শনিবার, ১৬ নভেম্বর, ২০১৯
তথ্য ও প্রযুক্তি
গ্রামের কাগজে সাক্ষাতকারে আইটি কনসালটেন্ট হার্ম স্পুর
আইটি সেক্টরে এগিয়েছে বাংলাদেশে
কাগজ সংবাদ :
Published : Saturday, 13 July, 2019 at 6:54 AM

আইটি সেক্টরে এগিয়েছে বাংলাদেশেআইটি উদ্যোক্তাদের ব্যবসা প্রসারে কাজ করছে নেদারল্যান্ড ভিত্তিক সংস্থা পাম্প নেদারল্যান্ডস। সম্প্রতি যশোরের আইটি উদ্যোক্তাদের সাথে এক মতবিনিয়মে মিলিত হন পাম্প নেদারল্যান্ড-এর সিনিয়র আইটি কনসালটেন্ট হার্ম স্পুর। যশোর ও সারাদেশের আইটি সেক্টর নিয়ে গ্রামের কাগজের সাথে এক সাক্ষাতকারে মিলিত হন হার্ম স্পুর।
সাক্ষাতকারের আলাপচারিতায় হার্ম বলেন, বাংলাদেশ আইটি সেক্টরে বেশ এগিয়েছে। সম্ভাবনাও রয়েছে অনেক। কারণ এদেশে অনেক তরুণ উদ্যোক্তা রয়েছে। তারাই পারে দেশের এ সেক্টরকে পাল্টে দিতে। এদেশে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানও রয়েছে অনেক। তাদের সফটওয়্যারের চাহিদাও রয়েছে। তাছাড়া, এদেশের সফটওয়্যার বাইরের দেশে বিক্রির যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে। একমাত্র আইটি সেক্টরই দ্রুত উন্নতি করা সম্ভব। এ জন্যে নতুন নতুন উদ্ভাবন দরকার।
বাংলাদেশের আইটি সেক্টর সম্পর্কে হার্ম আরও বলেন, আইটি সেক্টরে এ দেশের মানুষের অনেক আগ্রহ রয়েছে। বেশকিছু প্রতিষ্ঠানও রয়েছে যারা সুনামের সাথে কাজ করছে। তাছাড়া নতুন নতুন প্রতিষ্ঠান তাদের সফটওয়্যার নিয়ে কাজ করছে। লেগে থাকলে আগামীতে বিশ্ববাজারে স্থান করে নেয়ার সুযোগ রয়েছে বাংলাদেশের।
শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে আসার উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, এখানকার আইটি সেক্টর বিশ্বমানের নয়, এ কারণে ব্যবসা প্রসারে পাম্প নেদারল্যান্ডস সংস্থা কাজ করতে চায়। এ জন্যে ব্যবসা প্রসারের সহযোগিতা করতেই তিনি যশোরের শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে এসেছেন।
নেদারল্যান্ড ও বাংলাদেশের আইটি সেক্টরের পার্থক্য সম্পর্কে তিনি বলেন, নেদারল্যান্ড ও বাংলাদেশের আইটি সেক্টরের মধ্যে আকাশ পাতাল পার্থক্য। তাদের দেশের সব ছোট বড় কোম্পানি সফটওয়্যার ব্যবহার করে থাকে। সেদিক দিয়ে বাংলাদেশ অনেক পিছিয়ে। পশ্চিমা দেশের তুলনায় বাংলাদেশের এখনও প্রযুক্তি ব্যবহারে অনেক পিছিয়ে। এ দেশে অনলাইন বিজনেসেও অনেক কিছু করার সুযোগ রয়েছে। কারণ অনেক কোম্পানিই প্রযুক্তি ব্যবহারে অভ্যস্ত হচ্ছে, যা বেশির ভাগ ঢাকা কেন্দ্রিক।
নেদারল্যান্ড আইটি সেক্টর সম্পর্কে হার্ম আরও বলেন, ১৯৬৩ সালের দিকে প্রযুক্তির ব্যবহার শুরু। এখন যে পরিমাণে এগিয়েছে তা কল্পনা করা যায় না। নেদারল্যান্ডের ইন্টারনেট অব থিংস আইওটি (আইওটি) বেশ পুরানো। তিনি বলেন, তাদের দেশের অনেক প্রযুক্তি এখন অনেক দেশে শুরু হয়নি। নেদারল্যান্ডে অনেক টেকনোলজি ও উপযোগী অবকাঠামোও রয়েছে বলে মন্তব্য করেন হার্ম।
বাংলাদেশকে আরো ভালো করতে হলে বেশি বেশি ট্রেনিং দরকার, নিজেদের জ্ঞানের পরিধি আরো মজবুত করা জরুরি। এ জন্যে নেদারল্যান্ডের মাধ্যমে যশোরের শেখ হাসিনা সফটওয়্যার পার্কের উদ্যোক্তা সংগঠনের মাধ্যমে কাজ করা দরকার। তাছাড়া জ্ঞানের পরিধি আরও বাড়াতে হলে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে প্রযুক্তির ব্যবহারের পরিধি আরও বিস্তৃত করা জরুরি।
বাংলাদেশের আউটসোর্সিং সম্পর্কে হার্ম বলেন, বাংলাদেশ আউটসোর্সিং এখন বিশ্বে পঞ্চম বা ষষ্ঠ। আরো উন্নতি দরকার বলে তিনি মন্তব্য করেন।  
যশোরের আইটি উদ্যোক্তাদের সম্পর্কে হার্ম বলেন, শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কের অধিকাংশ উদ্যোক্তা নতুন ও বয়সে তরুণ। তাদের এগিয়ে আসায় আইটি সেক্টরে উন্নতির সংকেত কড়া নাড়ছে। তাদের উচিৎ নতুন নতুন প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করা। যা পাল্টে দিতে পারে যেমন তাদের ব্যবসা, তেমনি দেশের আইটি সেক্টর।  



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft