রবিবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৯
অর্থকড়ি
১২ টাকায় বাচ্চা! সরকারি মুরগি
খামারে আগাম ৪ মাসের বুকিং
বিগত সময়ে ৫০ হাজার অবিক্রিত ছিল, এখন হুমড়ি খেয়ে পড়ছেন খামারীরা
দেওয়ান মোর্শেদ আলম :
Published : Thursday, 30 May, 2019 at 6:24 AM

খামারে আগাম ৪ মাসের বুকিং২০ টাকার পরিবর্তে এক দিনের মুরগির বাচ্চার মূল্য ১২ টাকা করায় যশোর সরকারি হাঁস মুরগি খামারে খামারীরা হুমড়ি খেয়ে পড়েছেন। বাচ্চা সরবরাহ করতে হিমসিম খাচ্ছেন খামার কর্তৃপক্ষ। পরিস্থিতি এতটাই বেগতিক যে ৩/৪ মাস আগে আগাম টাকা জমা দিয়ে বাচ্চার জন্য সিরিয়াল করে রাখছেন খামারী ও ব্যবসায়ীরা। ভবন অভাবে অতিরিক্ত উৎপাদনের জন্য ইনকুবেটর ম্যাসিনও বসানো যাচ্ছে না। সরকারি খামার দাম কমালেও দেশের উত্তরাঞ্চলের প্রাইভেট হ্যাচারিগুলো দাম না কমানোয় খামারীদের ভিড় বাড়ছে যশোর খামরে।
যশোরসহ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের দরিদ্র মানুষের আমিষের চাহিদা পূরনের লক্ষ্যে ১৯৪৯ সালে শহরের শংকরপুর রেল গেটের পাশে ৯ একর জমির উপর নির্মিত হয় হাঁস মুরগি খামার। খামারটিতে প্রয়োজনীয় জনবল ও যন্ত্রপাতি সরবরাহ করে মুরগির বাচ্চা উৎপাদন ও বিপননের কার্যক্রম শুরু হয়। বর্তমানে এ খামারটি এ অঞ্চলের খামারীদের বাচ্চার চাহিদা মেটাতেও সক্ষম হয়। খামারের হ্যাচারির ৬টি ইনকুবেটরের মধ্যে বিদেশী তিনটির ২টি সেটর ও ১টি হ্যাসারে ডিম ফুটানো হয়। ইনকুবেটরের ডাবল ট্রলিতে ডিম ফুটানোর ধারণ ক্ষমতা ৮৬ হাজারের মত। বিগত সময়ে এ খামারের সোনালী ও ফাউমি বাচ্চা নিয়ে এ অঞ্চলের খামার সেক্টর উন্নত হয়েছে। তবে গত দু’বছর দেশের উত্তরাঞ্চলের প্রাইভেট হ্যাচারিগুলো ১০ থেকে ১২ টাকায় এক দিনের বাচ্চা বিক্রি করায় এ অঞ্চলের খামারীরা মুরগির বাচ্চা কিনতে উত্তরাঞ্চলে ঝুঁকে পড়েছিলেন। সরকারি নির্ধারিত মূল্য ২০ টাকা থাকায় ওই সময় প্রতিকুল প্রভাব পড়ে যশোর সরকারি হাঁসমুরগি খামারে। ওই সময় অর্ডার দিয়েও অর্ধশত খামারী বাচ্চা না নেয়ায় খামারে অবিক্রিত থেকেছে বিভিন্ন বয়সী ৫০ হাজার বাচ্চা। আর মজুদ থেকেছে মাসে গড়ে দশ হাজারেরও বেশি ডিম। সব মিলিয়ে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে সময় কাটাচ্ছিলেন খামারের কর্মকর্তা কর্মচারীরা। আর এখন সরকারি মুরগি খামারে এক দিনের বাচ্চা পাওয়া যাচ্ছে ১২ টাকায়। যা আগের তুলনায় ৮ টাকা কম। সেই তুলনায় প্রাইভেট হ্যাচারিতে বাচ্চা ১৪ থেকে ১৬ টাকা।
একই সাথে সরকারি খামারের মুরগি বাচ্চা বৈজ্ঞানিক উপায়ে ফোটানো হওয়ায় খামারীরা এখানে ঝুঁকে পড়েছে। ৩ থেকে ৪ মাস আগে আগাম অর্ডার দিয়েও বাচ্চার গ্যারান্টি পাচ্ছেন না। সরকারি মূল্য একদিনের বাচ্চা ২০ টাকার পরিবর্তে ১২ টাকা, ২ থেকে ২৮ দিনের বাচ্চা ৪০ টাকার পরিবর্তে ৩৫ টাকা করা হয়েছে। একইভাবে ২৯ থেকে ৪০ দিনের বাচ্চারও দাম কমানো হয়েছে। দাম কমায় প্রতিনিয়তই ব্যবসায়ী খামারীরা ভিড় করছেন সরকারি এ খামারে। সব মিলিয়ে বাচ্চার অর্ডার নিয়ে এখন হিমসিম খাচ্ছে আর অসহায়ত্ব প্রকাশ করছেন সরকারি মুরগি খামারে নিয়োজিত দায়িত্বশীলরা। বাচ্চার চাহিদা বাড়লেও অতিরিক্ত ইনকুবেটর বসানোর জায়গা না থাকায় অতিরিক্ত ডিম ফোটানো সম্ভব হচ্ছে না।
এ ব্যাপারে যশোর সরকারি মুরগি খামারের পোল্ট্রি ডেভোলাপমেন্ট অফিসার (পিডিও) রেফায়েত উল হাসান গ্রামের কাগজকে জানিয়েছেন, এক বছর আগেও খামারে হাজার হাজার বাচ্চা অবিক্রিত থাকত। বড় করে বিক্রি করতে বাধ্য হতে হত। সরকারের খরচও বাড়ত। ওই মন্দাভাব কাটিয়ে উঠতে গত বছরের শেষের দিকে প্রাণি সম্পদ অধিদপ্তর ও মন্ত্রণালয় সিদ্ধান্ত নিয়ে এক দিনের বাচ্চার মূল্য ২০ টাকা থেকে কমিয়ে ১২ টাকা করে। সেই থেকে বিক্রির হিড়িক পড়েছে। মোটকথা সাপ্লাই দিতেই ব্যর্থ হতে হচ্ছে। চাহিদার তুলনায় যোগ কম দিতে পারায় আগামী ৩ মাসের মধ্যে বুকিং নেয়া সম্ভব হবে না। যারা বুকিং দিয়েছেন, পর্যায়ক্রমে সেগুলো সরবরাহ করা হবে। নতুন কেউ বুকিং দিতে আসলে তাকে ৪ মাস পরে বাচ্চা সংগ্রহ করতে হবে। দাম কমায় সরকারের রাজস্বে প্রভাব পড়লেও এ অঞ্চলের খামারীরা উপকৃত হচ্ছেন বলেও জানান তিনি।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft