রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
যশোর খাজুরা বাসস্ট্যান্ডে ইজিবাইকে বেশুমার চাঁদাবাজি ॥ চালকরা অতিষ্ঠ
অভিজিৎ ব্যানার্জী :
Published : Sunday, 7 July, 2019 at 1:10 AM

যশোর উপশহর খাজুরা বাসস্ট্যান্ডে ইজিবাইকে বেশুমার চাঁদাবাজি চলছে। কোনো সমিতির নামে নয়-সংঘবদ্ধ স্থানীয় আইউব চক্র পেশি শক্তি বলে প্রতিদিন চাঁদাবাজি করছে। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত চলছে এদের অপতৎপরতা। চাঁদা না দিলে ইজিবাইকের গ্লাস ভাঙা, চাবি কেড়ে নেয়া, তার ছিড়ে দেয়া এখন নিত্য দিনের ঘটনা।
চাঁদাবাজদের অপতৎপরতায় অতিষ্ঠ চালকরা পুলিশি হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। দ্রুত আটক দাবি করেছেন চিহ্নিত ওই চক্রকে।
ভূক্তভোগী ও বাস স্ট্যান্ডের একাধিক সূত্র জানিয়েছে, এক বছর ধরে যশোর উপশহর এলাকা ও যশোর-মাগুরা সড়কে যাত্রীবহন করা ইজিবাইক চালকরা জিম্মি আইউব আলী চাঁদাবাজ চক্রের হাতে। খাজুরা বাসস্ট্যান্ড, উপশহর এলাকা কিংবা যশোর-মাগুরা সড়কে ইজিবাইক ঢুকলেই প্রতিদিন ২০ টাকা দিতে হয়। সমিতির নাম ভাঙিয়ে শহরের কয়েকটি স্পটে ২০ টাকা ও ১০ টাকার টোকেনে চাঁদা আদায় করা হলেও খাজুরা বাসস্ট্যান্ডের চক্রটি কোনো সমিতির ব্যানারে নয়, ¯্রফে গায়ের জোরে চাঁদা আদায় করছে। প্রতিদিন শতাধিক ইজিবাইক আটকে এরা চাঁদা আদায় করে। 
এই চাঁদাবাজ চক্রের নেতৃত্ব দিচ্ছে ঘোপ বেলতলা এলাকার জুয়েল। তার নেতৃত্বে কবরস্থান দাস পাড়ার আইউব আলী ও বাহাদুরপুর থেকে আসা নুর আলমসহ ৬/৭ জনের একটি চক্র দিনভর এই চাঁদাবাজি করে। এর আগে এক কিশোর ইজিবাইক চালক হত্যায় অভিযুক্ত আইউব আলী এখন আরও বেপরোয়া। ইজিবাইক ছাড়াও চক্রটি অন্যান্য যানবাহন থেকেও নিয়মিত চাঁদা আদায় করছে। 
কয়েকজন ইজিবাইক চালক এ প্রতিবেদকের কাছে কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, শহরের অন্য সব স্থানে চাঁদাবাজির ঘটনা নজরদারিতে নেয় পুলিশ প্রশাসন। ইজিবাইক থামিয়ে চাঁদাবাজির ঘটনায় সিটি কলেজপাড়ার আলোচিত সুমনকে একবার আটক করা হয়। ‘আর ইজিবাইকে চাঁদাবাজি করা হবে না, এমনকি সমিতি বা শ্রমিক সংগঠনের নামে টাকা ওঠানো হবে না’ মর্মে মুচলেকা দিতেও হয়েছিলো তাকে। কিন্তু খাজুরা বাসস্ট্যান্ডে ওসবের বালাই নেই। মাসে এখানে কয়েক লাখ টাকা চাঁদাবাজি করা হলেও জড়িতরা আটক হচ্ছে না। 
চালকরা আরো জানান, ‘দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। চাঁদাবাজদের আটক করতে হবে, বিচার করতে হবে। তা না হলে প্রয়োজনে ইজিবাইক চালকরা গোটা শহরে ছড়িয়ে পড়ে একাট্টা হয়ে প্রতিবাদ মিছিল বের করবে, থানায় অবস্থান নেবে’। 
এ ব্যাপারে যশোর কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার ইনচার্জ সমীর কুমার সরকার জানিয়েছেন, খাজুরা বাসস্ট্যাান্ড এলাকায় ইজিবাইক থেকে চাঁদাবাজি করা হয় এমন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। যশোরে কোনো চাঁদাবাজের স্থান নেই। যে চক্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হচ্ছে তাদের ব্যাপারে নির্দিষ্ট অভিযোগ আসলেই আটক করা হবে। শ্রমিকদের টাকা নিয়ে কেউ পকেট ভারি করবে, যশোরের পুলিশ এ অনৈতিকতা চলতে দেবে না’। 




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft