বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০১৯
তথ্য ও প্রযুক্তি
চালকবিহীন গাড়ির অজানা তথ্য
কাগজ ডেস্ক :
Published : Wednesday, 17 July, 2019 at 6:29 AM
চালকবিহীন গাড়ির অজানা তথ্যসাম্প্রতিক এক পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বিশ্বজুড়ে ক্রমবর্ধমানভাবে চালকবিহীন গাড়ির জনপ্রিয়তা বাড়ছে। চালকবিহীন গাড়ি মানুষের হস্তক্ষেপ ছাড়াই রাস্তায় চলাচল করতে সক্ষম। এই গাড়িগুলো স্বায়ত্তশাসিত গাড়ি বা রোবোটিক্স গাড়ি হিসেবেও পরিচিত।
বেশিরভাগ চালকবিহীন গাড়ি এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে রাস্তায় নামেনি। কারণ এই প্রযুক্তিটি এখনও উন্নয়নশীল পর্যায়ে রয়েছে। চালকবিহীন গাড়ি নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে কিছু ভুল ধারণা প্রচলিত আছে। কারণ এ ধরনের গাড়ির প্রযুক্তির অনেক কিছুই এখনো অজানা। চালকবিহীন গাড়ির অজানা কিছু তথ্য তুলে ধরা হলো এই লেখায়।
* প্যাডেল থাকে না : বেশিরভাগ মানুষেরই ধারণা যে, চালকবিহীন গাড়িতে স্টিয়ারিং হুইল থাকে না। তবে আসল সত্যটি হলো, এই গাড়িগুলোতে মূলত প্যাডেল থাকে না।
চালকবিহীন সাধারণ গাড়িতে দুটি আসনবিশিষ্ট সিটবেল্ট, যাত্রীর মালপত্র রাখার স্থান, গাড়ি চালু ও বন্ধের বাটন এবং চলার রাস্তাটি অনুসরণ করার জন্য একটি স্ক্রিন থাকে।
* নির্দেশ দেয়া যায় : চালকবিহীন গাড়িকে দূরবর্তী অবস্থান থেকেও নিয়ন্ত্রণ করা যায়। স্মার্টফোনের সাহায্যে ব্যবহারকারীরা এর গন্তব্য স্থান নির্ধারণ করতে পারেন। এমনকি গাড়িটির পার্কিং লটও নির্ধারণ করে দিতে পারেন।
* শক্তিশালী জিপিএস থাকে : চালকবিহীন গাড়ি সঠিক রাস্তায় চলতে জিপিএস এবং স্যাটেলাইট ন্যাভিগেশন সিস্টেমের ওপর নির্ভর করে। এছাড়া গাড়িতে থাকা ক্যামেরা, লেজার এবং রাডার সেন্সর দুর্ঘটনা এবং অন্যান্য বিপদ এড়াতে সাহায্য করে। শক্তিশালী জিপিএস ব্যবহার করেই চালকবিহীন গাড়ি পথচারী, গাড়ি, সাইকেল চালক, রাস্তার বাঁক, ট্রাফিক লাইট, পাশাপাশি সড়ক এবং রাস্তার চিহ্ন– এগুলো চিহ্নিত করতে সক্ষম।
* দুর্ঘটনা প্রতিরোধে সহায়ক : চালকবিহীন গাড়ির ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি সমালোচনা হচ্ছে এর নিরাপত্তা নিয়ে- আদৌ এটি দূর্ঘটনা এড়িয়ে রাস্তায় চলতে পারবে কিনা। তবে চালকবিহীন গাড়ির নির্মাতারা দাবি করেন, এই গাড়ির সঙ্গে সংঘর্ষে হলেও ক্ষতির পরিমাণ খুবই কম হবে। চালকবিহীন গাড়িতে ব্যবহৃত ফোম বাম্পার এবং নমনীয় উইন্ডস্ক্রিন দুর্ঘটনা প্রতিরোধে এবং সংঘর্ষে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কমাতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে।
* ড্রাইভিং দক্ষতা বাড়ায়  : চালকবিহীন গাড়ি অন্যতম প্রধান কারিগরি সহায়তা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান এনভিআইডিআইএ কর্পোরেশন সাম্প্রতিক এক ঘোষণায় জানিয়েছে, তারা তাদের নতুন এআই-চালিত সহ-চালক সিস্টেমে ক্যামেরা এবং রাডার যুক্ত করেছে। এর মাধ্যমে চালকবিহীন গাড়ির আশেপাশের পরিবেশ সম্পর্কে ব্যবহারকারী জানতে পারে। এতে আশেপাশের অন্যান্য গাড়ি এবং মানুষের সম্পর্কে তথ্য জানা যায়। অভ্যন্তরীণ ক্যামেরা গাড়িটি কোথায় যাচ্ছে তা ট্র্যাক করতে ব্যবহারকারীকে সাহায্য করে। আর ট্র্যাক করা এসমস্ত তথ্য ব্যবহারকারীর ড্রাইভিং দক্ষতা বাড়াতেও কাজে লাগে।
* অন্ধকারেও চলতে পারে : ফোর্ডের চালকবিহীন গাড়ি এমনকি হেডলাইট বা রাস্তার লাইটের আলোর সাহায্য ছাড়াই অন্ধকারেও স্বাচ্ছন্দে চলতে পারে। কোম্পানিটি দাবি করেছে, তাদের চালকবিহীন গাড়ি পুরোপুরি আঁকাবাঁকা রাস্তায় সম্পূর্ণ অন্ধকারে ঘণ্টায় ৬০ কিলোমিটার চলতে সক্ষম।
* রেসিং গাড়ির সমান গতি :  সাধারণত ধারণা করা হয়, চালকবিহীন গাড়ির গতি অনেক কম। তবে এ কথাটি সবসময় সত্য নয়। যেমন আরএস ৭ স্পোর্টব্যাক প্রযুক্তি সম্বলিত অডি গাড়ি ড্রাইভার ছাড়াই চলতে পারে। আর এই গাড়িটি ফর্মুলা ১ ট্র্যাকে অনেকটা ড্রাইভার চালিত গাড়ির গতিতেই চলতে পারে।
* নৈতিকতার প্রশ্নে প্রশ্নবিদ্ধ : চালকবিহীন গাড়ি বিশ্বজুড়ে অনেক বেশি আলোড়ন সৃষ্টি করলেও এটি নিয়ে সমালোচনাও কম হচ্ছে না। এটিকে ঘিরে বেশ কিছু আইন ও নৈতিকতার প্রশ্ন সামনে এসেছে। যেমন চালকবিহীন গাড়ি দুর্ঘটনা ঘটালে এর দায়-দায়িত্ব কে নিবে বা জনসাধারণের ক্ষতির পরিমাণ কমিয়ে আনতে পদক্ষেপ কে নেবে। নির্মাণের প্রাথমিক পর্যায়েই এই বিষয়গুলো বিবেচনা করলে চালকবিহীন গাড়িগুলো আরো বেশি মানুষকে আকৃষ্ট করতে পারবে। তথ্যসূত্র: লিনটেক



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft