সোমবার, ০৬ এপ্রিল, ২০২০
জাতীয়
বাংলাদেশে একটা ভিক্ষুকও থাকবে না : প্রধানমন্ত্রী
কাগজ ডেস্ক :
Published : Saturday, 13 July, 2019 at 5:00 PM
বাংলাদেশে একটা ভিক্ষুকও থাকবে না : প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশকে ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত দেশ হিসেবে গড়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশে একটা ভিক্ষুকও থাকবে না। একটা মানুষ গৃহহারা থাকবে না। একটা মানুষ না খেয়ে কষ্ট পাবে না।
অন্তত মানুষের মৌলিক চাহিদাগুলো আওয়ামী লীগ সরকার পূরণ করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করে শেখ হাসিনা বলেন, তাদের জীবনের ন্যূনতম চাহিদা, সেটা যেন আমরা পূরণ করতে পারি, সে লক্ষ্যকে সামনে রেখে সমস্ত পরিকল্পনা, সমস্ত কাজ করতে হবে।
শনিবার (১৩ জুলাই) সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ২০১৯-২০ অর্থবছরে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।
তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত মাস্টারপ্ল্যান অনুযায়ী উন্নয়নের ওপর গুরুত্বারোপ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, গ্রামীণ উন্নয়ন ও গ্রামে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে হবে। মানুষ যেন কাজ খুঁজতে শহরে না আসে, সেভাবে পদক্ষেপ নিতে হবে।
তিনি বলেন, পরিকল্পিতভাবে উন্নয়ন করতে হবে। যত্রতত্র উন্নয়ন আর যেন না হয়। অপরিকল্পিত উন্নয়ন হলে জমি নষ্ট হবে এবং তাদের নাগরিক সুবিধা দেওয়া কঠিন হয়ে যাবে।
দুর্নীতির কারণে উন্নয়ন যেন ব্যাহত না হয় সেদিকে সচেতন থাকার নির্দেশ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা সারাদিন এত খেটে, এত কাজ করে পার করি। এখন যদি এই দুর্নীতির কারণে সব নষ্ট হয়ে যায় তবে সেটি সত্যি খুবই দুঃখজনক। তাই দুর্নীতির কারণে যাতে উন্নয়ন ব্যাহত না হয় সে বিষয়ে সচেতন হতে হবে।
সকলকে আরও দায়িত্বশীল হওয়ার পরামর্শ দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ডিজিটাল যুগের সাথে সমন্বয় করে সরকারি কাজ আরও গতিশীল করতে হবে। দুর্নীতির কারণে আমাদের উন্নয়নটা যেন কোনো মতেই ক্ষতি না হয়, সে বিষয়টা ভালোভাবে দেখতে হবে। আপনাদের নির্দেশনা দিতে হবে একেবারে নিম্নস্তর পর্যন্ত। যারা কাজ করে তাদেরও এ ব্যাপারে সচেতন করতে হবে যে এটা কখনোই আমরা বরদাশত করবো না।
তিনি বলেন, স্বাধীনতার পর ভগ্নস্তূপে পরিণত দেশটাকে নানা প্রতিবন্ধকতার মধ্যেও অর্থনীতিকে গতিশীল রেখে এগিয়ে নিয়ে গেছেন জাতির পিতা বঙ্গব্ন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।
তিনি আরও বলেন, স্বাধীনতাবিরোধী চক্র সব সময়ই সক্রিয় ছিল। একইভাবে আমরাও তাদের চক্রান্তকে প্রতিহত করে এগিয়ে চলেছি, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও চেতনা নিয়ে।
২০২১ সালে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালনের ঘোষণা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সেইসঙ্গে জাতির পিতার জন্মবার্ষিকী ও ২০২১ সালকে আমরা মুজিব বর্ষ হিসেবে ঘোষণা দিয়েছি।
গত অর্থবছরের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি বাস্তবায়নে সর্বোচ্চ পারফরম্যান্সকারী মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরগুলোকে পুরস্কৃত করা হয় অনুষ্ঠানে। বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ আলম, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব মো. নজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রীর এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ, বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব আহমেদ কায়কাউস। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব শফিউল আলম।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft