রবিবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৯
আন্তর্জাতিক সংবাদ
ভারতে ৬ মাসে ২৪ হাজার শিশুকে ধর্ষণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
Published : Sunday, 14 July, 2019 at 9:12 PM
ভারতে ৬ মাসে ২৪ হাজার শিশুকে ধর্ষণচলতি বছরের প্রথম ছয় মাসে গোটা ভারতে প্রায় ২৪ হাজারের বেশি শিশুকে ধর্ষণ করা হয়েছে। যে তালিকায় শীর্ষে রয়েছে যোগী আদিত্য নাথের উত্তরপ্রদেশ। এই সময়ের মধ্যে রাজ্যটিতে প্রায় তিন হাজার ৪৫৭টির বেশি শিশু ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে।
কলকাতাভিত্তিক গণমাধ্যম 'আনন্দবাজারে'র প্রতিবেদনে বলা হয়, শিশু ধর্ষণের দিক থেকে প্রথম পাঁচটি রাজ্যের মধ্যে পশ্চিমবঙ্গের অবস্থান পঞ্চম। রাজ্যটিতে গত ছয় মাসে প্রায় এক হাজার ৫৫১টি শিশু ধর্ষণের অভিযোগ জমা পড়েছে।
এসবের প্রেক্ষিতে গত শুক্রবার (১২ জুলাই) ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট একের পর এক শিশু ধর্ষণের ঘটনায় উদ্বিগ্ন হয়ে স্বতঃপ্রণোদিত হস্তক্ষেপের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যেখানে প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ আদালতের রেজিস্ট্রিকে এ বিষয়ে মামলা দায়েরের জন্য নির্দেশ প্রদান করেছেন। যার প্রেক্ষিতে আগামী সোমবার (১৫ জুলাই) সুপ্রিম কোর্ট এ ব্যাপারে রাজ্যগুলোর প্রতি একটি নির্দেশিকা জারি করতে পারে বলেও খবরে জানানো হয়।
সম্প্রতি প্রধান বিচারপতির নির্দেশে আদালতের রেজিস্ট্রি দেশজুড়ে শিশু ধর্ষণের বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করতে শুরু করে। আর সেই পরিসংখ্যানেই বছরের প্রথম ছয় মাসে প্রায় ২৪ হাজারের বেশি শিশু ধর্ষণের তথ্য উঠে আসে।
এ দিকে পার্লামেন্টে বিরোধী নেতাদের অভিযোগ, কেন্দ্রে বিজেপি সরকারের চরম উদাসীনতার কারণেই সুপ্রিম কোর্টকে এভাবে হস্তক্ষেপ করতে হলো।
কংগ্রেস নেতা রণদীপ সুরজেওয়ালা 'আনন্দবাজার'কে বলেন, 'চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত প্রায় ২৪,২১২টি শিশু ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। যদিও এর মাত্র ৯১১টি মামলায় বিচার এখন পর্যন্ত সম্পন্ন হয়েছে। তবে উত্তরপ্রদেশে সব চাইতে বেশি ঘটনা ঘটলেও এর মাত্র ৩ শতাংশ মামলারই নিষ্পত্তি সম্ভব হয়েছে।'
প্রতিবেদনে শিশু ধর্ষণের প্রথম পাঁচটি রাজ্যের মধ্যে উত্তরপ্রদেশের পরের অবস্থানগুলোতে আছে কংগ্রেস শাসিত মধ্যপ্রদেশ ও রাজস্থান। যার পর চতুর্থ ও পঞ্চম স্থানে রয়েছে যথাক্রমে মহারাষ্ট্র এবং পশ্চিমবঙ্গ।
অপর দিকে পশ্চিমবঙ্গের শিশু অধিকার সুরক্ষা কমিশনের চেয়ারম্যান অনন্যা চক্রবর্তীর মতে, 'গোবলয়ের সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের ফারাক হলো, সে সব রাজ্যে অনেক ঘটনাই থানা পর্যন্ত গড়ায় না। তাছাড়া নিচু জাতের কোনো পরিবারে এমন ঘটনা ঘটলে পুলিশ তো এর এফআইআর পর্যন্ত নেয় না। তবে এখানে এফআইআর নেওয়া হয়, বিচার কাজও হয় ঠিকমতো। তাই এই সংখ্যাটা এখানে একটু বেশি।'




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft