রবিবার, ৩১ মে, ২০২০
শিক্ষা বার্তা
গণিতে ডুবেছে দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ড
দিনাজপুর সংবাদদাতা :
Published : Monday, 6 May, 2019 at 3:03 PM
গণিতে ডুবেছে দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডদিনাজপুরে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের অধীনে অনুষ্ঠিত ২০১৯ সালের এসএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে। এবার এ শিক্ষাবোর্ডে গড় পাশের হার ৮৪.১০ ভাগ। সোমবার (৬ মে) বেলা ১টার দিকে দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক তোফাজ্জুর রহমান আনুষ্ঠানিকভাবে সাংবাদিকদের নিকট ফলাফল হস্তান্তর করেন।
এ শিক্ষাবোর্ডের অধীনে অনুষ্ঠিত ২০১৯ সালের এসএসসি পরীক্ষায় ৮টি জেলার ২ হাজার ৬৩০টি বিদ্যালয় থেকে ২৬৭ টি কেন্দ্রের মাধ্যমে ১ লাখ ৯৮ হাজার ৮০৫ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে। এদের মধ্যে উপস্থিত পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ১ লাখ ৯৭ হাজার ৫৪৬ জন । অনুপস্থিত পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ১ হাজার ২ শত ৫৯ জন। এদের মধ্যে ১ লাখ ৬৬ হাজার ১৩৫ জন পরীক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়েছে। গড় পাশের হার ৮৪.১০ ভাগ। ছাত্রদের পাশের হার ৮২.৬৩ ও ছাত্রীদের পাশের হার ৮৫.৬৬ ভাগ। জিপিএ- ৫ পেয়েছে ৯ হাজার ২৩ জন শিক্ষার্থী। জিপিএ-৫ প্রাপ্ত ছাত্রের সংখ্যা ৪ হাজার ৮শত ৪১ জন । জিপিএ-৫ প্রাপ্ত ছাত্রীর সংখ্যা ৪ হাজার ১শত ৮২ জন । শতভাগ পাশের স্কুলের সংখ্যা এবছর দাড়িয়েছে ১৩৮টি ।
বিজ্ঞান বিভাগে ৮৯ হাজার ৬৬৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ৮৪ হাজার ১৮৭ জন। এদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৮ হাজার ৯২৩ জন। বিজ্ঞান বিভাগের গড় পাশের হার ৯৩.৮৯ ভাগ।
মানবিক বিভাগে ১ লক্ষ ২৬ হাজার ৫৩ জনের মধ্যে ৭৭ হাজার ৪৩০ জন পরীক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়েছে। এদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৮২ জন। মানবিক বিভাগে গড় পাশের হার ৭৫.৪৩ ভাগ।
ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে ৫ হাজার ২২৫ জনের মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ৪ হাজার ৫১৮ জন। ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৮ জন। এ বিভাগে গড় পাশের হার ৮৬.৪৭ ভাগ। বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে গড় পাশের হার ৮৪.১০ ভাগ।
ফলাফল প্রকাশ করে দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক বলেন, ২০১৮ সালের তুলনায় এবার ফলাফল ভাল হয়েছে । তবে জিপিএ-৫ এ বছর কমে গেছে। তবে পাশের হার গত বছরের তুলনায় বৃদ্ধি পেয়েছে । আগামীতে আরোও ভাল ফলাফল উপহার দেয়ার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন তিনি।
তিনি বলেন, ২০০৯ সালে ১ লাখ ২ হাজার ৬৫১ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহন করে। এদের মধ্যে উত্তীর্ণ হয় ৬৪ হাজার ৯১৩ জন এবং পাশের হার ছিল ৬৩.৫৮ ভাগ। ২০১০ সালে ১ লাখ ১৭ হাজার ৭৩৪ জন পরীক্ষার্থী মধ্যে ৮৩ হাজার ৯৭৭ জন উত্তীর্ণ হয়। পাশের হার ছিল ৭১.৭০ ভাগ। ২০১১ সালে ১ লাখ ২৬ হাজার ২৪৮ জনের মধ্যে উত্তীর্ণ হয় ৯৬ হাজার ৫৭৯ জন। ২০১২ সালে ১ লাখ ২৫ হাজার ২৭২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয় ১ লাখ ৭ হাজার ৯০৯ জন। পাশের হার ৮৭.১৬ ভাগ। ২০১৩ সালে ১ লাখ ১ হাজার ৯৪৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয় ৯১ হাজার ৮৬০ জন। পাশের ছিল ৯০. ৬০ ভাগ। ২০১৪ সালে ১ লাখ ১৮ হাজার ৯৬৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয় ১লাখ ১০ হাজার ৪৫৮ জন। পাশের ছিল ৯৩. ২৬ ভাগ। ২০১৫ সালে ১ লাখ ২৭ হাজার ১৮২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয় ১ লাখ ৮ হাজার ১৮৯ জন। পাশের ছিল ৮৫. ৫০ ভাগ। ২০১৬ সালে ১ লাখ ৫০ হাজার ৩২১ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয় ১ লাখ ৩৪ হাজার ২১ জন। পাশের ছিল ৮৯. ৫৯ ভাগ। ২০১৭ সালে ১ লাখ ৬৩ হাজার ৫৭২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয় ১ লাখ ৩৭ হাজার ৩৬২ জন। পাশের ছিল ৮৩. ৯৮ ভাগ। । ২০১৮ সালে ১ লাখ ৮৬ হাজার ৬৪৪ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয় ১ লাখ ৪৪ হাজার ৮৭৬ জন। পাশের ছিল ৭৭.৬২ ভাগ।
২০০৯ সালে শতভাগ পাশকৃত স্কুলের সংখ্যা ছিল ৩৪টি, ২০১০ সালে ৪৬টি এবং ২০১১ সালে ৪৮টি ২০১২ সালে শতভাগ পাশকৃত স্কৃলের সংখ্যা দাড়িয়েছে ২৩১টিতে, ২০১৩ সালে ৪৫৪টি ,২০১৪ সালে শতভাগ পাশকৃত স্কুলের সংখ্যা ৬৬১টিতে দাড়িয়েছে। ২০১৫ সালে শতভাগ পাশকৃত স্কুলের সংখ্যা ৩২০টিতে দাড়িয়েছে । ২০১৬ সালে শতভাগ পাশকৃত স্কুলের সংখ্যা ২৬৯ টিতে দাড়িয়েছে । ২০১৭ সালে শতভাগ পাশকৃত স্কুলের সংখ্যা ১৬৬ টিতে দাড়িয়েছে । ২০১৮ সালে শতভাগ পাশের স্কুলের সংখ্যা ৮৪টিতে দাড়িয়েছে ।
উল্লেখ্য, দিনাজপুরে শিক্ষাবোর্ড প্রতিষ্ঠার পর এটি এ বোর্ডের অধীনে নবমবারের মত এসএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ফলাফল ঘোষণা করার সময় দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শক আবু হেনা মোস্তাফা কামাল, কলেজ পরিদর্শক ফারাজ উদ্দীন তালুকদার, উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (মাধ্যমিক) মোঃ আরিফুল ইসলামসহ অন্যান্য কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft