শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯
আন্তর্জাতিক সংবাদ
বোরকা নিষিদ্ধ নিয়ে ভারতজুড়ে বিতর্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
Published : Saturday, 4 May, 2019 at 8:28 PM
বোরকা নিষিদ্ধ নিয়ে ভারতজুড়ে বিতর্কসম্প্রতি শ্রীলঙ্কায় ভয়াবহ বোমা হামলার ঘটনার পর দেশটিতে বোরকা নিষিদ্ধ করা হয়। এবার ভারতেও নিরাপত্তার ইস্যুতে বোরকা নিষিদ্ধের দাবি উঠেছে। তবে অনেকেই বোরকা নিষিদ্ধের পক্ষে নন বলে জানিয়েছেন। ফলে এ নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছে।
বোরকা নিষিদ্ধের দাবি তুলেছে বিজেপির শরিক শিবসেনা। তারা বলছে, বোরকাকে জঙ্গিরা আত্মগোপন করার প্রয়োজনে ব্যবহার করছে, এতে জাতীয় নিরাপত্তা ক্ষুণ্ণ হচ্ছে। বিজেপি অবশ্য এই দাবিকে সমর্থন করেনি৷ কিন্তু তাদের প্রার্থী সাধ্বী প্রজ্ঞা সিং ঠাকুর শিবসেনার পক্ষ নিয়ে বলেছেন, দেশের স্বার্থ সবার উপরে, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে এ সিদ্ধান্ত মেনে নিতে হবে। দেশের প্রয়োজনে বোরকা নিষিদ্ধ হলে আপত্তি থাকা উচিত নয়৷
পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলার খাগড়াগড়ে বিস্ফোরণের সূত্রে এই রাজ্যে জঙ্গি তৎপরতার ছবি সামনে এসেছিল৷ জঙ্গি সম্পৃক্ততা পাওয়া যায় মহিলাদেরও৷ তবে বোরকা নিষিদ্ধ করলেই যে জঙ্গি তৎপরতা কমবে, এটা ভাবার কিছু নেই বলে মনে করেন পুলিশের সাবেক কর্মকর্তা সন্ধি মুখোপাধ্যায়।
তিনি বলেন, সাধারণ মানুষ জঙ্গি কাজকর্মে জড়িত থাকে না, তারা হিংসার শিকার হয়। পশ্চিমবঙ্গে আইএস বা জেএমবি-র হামলার বিরাট কোনো সম্ভাবনা এই মুহূর্তেই হয়তো নেই, তবু সতর্ক থাকা ভালো৷ তবে নারীমুক্তির কথা চিন্তা করে তিনি বোরখা নিষিদ্ধ করার উদ্যোগকে সমর্থন জানান।
এদিকে বর্ধমান জেলার আউশগ্রামের ব্রাহ্মণডিহি মসজিদের ইমাম শেখ নবি হাসান বোরকা নিষিদ্ধ করাকে ‘হারাম' আখ্যা দিয়ে বলেন, শরিয়ত অনুযায়ী মহিলাদের তিনটি অংশ ছাড়া বাকিটা পুরুষের সামনে অনাবৃত থাকা উচিত নয়৷ অর্থাৎ হাত, পা, মুখ ব্যতীত চতুর্থ অংশ বেপর্দা রাখা যাবে না, এটা ইসলামের নীতি৷ বোরকা বাতিল হলে মুসলিমদের উপর ‘অবিচার' হবে বলে তার মত৷
তবে ইমামের মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে সমাজকর্মী, অধ্যাপিকা শাশ্বতী ঘো্ষ বলেছেন, নারীকে আবৃত রাখার কথা যে পুরুষ বলে, তার সবার আগে ঘরে বন্ধ থাকা উচিত৷
মুর্শিদাবাদ জেলার রানিনগরের কোমনগর হাই মাদ্রাসার শিক্ষিকা শবনম পরভেজ বলেন, আমি বোরকা ব্যবহার করি না৷ অনেকেই করেন না৷ অর্থাৎ শরিয়ত সবাই অনুসরণ করছেন, এমনটা নয়৷ কিন্তু, কারো যদি বোরকা পরতে সমস্যা না হয়, তার উপর নয়া নিয়ম চাপিয়ে দেওয়া ঠিক নয়৷ বোরখা বন্ধ হলেই কি অপরাধমূলক সমস্যাগুলো মিটে যাবে?
ইতিমধ্যে ভারতের সংখ্যালঘুদের একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বোরকা নিষিদ্ধ করেছে৷ কেরলের কোঝিকোড় শহরের মুসলিম এডুকেশন সোসাইটি বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, তাদের প্রতিষ্ঠানের কোনো ছাত্রী বোরকা পরতে পারবেন না৷ এই প্রতিষ্ঠানের অধীন ৭২টি স্কুল ও ৩৫টি কলেজে এক লক্ষ পড়ুয়া রয়েছেন৷
ভারতের জনসংখ্যার মাত্র ১৪ শতাংশ মুসলিমের একটি অংশের পোশাক নিষিদ্ধ করলে দেশ সুরক্ষিত হবে, এটা মানতে চান না ভারতীয় কবি, গীতিকার জাভেদ আখতার৷ তবে বোরকা নিষিদ্ধ হলে, নির্বাচন শেষ হওয়ার আগে রাজস্থানে ঘুঙ্ঘট (ঘোমটা) নিষিদ্ধ করার দাবি জানান তিনি।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft