জমির উপর শুয়ে পড়েছে। এব্যাপারে কৃষক আকরাম হোসেন জানান, ঝড়ো বাতাসে শুয়ে পড়া ধানগুলো ২/১ দিনের মধ্যে ঘরে তুলতে না পারলে মাটিতে লেগে থাকা অংশ টেকে গাছ বের হয়ে যাবে। ফলে প্রতি বিঘায় আমাদের লোকসান গুনতে হবে। কায়েতপাড়ার কৃষক ছায়ের আলী বলেন, তরিঘরি করে কিছু ধান কেটে ঘরে তুললেও অধিকাংশ জমির ধান মাঠেই রয়েছে। এমন ঝড়ো বৃষ্টির কারনে ৮বিঘা জমির পাকা ধান শুয়ে পরেছে। ফলে এসব জমির অর্ধেক ধান পাবো কি না এ নিয়ে শঙ্কায় রয়েছি। অটোচার্জার চালক সাইফুল ইসলাম জানায়, শুক্রবার বিকেল থেকে শুরু হয়ে শনিবার দুপুর পর্যন্ত একটানা বৃষ্টির সঙ্গে দমকা হাওয়ায় ফণীর আতঙ্কে গাড়ী বের করতে পারিনি। তাছাড়া বাতাস ও গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি লেগে থাকার করণে মানুষ আতঙ্কিত হয়ে বাড়ি থেকে বের হচ্ছিলো না এতে গাড়ী বের করলেও ভাড়া হবেনা ভেবে আমিও বের হইনি। উপজেলা উপ-সহকারি কৃষি অফিসার কামরুল আহসান কাঞ্চন জানান, উপজেলায় ১২ হাজার ৪শত হেক্টর জমিতে ইরি-বোরো ধানের আবাদ করা হয়েছে।এর মধ্যে চলতি মৌসুমে আংশিক কর্তন করা হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় ফণির প্রভাবে কি পরিমান ক্ষতি হয়েছে জানতে চাইলে তিনি জানান, ফসলে কি পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তা এখনই নির্ধারণ করা সম্ভব নয় তবে ২/১দিনের মধ্যে জানানো যাবে।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft