সোমবার, ১৯ আগস্ট, ২০১৯
আক্কেল চাচার চিঠি (আঞ্চলিক ভাষায় লেখা)
গরীব আর এতিমির জন্যি আসা গোস্ত নিতাগের রান্দাঘরে !
Published : Sunday, 19 May, 2019 at 6:58 AM
একবার এট্টা গল্প শুনিলাম। আমাগের দেশের দেশের একজন বড় ডাক্তার পাশ কইরে চইলে গেচেন ডুবাইতি। সেই দেশে যাইয়ে ভালো পসার পাতি কামায়েচেন। লোকজন তারে সিরা ডাক্তার হিসেবে একনামে চেনে। সেই ডাক্তার গাড়ি চালায় ডুবাই’র একজন স্থানীয় ডিরাইভার। তকন রুযার মাস চলচে। ঈদ আসার আগেই মুসলমানরা তাগের ফিতরা যাকাত গরীবগুরোগের মদ্দি বিলি বন্টন কইরে দেন। তো সেই ডিরাইভার একদিন গাড়ি চালাতি চালাতি তার ডাক্তার সাহেবরে কচ্চেন, স্যার যেদি কিচু মনে না করেন তালি এট্টা কতা কবো? ডাক্তার সাহেব জানেন তার ডিরাইভার খুব ভালো মানুস। কোন ফড়কা কতা ককন কয় না। বিশেষ জরুলী কিচু না হলি তাই আগ্রহ কইরে কচ্চে কও কি কবা। ডিরাইভার কচ্চে স্যার আমার ফিতরা আর জাকাতের টাকা দিয়ার মতো কারো খুইজে পাচ্চি নে, যদি দয়া কইরে আপনি সিডা নেতেন তালি আমি এট্টু সুয়াবের ভাগিদার হতাম। তাই শুইনে ডাক্তারের তো মিজাজ খাররা। কত বড় প্যাটের পিলে! আমার চাকরি কইরে আমারেই কয় যাকাত ফিতরার টাকা নিতি! তবু মাতা ঠান্ডা রাইকে তারে কচ্চে সত্যি কইরে কও দিনি এ দানের জিনুস আমারে দিয়ার কতা তুমার মনে আইসলো ক্যান? ডিরাইভার কচ্চে, স্যার আপনি গরীব না হলি কি আর দেশ ছাইড়ে ভিনদেশে আইসে পড়ে থাকেন? আমি ডিরাইভারী কল্লিও আমি আমার নিজের দেশেই কাজ কইরে খাচ্চি, আর আপনি কাজ কচ্চেন অইন্য দেশে আইসে। নিচ্চয় আপনার স্যানে অবস্তা ভালো না। যুত থাকলি কি আর আপনি দেশ ছাইড়ে আসতেন? ডিরাইভারের কতা শুইনে সেই ডাক্তারের নাই মাতা হেট হইয়ে গিলো।
গল্পডা ম্যালা পুরোনো। কিন্তুক কিচু কিচু কাজে পোতিনিয়ত আমাগের মাতা ইরাম বিদেশীগের কাচে হেট হয়। কাল পিপারে পড়লাম, গরীবলোকের দিয়ার জন্যি সৌইদি সরকার দুম্বার গোস্ত পাটাইলো। এই সব গোস্ত বাংলাদেশের গরীব জনগন আর এতিমখানায় এতিমগের মদ্দি বিলি বন্টন করার জন্যি দিয়া হইলো। কিন্তুক গরীবলোক আর এতিমগের জিনুস হজমি কইরে দেচে এলেকার জনপোতিনিদি, আর ক্ষেমতায় থাকা দলপন্থীরা। ঘটনা কানাঘুষো হতি হতি স¹লির মুকি মুকি রইটে যাওয়ায় ঢি ঢি পইড়ে গেচে এলেকায়। ঘটনাডা ঘইটেচে ককবাজার জিলায়।
সৌইদি সরকারের পাটানো দুম্বার গোস্ত জিলার পেত্তম সারির কিচু নিতা, দ্বিতীয় সারির কিচু নিতা আর গিরামের কিচু টানাবাজ জনপোতিনিদি আর তাগের চামচ আর হাতারা মিইলে নিজেরাই ভাগ ভাটোয়ারা কইরে বাড়ি নিয়ে যাইয়ে রান্দে খাইয়েচে। ককবাজার জিলার ত্রাণ ও পুনরবাসন কম্মকত্তা জানায়েচেন, গরীব দুস্থ আর এতিমগের জন্যি সৌইদি আরবেত্তে পেত্তেক প্যাকেটে ১০ কেজি পরিমাণ বড় টিরাকের এক টিরাক দুম্বার গোস্ত আসিল। সেই সব গোস্ত বিলি বন্টনের জন্যি তিনি পাটায়েও দেচেন। তেবে সেই প্যাকেট কারা কম্মি কি কইরে বিতরণ কইরেচেন সে বিষয়ে তিনি কিচু জানেন না। পরে জানা গেচে, পেত্তেক উপজিলার ইউএনও ও উপজিলা পোকল্প বাস্তবায়ন কম্মকত্তা এই গোস্তোর প্যাকেট জিলাত্তে বুজ কইরে নেচেন। কিন্তু সেই গোস্ত পেত্তেক ইউনিয়নের জনপোতিনধি আর সরকার দলের নিতারা ভাগ বাটোয়ারা কইরে যার যার বাড়ি নিয়ে গেচেন।
হয়ত তাগের চাইতি গরীবগুরো আর এতিম ঐ এলেকায় খুইজে পাওয়া যায়নি। আলাম কনে, মলাম যে!



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft