সোমবার, ১৪ অক্টোবর, ২০১৯
জাতীয়
বিএনপির শপথে চাপের চেয়ে লোভ বেশি : গয়েশ্বর
কাগজ ডেস্ক :
Published : Friday, 31 May, 2019 at 8:37 PM
বিএনপির শপথে চাপের চেয়ে লোভ বেশি : গয়েশ্বরবিএনপির এমপিদের শপথ গ্রহণের ক্ষেত্রে সরকারি চাপের চেয়ে লোভ বেশি ছিল বলে মন্তব্য করেছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবে তাঁতী দল আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।
‘শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৮তম শাহাদাৎবার্ষিকী উপলক্ষে’ এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য করে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, আমাদের সিদ্ধান্ত নিয়ে এই যে কথা বলছেন, সংসদে যাবো না। কিন্তু সংসদে গেলাম। এখানেই তো বুঝতে হবে আমাদের প্রতিশ্রুতির অভাব আছে। আমরা অবাধ্যকে বাধ্য করতে পারি না। কারণ তাদের দলের প্রতি ও রাজনীতির প্রতি অঙ্গিকার নাই। এই ৫টা অবাধ্যকে যদি আমরা বাধ্য করতে পারতাম তাহলে আজকে আমাদের এই দুঃখ থাকতো না।
তিনি বলেন, এই বিষয়গুলো আপনাদেরকে বুঝতে হবে। এখন এই ৫ জন যদি দল ছেড়ে চলে যেতো। চলে যেতো না, যেতো। সেই কারণে আপনাকে প্রেক্ষাপটটা বুঝতে হবে। এদের উপরে লোভ আছে, চাপ আছে। তবে চাপের চেয়ে লোভ বেশি। এরা একটা দিনের জন্য বলেছে যে, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া মুক্ত না হলে সংসদে যাবো না? এই ৫ জনের কেউ বলেছেন? একদিন। কেউ বলছে? বলে নাই। তাহলে তাদের সংসদে যাওয়াটা জরুরি। বেগম জিয়ার মুক্তিটা কিন্তু জরুরি না।
নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য করে গয়েশ্বর চন্দ্র আরো বলেন, আমরা বেশি কাজে ফাঁকি দেই। আমরা কমিটি করি। কিন্তু কেউ সংগঠন করি না। তবে একটি কমিটি মানেই সংগঠন না। আর নেতৃত্বের যেখানে দুর্বলতা হয় সেখানে বহুজনের। কমিটিতে যখন যুগ্ম আহ্বায়কের সংখ্যা বেশি এবং সদস্য সচিব থাকে তখনই বুঝতে হবে কেউ কাউকে মানে না। তার মানে অঙ্গীকারের অভাব। সংগঠনের চেয়ে নিজেকে সবাই বড় মাপের দেখতে চায়।
আমরা প্রকৃত অর্থে জিয়াউর রহমানের উত্তরসূরি ও অনুসারী হতে কি পেয়েছি- এই প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, জিয়াউর রহমানকে কি আমরা অনুসরণ করেছি? তাকে যদি আমরা অনুসরণ করি তাহলে আমাদের ভাগ্যের চাকা ঘুরে না এবং আমরা গাড়ি-বাড়ির মালিক হতে পারি না। কারণ উনার রাজনৈতিক জীবনে গাড়ি-বাড়ি ও বিত্তশালী হওয়ার কোন অনুপ্রেরণা ছিল না। উনার রাজনীতি ছিল দেশপ্রেম ও দেশের মানুষকে জাগিয়ে তোলা।
বিএনপির এই স্থায়ী কমিটির সদস্য বলেন, যারা উপদেশ দেন, তারা নিজের বেলায় সেটা কতটুকু বাস্তবায়ন করেন- তা একটু ভেবে দেখবেন। আর দলের উপদেষ্টা সম্পাদক বেশি, কর্ম সম্পাদকটা একটু কম। বলা হয়, ঘরে বসে মিটিং করবো না। কিন্তু ঘরেই ডাকা হয়। আর আজকে ঘরে না ডেকে যদি বাইরে ডাকা হতো তাহলে খুব বেশি ভালো লাগতো।
আয়োজক সংগঠনের আহ্বায়ক আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে সভায় খায়রুল কবির খোকন, অধ্যক্ষ সেলিম ভূঁইয়া, ২০ দলীয় জোট নেতা সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft