শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
কথিত দন্ত বিশেষজ্ঞ হারুন অর রশিদ পলিপাস অপারেশনও করছেন সমান তালে !
আশিকুর রহমান শিমুল :
Published : Sunday, 19 May, 2019 at 12:45 AM
কথিত দন্ত বিশেষজ্ঞ হারুন অর রশিদ পলিপাস অপারেশনও করছেন সমান তালে !
কথিত ডাক্তার হারুন অর রশিদ। নিয়মিত চেম্বার করেন শহরের নীলগঞ্জ ব্রিজ সংলগড়ব ‘দন্ত সেবা’ নামে প্রতিষ্ঠানে। ভিজিটিং কার্ডে লিখেছেন ডি.ডি.টি (ঢাকা), বিএসসি ইন ডেন্টাল, ট্রেনিং ইন ইন্ডিয়া, রেজি নং-১১৩১২। সকলে ভাবতে পারেন তিনি দন্ত বিশেষজ্ঞ। তবে অবাক হলেও সত্যি তিনি শুধু দন্ত বিশেষজ্ঞ নয়, সর্বরোগ বিশারদ সেজে প্রতারণা করছেন নিরীহ মানুষের সাথে। ভিজিটিং কার্ডে লিখে রেখেছেন তার প্রতিষ্ঠানে তিনি নাকেরও পলিপাস অপারেশন করেন।

অভিযোগ রয়েছে, পলিপাস অপারেশনে রোগীদের চিকিৎসার ক্ষেত্রে তিনি ক্ষতিকর অ্যাসিটিক অ্যাসিড ব্যবহার করেন। একইভাবে পলিপাস চিকিৎসার ক্ষেত্রেও অ্যাসিড মেশানো তুলা নাকের ভিতর ঢুকিয়ে দেন। কোনো কোনো ক্ষেত্রে সিরিঞ্জে অ্যাসিড ভরে আμান্ত স্থানে পুশ করেন। তার অপচিকিৎসার শিকার একাধিক রোগী আশংকাজনক হয়ে যশোর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের সার্জারি ও নাক, কান, গলা রোগ চিকিৎসা (ইএনটি) বিভাগের ডাক্তারদের স্মরণাপনড়ব হয়েছেন। সার্জারি ও ইএনটি বিভাগের বিশেষজ্ঞ ডাক্তাররা জানিয়েছেন, এ সব ভুয়া ডাক্তারের অপচিকিৎসার শিকার হয়েছেন অসংখ্য রোগী। যারা হাসপাতালে এসেছেন তাদের দীর্ঘ মেয়াদী চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। কিন্তু কাউকেই পরিপূর্ণ সুস্থ করা সম্ভব হয়নি। রোগী গুলো এখনও দূর্বিসহ জীবনযাপন করছেন।

বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল অ্যাক্ট ২০১০ (২০, ডিসেম্বর ২০১০-এ প্রকাশিত গেজেট) এর ধারা ২২(১) ও ২৯(১) এর আওতায় বলা হয়েছে, ন্যূনতম এমবিবিএস অথবা বিডিএস ডিগ্রিধারী ব্যতীত অন্য কেউ তাদের নামের পূর্বে ডাক্তার পদবি লিখতে পারবেন না। তাও আবার তাকে বিএমডিসির রেজিস্ট্রেশনভুক্ত হতে হবে। এর ব্যত্যয় ঘটানো শাস্তিযোগ্য অপরাধ। কোনো ব্যক্তি এ ধারা লঙ্ঘন করলে তিন বছরের কারাদন্ড- অথবা এক লাখ টাকা পর্যন্ত অর্থদন্ড অথবা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে। অপরাধ অব্যাহত থাকলে প্রত্যেক বার তার পুনরাবৃত্তির জন্যে ৫০ হাজার টাকা অর্থ দন্ডে দন্ডিত হবে।

এসব বিষয়ে ডেপুটি সিভিল সার্জন হারুন অর রশীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তিনি বলেন, কথিত দন্ত চিকিৎসক নিজেই এক জন ভুয়া দন্ত রোগ বিশেষজ্ঞ। তিনি কেমন করে নাকের পলিপাস অপারেশন করবেন। এটি  ভাওতাবাজি। এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়ে স্বাস্থ্য বিষয়ক কমিটির মাসিক মিটিংয়ে উত্থাপন করা হবে।   






হবে।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft