মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৯
স্বাস্থ্যকথা
লটকন কেন খাবেন
কাগজ ডেস্ক :
Published : Saturday, 13 July, 2019 at 6:54 AM
লটকন কেন খাবেনবর্ষার অন্যতম এক জনপ্রিয় ফলের নাম 'লটকন'। বর্তমানে পুরো বাজার এখন টক-মিষ্টি এই ফলে সয়লাব। কেউ এই ফলটি খেয়ে থাকেন বছরের কেবল একটা সময় পাওয়া যায় এই ভেবে, আবার কেউ বা খান শরীরে ভিটামিন সি এর ঘাটতি পূরণে। তবে এর পাশাপাশি আবার অনেকেরই পছন্দের তালিকায় থাকা ফল এটি। তবে কারণ যাই হোক না কেন এই ফল শুধু সুস্বাদের জন্যই নয়, উপকারী আরও নানা কারণে। চলুন জেনে নিই কী উপকারে ভরপুর এই ছোট ফলটি:
খনিজ উপাদানে ভরপুর
লটকন ফলটি আকারে ছোট হলেও এর মাঝে রয়েছে পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম, ক্রোমিয়াম, ম্যাগনেসিয়ামসহ নানা খনিজ উপাদান। প্রতি ১০০ গ্রাম লটকনে ৯ গ্রাম ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, পটাশিয়াম ও ক্রোমিয়াম থাকে। আর এইসব উপাদান শরীরকে সুস্থ রাখতে বেশ উপকারী।
রক্ত ও হাড়ের গঠনের জন্য আয়রন বিশেষ উপকারী। প্রতি ১০০ গ্রাম লটকনে আয়রনের উপস্থিতি ৫.৩৪ মি.গ্রা। এছাড়াও লটকনে আছে ভিটামিন 'বি'। প্রতি ১০ গ্রাম লটকনে ১০.০৪ মি.গ্রা ভিটামিন 'বি ওয়ান' ও প্রতি ১০০ গ্রামে ০.২০ মি.গ্রা ভিটামিন 'বি টু' পাওয়া যায়।
খাদ্যশক্তির উৎকৃষ্ট উৎস
নিত্যদিনের কাজ করতে এবং দেহ সক্রিয় রাখতে প্রয়োজন খাদ্যশক্তির। আর খাদ্যশক্তির একটি ভালো বা উৎকৃষ্ট উৎস লটকন। প্রতি ১০০ গ্রাম লটকনে ৯২ কিলোক্যালরি খাদ্যশক্তি পাওয়া যায়। খাদ্যশক্তির এই কিলোক্যালরির পরিমান কাঁঠালের তুলনায় প্রায় দ্বিগুণ।
শারীরিক সমস্যা দূরীকরণ
লটকন খেলে গা গোলানো বা বমিভাব দূর হয়। এমনকি মানসিক অবসাদ দূর করতেও ফলটির কার্যকর ভূমিকা আছে। জলীয় বাষ্পের পরিমান বেশি থাকায় সাময়িক তৃষ্ণা মেটাতে লটকন বেশ উপকারী। তবে লটকন বেশি পরিমান না খাওয়াই ভালো। এতে ক্ষুধামন্দা দেখা দিতে পারে।
রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে
লটকনে থাকা অ্যামাইনো অ্যাসিড ও এনজাইম দেহ গঠন ও কোষকলার সুস্থতার পাশাপাশি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে সহায়ক ভূমিকা রাখে। এছাড়াও  প্রতি ১০০ গ্রাম লটকনে রয়েছে ১.৪২ গ্রাম প্রোটিন ও ০.৪৫ গ্রাম ফ্যাট।
ঔষধি বীজ ও পাতা
'গনোরিয়া' রোগের প্রতিষেধক হিসেবে কাজ করে লটকনের বীজ। এছাড়াও ডায়রিয়া দূর করতে লটকন গাছের পাতার গুঁড়ো বেশ কাজে দেয়। ফলের পাশাপাশি লটকনের পাতা ও শিকড় খেলে পেটের নানা অসুখ ও জ্বর ভালো হয়ে যায়।
দক্ষিণ এশিয়ায় বুনো গাছ হিসেবে জন্মালেও বাংলাদেশ, মালয়েশিয়া ও থাইল্যান্ডে বানিজ্যিক চাষ হয় লটকনের। এটি সরাসরি জ্যাম তৈরি করেও খাওয়া হয়। এর ছাল থেকে রঙ তৈরি করা হয় যা রেশম সুতা রাঙাতে ব্যবহৃত হয়। বর্ষা সময়ের এই ফলটি তাই শুধু খাওয়ার জন্যই নয়, উপকারী এর শেকড় বা পাতাও। আর আর্থিক দিক থেকেও অনেক মানুষের কর্মসংস্থানের যোগানও দেয় এই ফল।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft