রবিবার, ২৫ আগস্ট, ২০১৯
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
৮ উপজেলা ও পৌরসভায় ৫ হাজার মেট্রিকটন চাল বরাদ্দ
৩ লাখ দুস্থ ভিজিএফের আওতায়
রমজান ও ঈদ উপলক্ষে খাদ্যশস্য সহায়তা, তালিকায় থাকবে শতকরা ৭০ জন মহিলা
দেওয়ান মোর্শেদ আলম :
Published : Thursday, 23 May, 2019 at 6:43 AM
৩ লাখ দুস্থ ভিজিএফের আওতায়যশোর জেলার অতিদরিদ্র ও দূর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত ৩ লাখ দুস্থ ভিজিএফ কার্ডের আওতায় আসছে। ৮ উপজেলা ও ৮ পৌরসভার অনুকুলে ৫ হাজার মেট্রিকটন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। ভিজিএফ কার্ডের তালিকায় শতকরা ৭০ জন মহিলাকে নিশ্চিৎ করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। পবিত্র রমজান ও ঈদ-উল-ফিরত উপলক্ষে অতি দরিদ্র পরিবারকে ভিজিএফ খাদ্যশস্য সহায়তা কর্মসূচি আগামী ৩ জুনের মধ্যে শেষ করার প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে যশোর জেলা প্রশাসন ও জেলা ত্রাণ ও পূণর্বাসন কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে প্রত্যেক উপজেলার নির্বাহী কর্মকতা ও পৌর মেয়রদের বরাদ্দপত্র সরবরাহ করাসহ অবহিত করা হয়েছে। ইউনিয়ন ভিজিএফ কমিটি ঠিকমত যাচাই-বাছাই ও বিতরণ করছে কিনা জেলা প্রশাসকের প্রতিনিধি হিসেবে নিজে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তাকে তদারকি করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।
যশোর জেলা প্রশাসন সূত্র জানিয়েছে, দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর পবিত্র রমজান মাস ও ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে বন্যায় আক্রান্ত, অন্যান্য দুর্যোগাক্রান্ত দুস্থ ও অতি দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে ভিজিএফ  (ভার্নালেবেল গ্রুপ ফিডিং) খাদ্যশস্য সহায়তা প্রদান করতে যাচ্ছে। গত ১৪ মে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের এক স্মারকে দুস্থ উন্নয়নে খাদ্যশস্য সহায়তা  সংক্রান্ত উপ-বরাদ্দ পাঠিয়েছে।
৪ হাজার ৬শ’৮ মেট্রিকটন খাদ্যশস্য (চাল) মঞ্জুর করা হয়ছে। এছাড়া যশোর জেলার ৮ উপজেলা ও ৮ পৌর এলাকার ৩ লাখ ৯ হাজার ৫৮ জন অতি দরিদ্র ও দুস্থকে মঞ্জুরীপ্রাপ্ত ওই খাদ্যশস্য দেয়া হবে। দুস্থদের মাঝে কার্ড প্রতি ১৫ কেজি হারে চাল বিনামূল্যে বিতরণ করা হবে। এর মধ্যে ঝিকরগাছা উপজেলা ৫৯ হাজার ৭শ’৬৫ জনের জন্য ৮শ’৯৬ দশমিক ৪৭৫ মেট্রিকটন, চৌগাছায় ৪৬ হাজার ৭শ’৩৫ জনের জন্য ৭শ’১ দশমিক ০২৫ মেট্রিকটন, অভয়নগরে ৪০ হাজার ৯শ’৭৯ জনের জন্য ৬শ’১৪ দশমিক ৬৮৫ মেট্রিকটন,  মণিরামপুর ৬৩ হাজার ৭শ’৬২ জনের জন্য ৯শ’৫৬ দশমিক ৪৩০ মেট্রিকটন,  কেশবপুরে ১৫ হাজার ১শ’ ৩০ জনের জন্য ২শ’২৬ দশমিক ৯৫০ মেট্রিকটন, শার্শায় ২০ হাজার ১শ’৭০ জনের জন্য ৩শ’২ দশমিক ৫৫০ মেট্রিকটন, বাঘারপাড়ায়  ১০ হাজার ৫শ’৭৭ জনের জন্য ১শ’৫৮ দশমিক ৬৫৫ মেট্রিকটন ও  যশোর সদর উপজেলার জন্য ২২ হাজার ৮শ’ ৭৩ জনের জন্য ৩শ’৪৩ দশমিক ০৯৫ মেট্রিকটন বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। সর্বমোট ৮ উপজেলায় ২লাখ ৭৯ হাজার ৯শ ৯১ জনের জন্য ৪১ হাজার ৯৯ দশমিক ৮৬৫ মেট্রিকটন চাল দেয়া হচ্ছে।
এছাড়া ৮ পৌরসভার মধ্যে যশোর পৌরসভার ৪ হাজার ৬শ’২১ জনের জন্য ৬৯ দশমিক ৩১৫ মেট্রিকটন, নওয়াপাড়া পৌরসভায় ৪ হাজার ৬শ’২১ জনের বিপরীতে ৬৯ দশমিক ৩১৫ মেট্রিকটন,  কেশবপুর পৌরসভার ৪ হাজার ৬শ ২১ জনের জন্য ৬৯ দশমিক ৩১৫ মেট্রিকটন,  বেনাপোল পৌরসভার  ৪ হাজার ৬শ’২১ জনের বিপরীতে ৬৯ দশমিক ৩১৫ মেট্রিকটন, মণিরামপুর পৌরসভার ৩ হাজার ৮১ জনের বিপরীতে ৪৬ দশমিক ২১৫ মেট্রিকটন, ঝিকরগাছা পৌরসভার ৩ হাজার ৮১ জনের বিপরীতে ৪৬ দশমিক ২১৫ মেট্রিকটন, চৌগাছা পৌরসভার ৩ হাজার ৮১ জনের বিপরীতে ৪৬ দশমিক ২১৫ মেট্রিকটন ও বাঘারপাড়া পৌরসভার  ১ হাজার ৫শ’৪০ জনের জন্য ২৩ দশমিক ১০০ মেট্রিকটন। সর্বমোট ৮ পৌরসভা এলাকায় ২৯ হাজার ২শ’৬৭ জন অতি দরিদ্রের অনুকুলে বরাদ্দ ৪শ’৩৯ দশমিক ০০৫ মেট্রিকটন চাল। ইতিমধ্যে বরাদ্দের বিষয়ে স্ব স্ব উপজেলা ও পৌর এলাকার সরকারি খাদ্য গুদাম ইনচার্জকে  অবহিত করা হয়েছে।
অতি দরিদ্রদের জন্য বরাদ্দকৃত ওই চাল স্থানীয় খাদ্য গুদাম থেকে উত্তোলন করে সংসদীয় এলাকার সংসদ সদস্যকে অবহিত করে উপকারভোগীদের মাঝে বিনামূল্যে বিতরণ করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে জেলা প্রশাসন থেকে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছ থেকে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে যাবে ওই বরাদ্দ। ইউনিয়ন ভিজিএফ কমিটি অতি দরিদ্র বাছাই করে কার্ড বিতরণ করবেন। ধনী বা স্বচ্ছল ব্যক্তি নয়, দুস্থ অতিদরিদ্র ব্যক্তি ও পরিবারকে এ সহায়তা প্রদান করতে হবে। তবে সম্প্রতি বন্যাক্রান্ত ও দূর্যোগে ক্ষতিগ্রস্থ দুস্থ অতিদরিদ্রকে অগ্রাধিকার দিতে হবে।
এ ব্যাপারে যশোরের জেলা প্রশাসক আব্দুল আওয়াল জানিয়েছেন, উপকারভোগীদের তালিকা এমনভাবে প্রণয়ন করতে হবে যাতে কোন অবস্থাতেই একই পরিবারের একাধিক ব্যক্তি ভিজিএফ কার্ড বরাদ্দ না পায়। এছাড়া উপকারভোগী নির্বাচনের ক্ষেত্রে শতকরা কমপক্ষে ৭০ জন মহিলাকে অন্তর্ভূক্তি নিশ্চিত করতে হবে। তার প্রতিনিধি হিসেবে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তাকে তদারকিসহ সঠিক পরিমানে খাদ্যশস্য বিতরণে নিশ্চয়তা বিধান করতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। বরাদ্দকৃত চাল মানবিক সহায়তা কর্মসূচি বাস্তবায়ন নির্দেশিকা ২০১২-২০১৩ অনুসরণ করতে হবে।
এ ব্যাপারে যশোর জেলা ত্রাণ ও পূণর্বাসন কর্মকর্তা নুরুল ইসলাম গ্রামের কাগজকে জানিয়েছেন, গত ২১ মে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের স্মারকসহ বরাদ্দপত্র জেলার সব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও পৌর মেয়রের কাছে পাঠানো হয়েছে। আসন্ন ঈদ-উল-ফিতরের আগে আগামী ৩ জুনের মধ্যে চাল উত্তোলণ করে যথানিয়মে বিতরণ করার তাগিদ দেয়া হয়েছে। অতিদরিদ্র ও দুস্থ বাছাইয়ে ১২টি শর্তের কথা বলা হলেও ৪ শর্তকে অত্যাবশ্যকীয় করা হয়েছে। দরিদ্র মানুষের যাতে ঈদের আনন্দ ম্লান না হয় সেজন্য সরকারের এই মহৎ প্রয়াস।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft