শুক্রবার, ০৬ ডিসেম্বর, ২০১৯
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
চরম দুর্ভোগে রোগী ও স্বজনরা
ফের বন্ধ যমেক হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিটের লিফট
আশিকুর রহমান শিমুল :
Published : Tuesday, 18 June, 2019 at 6:56 AM

ফের বন্ধ যমেক হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিটের লিফট যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিটের (সিসিইউ) লিফটটি ফের বন্ধ হয়ে গেছে। গত দু’দিন ধরে লিফটটি বন্ধ রয়েছে। এতে অসহায় রোগী ও তাদের স্বজনরা হাসপাতালের তৃতীয় তলায় উঠা-নামা করতে চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন।
হাসপাতালের প্রশাসনিক সূত্রে জানা যায়, দক্ষিণবঙ্গের কার্ডিওলজি রোগীদের চিকিৎসার জন্যে একমাত্র চিকিৎসা কেন্দ্র হচ্ছে যশোর হাসপাতালের ২৮ শয্যা বিশিষ্ট করোনারি কেয়ার ইউনিট (সিসিইউ)। শীতাতাপ নিয়ন্ত্রিত এ অত্যাধুনিক ভবনে রোগীকে নিচতলা থেকে তৃতীয় তলায় উঠানোর জন্যে কোনো ঢালু সিঁড়ি নির্মাণ করা হয়নি। নির্মাণ করা হয়েছে উন্নত মানের বৃহৎ একটি লিফট। যা রোগী উঠা নামার কাজে ব্যবহৃত হয়। আর যে সিড়ি নির্মাণ করা হয়েছে তা হাসপাতালের কর্মকর্তা, কর্মচারী ও রোগীর স্বজনদের চলাচলের জন্যে। যে সিঁড়ি দিয়ে রোগী বহণ করা যায় না। অত্যন্ত সংকুচিত এ সিঁড়িটি। এ পরিস্থিতিতে তৃতীয় তলায় ওয়ার্ডে রোগী উঠা-নামা করতে পারছেন না। কারণ ভবনের একমাত্র লিফট গত দু’দিন ধরে বন্ধ রয়েছে।
সময়ের ব্যবধানে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রোগী যেমন বেড়েছে, তেমনি সকল বিভাগের জনবল ও প্রযুক্তিগত দিক থেকে উন্নয়ন করেছে সরকার। এতে বেড়েছে সেবার মানও। তাই যশোরসহ আশপাশের মানুষ উন্নত সেবা নিতে ছুটে আসেন এ হাসপাতালে। এ বিষয়টি বিবেচনা করে সরকার অন্যান্য চিকিৎসার পাশাপাশি হৃদরোগীর জন্যে সংযোজন করেছে করোনারি কেয়ার ইউনিট। হৃদরোগীদের আলাদা স্থানে রেখে, আলাদা চিকিৎসা দেয়ায় প্রতিদিন এখানে ভিড় করেন হৃদরোগে আক্রান্তরা।
হাসপাতালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এ হাসপাতালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ৭০ থেকে ৮০ রোগী ভর্তি হয় ও চিকিৎসা নিয়ে থাকে। সোমবার করোনারি কেয়ার ইউনিটের ভর্তি রোগী ছিল ৪৯ জন। সকাল ৮টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত তৃতীয় তলার এ ওয়ার্ডে রোগী ভর্তি হয়েছে ১৩ জন।
সন্ধ্যা ৭টা ১৫ মিনিটে যশোর শহরতলীর পুরাতন কসবা ঘোষপাড়া এলাকার আব্দুস সামাদের ছেলে ওলিয়ার রহমান (২৮) বুকে ব্যথ্যা অনুভব করলে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আসেন। জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আহমেদ তারেক শামস্ তাকে ব্যবস্থাপত্র দিয়ে করোনারি কেয়ার ইউনিটের তৃতীয় তলায় প্রেরণ করেন। 
ফের বন্ধ যমেক হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিটের লিফট
রোগীর স্বজন ও  জরুরি বিভাগের কর্মচারিরা তাকে হুইল চেয়ারে করে করোনারি কেয়ার ইউনিটে গেলে দেখতে পান লিফটটি বন্ধ। দরজায় সাদা কাগজে দেখা রয়েছে ‘যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে লিফট বন্ধ আছে’। কোনো উপায় না পেয়ে অবশেষে রোগীর স্বজনরা ওলিয়ার রহমানকে চ্যাংদোলা করে তৃতীয় তলায় ওয়ার্ডে নিয়ে যান। এর আগেও কয়েক দফা এ লিফটি কারিগরি ত্রুটির কারণে বন্ধ থাকে।
রোগীর স্বজনরা জানান, করোনারি কেয়ার ইউনিটের অধিকাংশ রোগীর অবস্থা থাকে আশংকাজনক। তার মধ্যে বেশির ভাগ রোগী বয়স্ক। যারা নিজের পায়ে চলাফেরা করতে পারেন না। তারপর আবার লিফট বন্ধ থাকায় চরম দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে রোগী ও তাদের স্বজনদের। তারা অতি দ্রুত লিফটি চালু করার অনুরোধ করেছেন হাসপাতাল কতৃপক্ষের কাছে।
এ ব্যাপারে হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাক্তার আবুল কালম আজাদ লিটু বলেন, করোনারি কেয়ার ইউনিটের লিফট বন্ধ তিনি শুনেছেন। লিফট মেরামতের জন্যে গতপূর্ত বিভাগে লিখিত অভিযোগ দেয়ার প্রস্তুতি চলছে। অতি দ্রুত লিফট সমস্যার সমাধান করা হবে।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft