বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
চেয়ারম্যান শাহারুলসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে মামলা
শিক্ষক ইউসুফের শাস্তির দাবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন
কাগজ সংবাদ :
Published : Thursday, 4 July, 2019 at 6:47 AM

শিক্ষক ইউসুফের শাস্তির দাবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধনযশোরের বালিয়া ভেকুটিয়া স্কুলের এক ছাত্রীর শ্লীলতাহানীর অভিযোগে শিক্ষক ইউসুফের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। গতকাল ফেস্টুন ও প্লাকার্ড হাতে নিয়ে তারা মানববন্ধন করেছে। অপরদিকে আরবপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহারুলসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে অপর শিক্ষক জাহাঙ্গীরের দায়ের করা এজাহার মামলা হিসেবে গ্রহণ করেছে পুলিশ।
মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারী কয়েকজন শিক্ষার্থী ও আরবপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহারুল ইসলাম জানান, বালিয়া ভেকুটিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে অংক পরীক্ষায় পাশ করিয়ে দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে উত্যক্ত করে আসছিলেন বিদ্যালয়ের কৃষি শিক্ষক ইউসুফ আলী। ২ জুলাই পরীক্ষা শেষে ওই শিক্ষার্থীর শ্লীলতাহানী ঘটান। শিক্ষার্থী কোনো রকমে নিজেকে মুক্ত করে বাড়ি এসে ঘটনা সব বলে দেয়। অবস্থা বেগতিক হতে পারে আঁচ করে শিক্ষক ইউসুফ ছাত্রীর বাড়িতে যায় মিমাংসা করার জন্য। তিনি অভিভাবকদের বোঝানোর চেষ্টা করেন যে, অনিচ্ছাকৃত ধাক্কা লেগেছে। এ নিয়ে অভিভাবকদের সাথে তার তুমুল বাকবিতন্ডা হয়। এ সময় স্থানীয়রা ছুটে এসে ইউসুফকে আটকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। ওই দিন রাতেই এ ঘটনায় ছাত্রীর মা থানায় মামলা দেন। ৩ জুলাই ওই মামলায় ইউসুফকে চালান দেয় পুলিশ।
ছাত্রীর শ্লীলতাহানীর প্রতিবাদে ও ইউসুফের বিচার দাবিতে ৩ জুলাই পরীক্ষার পর রাস্তায় নেমে আসে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। ফেস্টুন প্লাকার্ড হাতে রাস্তার দু’পাশে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন করে তারা। এসময় তারা ইউসুফ আলীর বিরুদ্ধে নারী কেলেংকারীর আরও কয়েকটি ঘটনা তুলে ধরে মিছিল করে।
অভিযোগকারীরা জানান, এর আগে শিক্ষক ইউসুফ আরও দু’ছাত্রীর উপর লোলুপ দৃষ্টি দিয়েছিল। দশম শ্রেণির কয়েক ছাত্রীসহ অনেক ছাত্র-ছাত্রী জানায়, ইউসুফ স্যারের চরিত্র খারাপ। এর আগে ওই স্যারকে কয়েকদফা সতর্ক করা হয়। কিন্তু তার কর্মকান্ড বন্ধ হয়নি। তারা দ্রুত ইউসুফ আলীর বহিষ্কার দাবি করে। বহিস্কার করা না হলে, স্কুলে শিক্ষার পরিবেশ ফিরিয়ে না আনলে অব্যাহত কর্মসূচি দেবে তারা।
এ ব্যাপারে স্কুলের প্রধান শিক্ষক আব্দুল কাদের জানান, আসলেই কৃষি শিক্ষক ইউসুফ আলী একজন খারাপ চরিত্রের লোক। এর আগেও তাকে এ ধরনের আরও কয়েকটি ঘটনায় সতর্ক করা হয়।   কিন্তু তিনি শোধরাননি। তার বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা হয়েছে। মামলা হলে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে সাময়িক বহিস্কার করার বিধি রয়েছে। কমিটি এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেবে।
স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শাহারুল ইসলাম জানিয়েছেন, ইউসুফ আলী ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠেছে শিক্ষার্থীরা।  ভেকুটিয়া এলাকায় উত্তাল পরিস্থিতি বিরাজ করছে। ইউসুফের বিরুদ্ধে প্রতিষ্ঠান ব্যবস্থা না নিলে ছাত্ররা রাস্তা ছাড়বে না বলে জানিয়ে দিয়েছে। এ ব্যাপারে আইনগত ও বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়ার পক্ষে তিনি। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সহকারী মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বজলুর রশিদ খোঁজ-খবর নিয়ে গেছেন। দ্রুত কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া হতে পারে।
এদিকে যশোর কোতোয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক সমীর কুমার সরকার জানিয়েছেন, ইউসুফ আলীর বিরুদ্ধে মামলা নেয়া হয়েছে। ভুক্তভোগী মেয়ের সাথে কথা বলেছে পুলিশ। বিষয়টি নিয়ে আরও তদন্ত চলছে। এছাড়া অপর শিক্ষক জাহাঙ্গীর হোসেনের উপর হামলার ঘটনায় দেয়া অভিযোগটিও মামলা হিসেবে রেকর্ড হয়েছে। আসামি করা হয়েছে চেয়ারম্যান শাহরুল ইসলাম, একই গ্রামের আবু হোসেনের ছেলে বিল্লাল, আমানত আলীর ছেলে রুবেল, মোহাম্মদ আলীর ছলে আক্তারুজ্জমান। তারা লোহার রড ও বাঁশের লাঠি দিয়ে জাহাঙ্গীরকে আঘাত করে জখম করে বলে মামলায় বলা হয়েছে। ইউসুফ আলীর ব্যাপারে খোঁজ নিতে গেলে শাহারুলের হুকুমে মারপিট করা হয় বলে জাহাঙ্গীর আলম অভিযোগ করেছেন।
এদিকে, ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা শাহারুল ইসলামের নামে হওয়া মামলাকে ষড়যন্ত্রমূলক আখ্যায়িত করে অবিলম্বে তা বাতিলের দাবি জানিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন চাকলাদার। দপ্তর সম্পাদক এস এম মাহমুদ হাসান বিপু স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে জেলা সম্পাদক এ দাবি জানান।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft