সোমবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৯
জাতীয়
'যানবাহনে স্যানিটারি ল্যাট্রিনের ব্যবস্থা করা প্রয়োজন'
কাগজ ডেস্ক :
Published : Wednesday, 26 June, 2019 at 8:14 PM
'যানবাহনে স্যানিটারি ল্যাট্রিনের ব্যবস্থা করা প্রয়োজন'লঞ্চ, স্টিমার, ট্রেনসহ অন্যান্য  যানবাহনে স্যানিটারি ল্যাট্রিনের ব্যবস্থা করা প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ।
তিনি বলেছেন, 'যানবাহনে স্যানিটারি ল্যাট্রিনের দুর্বল অবস্থা শতকরা স্যানিটেশন অর্জনের পথে অন্যতম অন্তরায় হয়ে দাঁড়িয়েছে।'
বুধবার (২৬ জুন) রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতর আয়োজিত বাংলাদেশের রেলপথ নৌপথ ও সড়কপথে কঠিন বর্জ্য ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিষয়ক কর্মশালা বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।
তিনি বলেন, 'সারাদেশে প্রায় দুই হাজার ৮৭৭ কিলোমিটার দীর্ঘ রেল লাইন বিস্তৃত এবং মোট ট্রেনের সংখ্যা ৩৩৯টি। প্রতিদিন গড়ে এক লাখ ১৫ হাজার থেকে এক লাখ ৪৫ হাজার মানুষ রেলপথে যাতায়াত করে। এছাড়া বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ যাতায়াতের জন্য বিস্তৃত নৌ পথের দৈর্ঘ্য পাঁচ হাজার ১৫০ থেকে আট হাজার ছয় কিলোমিটার। নৌ যানগুলো মধ্যে বহুল ব্যবহৃত হচ্ছে ফেরি, স্টিমার ও লঞ্চ। প্রতিদিন পাঁচ থেকে সাত লাখ মানুষ অভ্যন্তরীণ নৌপথে যাতায়াত করে।'
হেলালুদ্দীন বলেন, 'অপরদিকে দেশে মোট ২১ হাজার কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের সড়কপথ রয়েছে। কিন্তু দেশের এই বৃহৎ ও গুরুত্বপূর্ণ অংশ স্যানিটেশন ব্যবস্থা অত্যন্ত দুর্বল।যাত্রা পথের কঠিন ও মানব বর্জ্য ব্যবস্থাপনার অনেক ধরনের সমাধান বিভিন্ন দেশে ব্যবহৃত হলেও দুঃখজনকভাবে আমাদের দেশে এ সকল বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় সঠিক কোনো পদ্ধতি গ্রহণ করা হয় নাই।'
যানবাহনের স্যানিটেশন ব্যবস্থা নিয়ে কাজ করার জন্য জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতরকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, 'এই অধিদফতরের প্রতিবেদনে উল্লেখিত সুপারিশ, দিকনির্দেশনা এবং মোটরযান, রেল পরিবহন, সংশ্লিষ্ট সরকারি, বেসরকারি সংস্থা সহ সকল স্টেকহোল্ডারের মতামত অনুযায়ী যানবাহন সমূহের কঠিন পয়োবর্জ্য ব্যবস্থাপনার লক্ষ্যে কার্যক্রম গ্রহণ করা বা প্রকল্প নেওয়া অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এক্ষেত্রে নীতিনির্ধারক ও সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞগণের পর্যবেক্ষণ ও আলোচনার মাধ্যমে যানবাহনের স্যানিটেশন সমস্যা থেকে উত্তরণের পথ বের হয়ে আসবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করছি। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সকল মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সম্পৃক্ততা থাকা প্রয়োজন।'
এর আগে এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দিয়েছেন স্থানীয় সরকার বিভাগ, স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী তাজুল ইসলাম।
জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী মো. সাইফুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ ,বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপক সহ আরও অনেকে অনেকেই।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft