সোমবার, ২০ মে, ২০১৯
আক্কেল চাচার চিঠি (আঞ্চলিক ভাষায় লেখা)
ভেজাল জিনুসে ডবডবে বাজার, আলাম কনে মলাম যে !
Published : Sunday, 5 May, 2019 at 6:08 AM
ফেসবুক খুল্লি ধম্মকম্ম নিয়ে মানসির নানান কতা বাত্তার শুনলি মনে হবে এগের মতো ধাম্মিক লোক জগতে নেই। কিন্তুক কাজের বেলা ঠনঠনাঠন। সারা দুনিয়ায় রুযা আসতেচে বিলে পাল্লাপাল্লি দিয়ে জিনুস পত্তরের দাম কুমানোর চিস্টা দেচ্চে। যাতে মানুস ভালোমন্দ খাইয়ে রুযা থাইকে ধম্মকম্ম পালন কত্তি পারে। তাগের কাচে মানসির সন্তুষ্ট করাডাও এট্টা ইবাদত। আর তার উল্টো আমাগের দেশে।
আদ্দেকেরও ম্যালা বেশী মোসলমানের বাস এই দেশে। অথচ রুযা আসার আগেত্তেই চলতেচে মজিমজি জিনুস পত্তর গোডাউনে সাইরে রাইকে দাম বাড়ানোর বুদ্দি। যে খাজুর খাইয়ে আমাগের নবী সাহেব ইস্তারী কত্তেন স¹লি কয় সে কারনে খাজুর দিয়ে ইস্তারী করা সুন্নত সিডাও গোডাইনে মজুত কইরে পচা আর বাসি বানায়ে তাতে তেল মাইরে চকচকে কইরে চড়া দামে বেচার ফিকির কত্তেচে। যারা আমাগের দেশে খাজুর আমদানী করে তাগের পিরায় সবাই হাজী সাহেব। আর তাগের পোতিস্টানের নামও মক্কা মদীনা নামের সাতে মিলোনো। তালি কোন পরানডা কনে থুইয়ে ইরা পচা খাজুর রুযাদারগের চড়া দামে খাওয়ায় বুজ পাইনে। এগের এ সব কান্ড কারখানা দেইকে মনে এট্টা ছন্দ চইলে আইসলো, ‘টাকার প্রবল টান গতি যেন রকেট, ককনো কি ভাবিচাও কাফনের নেই পকেট’।
এত টাকা কামায়ে করবাডা কি? মইরে গেলিতো কানাকড়িও সাতে নিতি পারবানা। খাজুরির কতা কতি কতি মনে পইড়ে গ্যালো তেলের কতা। পচা খাজুরি যে তেল মাকায় চকচকে করে সিডাও ভেজাল। কতাডা আমি কইনি বাপু। কইয়েচে বিএসটিআই। রুযার আগে বাজারেত্তে নমুনা নিয়ে পরীক্কে কইরে ৫২ডা কুম্পানীর ১৮ডা পণ্য শিনাক্ত কইরেচে বিএসটিআই। যার মদ্দি দামি বিলে পরিচিত তীর, রুপচান্দা আর পুষ্টিও রইয়েচে। গ্যালো বিসসুদবার মতিঝিলি শিল্প মুন্ত্রণালয়তি বিএসটিআই এক সুংবাদ সম্মিলন কইরে এ কতা কইয়েচে। গ্যালো দুই মাসে ইস্তার ও সেউরির জন্যি ব্যবহার করা ২৭ ধরনের খাদ্যপণ্যের ৪০৬ডা নমুনা বাজারেত্তে চাপনিতি জুগাড় কইরে বিএসটিআই ল্যাবরেটরিতি পরীক্কে করিল। ৪০৬ডা নমুনার মদ্দি ৩১৩ডের রিজাল্ট আউট বের হয়েচে। যার মদ্দি নামি দামি ৫২ডা ব্র্যান্ডের ১৮ডা একেবারে নিম্মমানের পাওয়া গেচে। সুংবাদ সম্মিলনে আরো কওয়া হয়েচে এসব পোতিষ্টানরে কারন কইয়ে যাওয়ার জন্যি নুটিশ পাটানো হয়েচে এবং অচিরেই তাগের বিরুদ্দে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিয়া হবে। বিএসটিআইয়ের তালিকা অনুযায়ী ভেজাল সষষের তেলের মদ্দি সিটি অয়েল মিলির তীর, গ্রিন ব্লিসিংভেজিটেবল অয়েল কুম্পানীর রূপচান্দা এবং শমনম ভেজিটিবল অয়েলের পুষ্টি ব্র্যান্ড রয়েচে। ভেজাল আয়োডিনযুক্ত লবনের মদ্দি এসিআই, মুল্লা সল্ট, মধুমতি, দাদা সুপার, তিন তীর, মদিনা, স্টারশিপ, তাজ ও নূর ইস্পেশাল নামের ব্র্যান্ডগুলো রয়েচে। লাচ্ছা সিমাইয়র মদ্দি রয়েচে মিষ্টিমেলা, মধুবন, মিটাই, ওয়েলফুড, বাঘাবাড়ি ইস্পেশাল, প্রান, জিদ্দা, কিরণ ও অমৃত। লুডলসির মদ্দি রয়েচে নিউজিল্যান্ড ডেইরির ডুডলি নুডলস। ভেজাল হলদির গুড়োর মদ্দি রয়েচে ড্যানিশ, ফ্রেশ, বাঘাবাড়ি ইস্পেশাল, প্রান ও সান। এসিআই ফুডির এসিআই পিওর ব্র্যান্ডের ধইনেরগুড়োর মান এত কুমা যে পরীক্কেগারে অকৃতকার্য ঘোষণা করা হয়েচে। কাশেম ফুড পোডাক্টের ‘সান’ ব্র্যান্ডের চিপসও খুব কুমা মানের বিলে জানায়েচে বিএসটিআই।  



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft