মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
স্কিন ক্যান্সার প্রতিরোধে ৬০ বছরের জেনির অবিরাম ছুটে চলা
মিনা বিশ্বাস
Published : Saturday, 6 July, 2019 at 1:46 AM
স্কিন ক্যান্সার প্রতিরোধে ৬০ বছরের জেনির অবিরাম ছুটে চলাসাত সমুদ্র তেরো নদীর ওপার থেকে এদেশে ছুটে এসেছেন এক বিদেশিনী। বয়স ৬০ পেরিয়েছে। কিন্তু চিন্তা চেতনায় এবং কর্মে এখনও তরুণী। ভিনদেশি কিংবা আরেক দেশের নাগরিক তিনি। তবে, এদেশ কিংবা এদেশের মানুষের প্রতি মমতা অন্য দশজনের মতোই। বর্তমানে বাংলাদেশ সফর করছেন। এর আগেও দু’বার এসেছেন। এদেশের মানুষের ভালোবাসা এবং আতিথেয়তায় মুগ্ধ। বাংলাদেশের প্রতি মায়ার বাঁধনে জড়িয়ে পড়েছেন। মানুষের ভালো থাকাটাই তার কাছে সবচেয়ে বড়। নিজ দেশ কিংবা ভিন দেশ সব খানেই মেনে চলেন একই নীতি। তিনি জেনি বিউইকস বেরেন্ডস। আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন নেদারল্যান্ডসের বিউটি এক্সপার্ট। বাংলাদেশের পার্লার সেবা আন্তর্জাতিক মানে পৌঁছাতে কাজ করছেন রাজধানী ঢাকা, খুলনা এবং যশোরে। এসব শহরের বিউটি পার্লারগুলোতে সৌন্দর্য্য ও স্বাস্থ্য সংক্রান্ত নানান সমস্যা এবং পার্লার সেবার মানোন্নয়নে ছুটে চলছেন অবিরাম।  
সুদূর ইউরোপের দেশ নেদারল্যান্ডের আমস্টারডামে বসবাস করেন জেনি বিউইকস বেরেন্ডস। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে যার পদচারণা মানুষকে সুন্দর করার কাজে। এশিয়া, ইউরোপ, আফ্রিকায় অনেকবার সফর করলেও বেশি গুরুত্ব দেন আফ্রিকা এবং দক্ষিণ এশিয়াকে। কারণ হিসেবে জানান, এ দু’ অঞ্চলের মানুষের পিছিয়ে পড়ার কথা। বাংলাদেশ ছাড়াও সফর করেছেন উপমহাদেশের ভারত ও নেপাল। এর আগেও জেনি দু’বার বাংলাদেশে এসেছেন। হয়েছেন এদেশের বন্ধু। নেদারল্যান্ডস কিংবা বাংলাদেশ জেনির কাছে আলাদা কিছু নয়। বাংলাদেশের শহর কিংবা গ্রাম সর্বত্রই ছুটে চলছেন। এদেশের গ্রাম ভীষণ প্রিয় এই বিদেশিনীর। তৃতীয়বারের মতো এদেশ সফরের অংশ হিসেবে বর্তমানে যশোরে আছেন। পোষ্ট অফিস পাড়ার অভিজাত তৃপ্তি বিউটি পার্লার ও চৌরাস্তা মোড়ের ড্রিমগার্ল বিউটি পার্লারে বিউটিশিয়ানদের হাতে কলমে শেখাচ্ছেন আন্তর্জাতিক মানের সৌন্দর্য্য সেবা প্রদান, তার চর্চা এবং সৌন্দর্য সচেতনতার পাশাপাশি স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিভিন্ন কলাকৌশল। জেনির ভাষায় প্যারামেডিকেল বিউটিফিকেশন। জেনি স্বপ্ন দেখেন এদেশের সব পার্লার মানসম্মত সৌন্দর্য্য সেবা প্রদানের পাশাপাশি স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টিকেও সমান গুরুত্ব দেবে। আর তা ছড়িয়ে পড়বে সারাদেশে। বিউটি এক্সপার্ট ছাড়াও তার পাশাপাশি নিজ দেশে তিনি একজন শিক্ষকও। এদেশে সফরকালে তাই শিশু শ্রমিকদের দেখে ব্যথিত হয়েছেন। এদেশের নারী নির্যাতনও তাকে ভাবিয়েছে। এক্ষেত্রে সকলের সচেতনতা এবং নারী নির্যাতনকারীদের শাস্তি কার্যকর করাই এর সমাধান বলে মনে করেন তিনি। আরো জানান, স্বল্পোন্নত দেশের মানুষের স্কিন ক্যান্সারে ভোগার কথা। বিশেষত, দক্ষিণ এশিয়ার কথা স্মরণ করেন। 
জেনি বিউইকস বেরেন্ডস বলেন, দক্ষিণ এশিয়ায় বিভিন্ন ধরনের মানুষ দেখতে পাওয়া যায়। তবে, এখানকার বেশিরভাগ মানুষই শ্যামবর্ণের বা কালো। তাই এখানকার মানুষ বিশেষত, নারীরা রঙ ফর্সার দিকে ঝোঁকেন। তারা চটকদার বিজ্ঞাপন দেখে না বুঝেই দেশি বিদেশি বিভিন্ন ধরনের মানহীন কসমেটিকস ব্যবহার করেন। তাতে সাময়িকভাবে রঙ ফর্সা হলেও ত্বক ও চুলের স্থায়ী ক্ষতি হয়ে যায়। অনেকে কসমেটিক সার্জারি বা নানান ধরনের লেজার ট্রিটমেন্ট করান। কিন্তু যাদের কাছে এসব ট্রিটমেন্ট নেয়া হচ্ছে তারা অনেকেই কিন্তু একাজে এক্সপার্ট বা পারদর্শী নন। ফলে এ উপমহাদেশে বর্তমানে স্কিন ক্যান্সারের রোগী বাড়ছে। বাংলাদেশে এ ঝুঁকি আরও বেশি। আমি যতটুকু দেখেছি এখানে প্রতিটি মেয়েই ফর্সা হতে চায়। সেটা দোষের কিছু নয়। সুন্দর হতে হবে, তবে অবশ্যই নিজেকে সুস্থ রেখে। নিজের উপর ভরসা করা বা নির্ভর করাকে গুরুত্ব দিতে হবে। আল্লাহ যাকে যেভাবে সৃষ্টি করেছেন তা নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হবে। এক্ষেত্রে ‘হেলদি ওয়ে টু বিউটিফুল’ বা স্বাস্থ্যসম্মতভাবে সুন্দর হয়ে ওঠার চেষ্টা করতে হবে। কিন্তু কোনোভাবেই এর বাইরে নয়। প্রতিটি মানুষকে প্রথমে সুস্থ থাকার চেষ্টা আগে করতে হবে। কারণ শরীরকে অসুস্থ রেখে ভালো কোনো কাজ করা বা এগিয়ে যাওয়া সম্ভব নয়। যশোরে তৃপ্তি বিউটি পার্লার এবং ড্রিমগার্ল বিউটি পার্লার ছাড়াও খুলনার গ্লোরিয়াস বিউটি পার্লারে সৌন্দর্য্য এবং স্বাস্থ্য সুরক্ষা বিষয়ে কাজ করছি। আমি চাই তারা এ বিষয়ে অন্যদের সচেতন করুক। বর্তমানে বিশ্বব্যাপী ক্যান্সার এক মারণব্যাধি। তারমধ্যে স্কিন ক্যান্সার একটি। ব্যাপক সচেতনতার মধ্যে দিয়ে স্কিন ক্যান্সারকে প্রতিরোধ করা সম্ভব। সৌন্দর্য্য এবং স্বাস্থ্য সুরক্ষা দু’টিই সমান গুরুত্বপূর্ণ। আমি এদেশে এ ধারণাটিকেই প্রতিষ্ঠিত করতে চাই। আমি এদেশের মানুষের আতিথেয়তা আর ভালোবাসার কাছে ঋণী। এখানে বারবার আসতে চাই।   



  











সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft