বুধবার, ০৫ আগস্ট, ২০২০
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
পদ্মায় স্রোতের তীব্রতায় ফেরি চলাচলে ধীর গতি
রাজবাড়ী প্রতিনিধি :
Published : Thursday, 18 July, 2019 at 6:24 AM
পদ্মায় স্রোতের তীব্রতায় ফেরি চলাচলে ধীর গতিরাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া পয়েন্টে পদ্মা নদীর পানি বিপদসীমার শূন্য দশমিক  ১০ সেন্টিমিটার ওপরে প্রবাহিত হওয়ায় স্রোতের তীব্রতার কারণে মারাত্মক বিপর্যয় ঘটছে দক্ষিণাঞ্চলের ২১ জেলার মানুষের অন্যতম প্রবেশদ্বার দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটের ফেরি চলাচলে।
নদী পারের অপেক্ষায় রয়েছে এখন দেড় সহস্রাধিকেরও বেশি যাত্রীবাহী বাস ও পণ্যবাহী ট্রাক। ঘাট এলাকায় এসে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হচ্ছে যানবাহনগুলোকে। এতে যাত্রীরা পড়েছেন চরম ভোগান্তিতে। নষ্ট হচ্ছে পণ্যবাহী ট্রাকের মালামাল।
নদীর স্রোতের বেগ না কমলে বেশ কিছুদিন যানজট থাকতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্ট ঘাট কর্তৃপক্ষ। তারা বলছেন, স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে ফেরিগুলোর নদী পার হতে দ্বিগুণ সময় লাগার কারণে ঘাটে এই যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।
বুধবার (১৭ জুলাই) দুপুরে দেখা যায়, দৌলতদিয়া জিরো পয়েন্ট থেকে গোয়ালন্দ বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত পাঁচ কিলোমিটার ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে নদী পারের জন্য তিন সারিতে অপেক্ষা করছে দেড় সহস্রাধিক যানবাহন। এছাড়াও দৌলতদিয়া টার্মিনালেও ফেরির জন্য অপেক্ষারত আছে প্রায় শতাধিক ট্রাক। দুই থেকে তিনদিন পর্যন্ত টার্মিনালে ও মহাসড়কে অপেক্ষা করতে হচ্ছে এ যানবাহনগুলোকে।
বাগেরহাট থেকে আসা ট্রাক চালক মনোরঞ্জন কর্মকার বলেন, ‘মঙ্গলবার বিকালে এখানে এসেছি। সারা রাত সড়কেই কেটেছে। আমার আগে আরও হাজারের উপরে ট্রাক অপেক্ষা করছে নদী পারের জন্য। আমি ঘাট থেকে এখনো চার কিলোমিটার দূরে রয়েছি। আজতো পার হতে পারবই না, কবে নাগাদ পার হতে পারব তাও বুঝতে পারছি না।’
বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহনের (বিআইডব্লিউটিসি) দৌলতদিয়া ঘাট ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) আবু আব্দুল্লাহ রনি বলেন, ‘পদ্মার পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। যার কারণে নদীতে স্রোতের বেগ অনেক বেশি। আর তীব্র স্রোতের কারণে ফেরি চলতে পারছে না। স্বাভাবিক সময়ে ফেরিগুলোর নদী পার হতে যে সময় লাগত, এখন তার দ্বিগুণ লাগছে। ফলে ফেরিগুলোর ট্রিপ কমে গেছে। আর ফেরির টিপ কমে যাওয়ায় ঘাটে যানবাহনের চাপ বেড়ে গেছে।’
দৌলতদিয়া ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণের ট্রাফিক ইন্সেপেক্টর আবুল হোসেন বলেন, ‘স্রোতের কারণে ফেরিগুলোর নদী পার হতে বেশি সময় লাগায় ঘাটে যানবাহনের চাপ বাড়ছে। তবে যাত্রীদের যাতে কোনো ভোগান্তিতে পড়তে না হয়, সে বিষয়টি বিবেচনা করে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে যাত্রীবাহী বাসগুলোকে আগে নদী পার করতে চেষ্টা করছি। আর ঘাটে যে ট্রাকগুলো অপেক্ষা করছে সেগুলো সিরিয়াল অনুযায়ী পার করছি।’




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft