মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯
জাতীয়
খোশ আমদেদ মাহে রমজান
মাওলানা মুহাদ্দিস শাফিউর রহমান :
Published : Tuesday, 4 June, 2019 at 6:23 AM
খোশ আমদেদ মাহে রমজানহযরত কা’ব ইবনে উজরাহ (রা:) হতে বর্ণিত আছে,একদা মহানবী (স:) বললেন,তোমারা মিম্বরের কাছে এস্ োআমরা হাযির হলাম । অতপর রাসুল (স:) মিম্বরের প্রথম সিঁড়িতে আরোহন করলেন,এবং বললেন আমীন! এরপর দ্বিতীয় সিঁড়িতে আরোহন করে বললেন আমীন! আবার তিনি তৃতীয় সিঁড়িতে আরোহন করে বললেন,আমীন! রোজার পরিপূর্ণতা লাভ করতে হলে রোজাদারকে ত্যাগের অনূশীলন করতে হবে। নিজেকে এবং নিজের সব অঙ্গ-প্রতঙ্গকেও সব ধরনের গোনাহ থেকে বাচিয়ে রাখতে হবে। আমাদের অঙ্গ-প্রতঙ্গেরও রোজা পালন করতে হবে। এখন প্রশ্ন হলো অঙ্গ-প্রতঙ্গের রোজ আবার কি? অঙ্গ-প্রতঙ্গের রোজর অর্থ হলো রোজা অবস্থায় কোন ভাবেই রোজার নিষিদ্ধ কাজ গুলো আমাদের কোন অঙ্গ দ্বারা করা যাবে না। চোখের রোজা হলো চোখদ্বারা আল্লাহর নিদের্শের বাইরে র কোন কিছু দেখা যাবে না। কানের রোজা হলো কান দ্বারা কোন হারাম গান-বাজনা শোনা যাবেনা। জ্বিহবার রোজা হরো জ্বিহবা দিয়ে এমন কোন কথা বলা যাবেনা যা আল্লাহ তায়ালা পছন্দ করেন না অর্থাৎ কারো গীবত করা যাবে না, গালমন্দ করা যাবে না,মিথ্যা বলা যাবেনা এবং বেহুদা বা অপ্রয়োজনীয় কথা বলা যাবে না।   রহমত-বরকত মাগফিরাত ও নাজাতের যে মহান বার্তা নিয়ে   আমাদের মাঝে উপস্থিত হয়েছে আল্লাহর অসংখ্য নেয়ামতে ধন্য রহমত,বরকত ও মাগফিরাতের বাণীতে শিক্ত মাহে রমজান আজ আবার বিদায় নিতে চলেছে। এই রমজান মাসেই অবর্তীণ হয়েছে বিশ্ব মানবতার চির কল্যানের হেদায়েত গ্রন্থ আল কুরআন। রমজান মাসেই আল্লাহর পক্ষ থেকে অবর্তীণ হয়েছে বা আমরা পেয়েছি বিশ্ব মানবতার চির কল্যানের হেদায়েত গ্রন্থ আল কুরআন আর আল কুরআন হচ্ছে সত্য ও মিথ্যার পার্থক্যকারী একমাত্র পূণাঙ্গ জীবন বিধান। পূণাঙ্গ জীবন বিধান হিসেবে একমাত্র আল কুরআনেই রয়েছে বিশ্ব মানবতার মুক্তির গ্যারান্টি। মহান আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কুরআনেই কুরআন সম্পর্কে এরশাদ করেন , ‘হুদাল লিন নাস’ অর্থাৎ এই কুরআন পৃথিবীর সকল মানুষের জন্য হেদায়েত বা পথ প্রদর্শক হিসেবে কেয়ামত পর্যন্ত আলো দিয়ে যাবে । যে কোন মানুষ এ গ্রন্থ থেকে হেদায়েত লাভ করতে পারবে। এই কুরআন যেমন  নিদৃষ্ট কোন জাতির বা এলাকার জন্য অবর্তীণ হয়নি তেমনি ভাবে এটা কোন নির্ধরিত সময়ের জন্যও অবর্তীণ হয়নি অর্থাৎ এই কুরআন সর্ব যুগের এবং সব মানুষের জন্যই মহা মুক্তির মহা সনদ হিসেবে পথ প্রদর্শন করে যাবে। আমাদের কি জানা নাই যে,ইসলামের সোনালী যুগটা কেমন ছিল? নবী (স.) আলাইহি ওয়া সালাম-এর সাথে কুফ্ফারে কুরাইশের ঈমান ও আকীদায় পার্থক্য ছিল আসমান-যমীনের পার্থক্যের মতই। আবু বকর, উমার, ওসমান, আলী প্রমুখ (রা) এর সাথেও উমাইয়া ইবনে খালাফ কিংবা আবু জাহল, আবূ লাহাব ইত্যাকারের বিশ্বাসের পার্থক্য যোজনব্যাপী ছিল, মুসলিমগণ ছিলেন একত্বে বিশ্বাসী, তারা ছিল বহু উপাস্যের উপাসক। কিন্তু চরিত্র বৈশিষ্ট্যর ব্যাপারে আবূ বকর, উমার, উসমান, বেলাল, খাব্বাব, আবূ হুরাইরা (রা) কে নিয়ে কাফের মুশরিকদের মধ্যে কোন বিতর্ক ছিল কি? তাঁরা কি আমাদের মত বিভিন্ন সময় বিভিন্ন স্থানে, বিভিন্ন প্রয়োজনে বিভিন্ন ভেক ধরতেন? তারা কি কখনও মার্কিনপন্থী, কখনও ভারতপন্থী, কখনও আরবপন্থী,কখনও জাতীয়তাবাদী হতেন?  তাই আসুন রামযানে যে আল্লাহর কালাম আমরা পেয়েছি সেই আল্লাহর কালাম বেশী বেশী অনুশীলন করি এবং রাসূলুলাহ (সা) সুন্নাত সম্পর্কে জ্ঞান লাভ করার চেষ্টা করি যাতে করে আমরা আমাদের সঠিক জীবনকে আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের আদর্শের আলোকে সাজিয়ে বর্তমান অশান্ত এ পৃথিবীতে শান্তির সুবাতাস বইয়ে দেয়ার প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে নিজের, পরিবারের, সমাজের  এবং রাষ্ট্রের চেহারা বদলানোর ব্যাপারে কিঞ্চিত সহযোগিতা করতে পারি। আল্লাহ আমাদের আন্তরিক এই প্রচেষ্টার ফল নিশ্চয়ই দিবেন। আমরা যেমন আল্লাহ তায়ালা নির্দেশ মত পবিত্র রমজান মাস ব্যপি রোজা পালনের মাধ্যমে আল্লাহর পিয়পাত্র হওয়ার আপ্রাণ চেষ্টা করেছি তেমনি ভাবেই আমরা রমজানের এক মাসের শিক্ষা নিয়ে বাকি এগার মাস তেমনি ভাবে আল্লাহর প্রিয়পাত্র হওয়ার আপ্রাণ চেষ্টা করে যাব।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft