বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৯
সারাদেশ
ঠাকুরগাঁওয়ে কাঁচা রাস্তায় ধানের চারা লাগিয়ে এলাকাবাসীর প্রতিবাদ
ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধি :
Published : Friday, 14 June, 2019 at 5:03 PM
ঠাকুরগাঁওয়ে কাঁচা রাস্তায় ধানের চারা লাগিয়ে এলাকাবাসীর প্রতিবাদঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার পটুয়া-জামালপুর রাস্তার আড়াই কিলোমিটার কাঁচা থাকায় বেহাল দশা সামান্য বৃষ্টিতে চলাচলের অনুপযোগী হওয়ায় এলাকাবাসী ধানের চারা লাগিয়ে প্রতিবাদ জানিয়েছে। বৃষ্টির ৫ দিন পরেও রাস্তাটি চলাচলের উপযোগী না হওয়ায় রাস্তায় ধানের চারা লাগাতে বাধ্য হয় তারা।
শুক্রবার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের আয়োজনে পটুয়া-জামালপুর রাস্তার পাইকপাড়া গ্রামের বিভিন্ন স্থানে ধানের চারা রোপণ করা হয়।
সদর উপজেলার পটুয়া-জামালপুর রাস্তার আড়াই কিলোমিটারের মধ্যে ২ কিলোমিটার রহিমানপুর ইউনিয়ন ও বাকিটা জামালপুর ইউনিয়নের। রহিমানপুরের শেষ ও জামালপুরের শুরু হওয়ায় মাঝে পাইকপাড়া গ্রামটি অবহেলায়। ভোটের সময় ভোট আর পরে তেমন খবর নেওয়ার সময় পায়না জনপ্রতিনিধিরা অভিযোগ এলাকাবাসীর।
ঠাকুরগাঁও সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী মাসুদ, জাকির, সাদ্দাম বলেন, দীর্ঘদিন থেকে দেখে আসছি রাস্তাটি শুধু মাপযোগ হচ্ছে পাকার কোন খবর নাই। রাস্তাটি পাকা হওয়া খুব জরুরি। ধানের চারা লাগিয়ে প্রতিবাদ জানিয়েছি। কারণ জনপ্রতিনিধিদের বলে বলে আর বলতে পারছি না। স্থানীয় সংসদ সদস্যকেও বার বার বলেছি তিনি বলেছেন হবে হবে।
স্থানীয়দের দাবী, ওই এলাকায় আওয়ামী লীগের ভোটার থাকলেও কোন নেতা না থাকায় রাস্তাটি সঠিক জায়গাতে না যাওয়ায় পাকা হচ্ছে না। ফলে এলাকাবাসীর দুর্ভোগের যেন শেষ নেই। সামান্য বৃষ্টিতে রাস্তাটি চলাচলে অনুপযোগী হওয়ায় বিশেষ করে বিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা পরেন বিপাকে।
কারণ ঐতিহ্যবাহী জামালপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৫ শতাধিক শিক্ষার্থীর একমাত্র যাওয়া-আসার রাস্তা এটি।
পাইকপাড়া গ্রামের জামালপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী জীবন, শাম্মি, খেলাফত, রহমান জানায়, বৃষ্টি হলে ওই রাস্তা দিয়ে ৩-৪ যাওয়া যায় না। তার পরেও রাস্তা বাদ দিয়ে অন্যের বাড়ি দিয়ে বিদ্যালয়ে যেতে হয়। অনেক সময় অন্যের গালাগালিও খেতে হয়।
জামালপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফারুক হোসেন বলেন, শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে ও অভিভাবকদের স্থানীয় বড় বাজার শিবগঞ্জে যাওয়ার প্রধান সড়ক পটুয়া-জামারপুর। এখনও বর্ষা শুরু হয়নি তাতেই এই অবস্থা। দেশে অনেক উন্নয়ন হয়েছে হচ্ছে আশা করি এই রাস্তাটি পাকা করার বিষয়ে সংশ্লিষ্টরা দ্রুত সিদ্ধান্ত নিবেন।
রহিমানপুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান হান্নু বলেন, প্রতি বছর ট্রলিতে করে ইট ভাটার গুড়া ইট রাস্তাটিতে দেওয়া হয়। তার পরেও কিছুদিন পরপর রাস্তাটির অবস্থা খুব খারাপ হয়। পাকা রাস্তা না হওয়া পর্যন্ত এলাকাবাসীর দুর্ভোগ কমবে না।
জামালপুর ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, রাস্তার এক পাশে জামালপুর আরেক পাশে রহিমানপুর তার পরেও ৪০ দিনের কর্মসূচীর লোকদের পাঠানো হয়েছিল পাশে মাটি না পাওয়ায় জামালপুরের খারাপ অংশ মেরামত সম্ভব হয়নি।
পাইকপাড়া গ্রামের আইনুল হক বলেন, দেশে অনেক উন্নয়ন হয়েছে। ঠাকুরগাঁওতে অনেক এলাকার রাস্তা পাকা হয়েছে যে গুলো রাস্তায় মানুষ চলাচল করে না। অথচ পটুয়া-পাইকপাড়া-জামালপুরের রাস্তা জনবহুল হওয়া সত্ত্বেও পাকা হচ্ছে না। আমরা চাই রাস্তাটি দ্রুত পাকা হোক সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ কমুক।
নাম প্রকাশ না করা শর্তে এলজিইডি‘র এক প্রকৌশলী বলেন, ঠাকুরগাঁও জেলায় যে কয়টি রাস্তা পাকা হওয়া বাকি আছে তার মধ্যে পটুয়া-জামালপুর রাস্তাটি উল্লেখযোগ্য তার পরেও কেন পাকা হচ্ছে না সেটা বলতে পারছি না।
সদর উপজেলা প্রকৌশলী নুরুজ্জামান সরদার বলেন, ঠাকুরগাঁও-১ আসনের সংসদ সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন মহোদয়ের নির্দেশে পটুয়া-জামালপুর রাস্তাটি ২০১৮ সালে মাপযোগ শেষে প্রাক্কলন করে পাঠানো হয়েছে। বরাদ্দ পেলে কাজ শুরু হবে।
আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ঠাকুরগাঁও-১ আসনের সংসদ সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন বলেন, অনেক রাস্তা পাকা করার প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। সে রাস্তাটিও আছে।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft