সোমবার, ১৯ আগস্ট, ২০১৯
আক্কেল চাচার চিঠি (আঞ্চলিক ভাষায় লেখা)
না ডরায়ে সাবদান হতি হবে
Published : Wednesday, 31 July, 2019 at 10:11 PM
কয়দিন আগে শুনিলাম, স্বাস্ত্যমুন্ত্রী কইয়েচেন ডেঙ্গু ছড়ানো মশারা রোহিঙ্গাগের মতো বংশ বাড়াচ্চে। কতাডা হয়ত তিনি মশকারি কইরে কইলেন, কিন্তুক ডেঙ্গু একন আর মশকারির পযযায়তি নেই। ইডা কেরমে কেরমে মারাত্মক আকার হতি চাচ্চে। পেত্তেক দিনই খবর আসতেচে নতুন কইরে রোগে পড়ারা হাসপাতালে ভত্তি হচ্চে। আবার কম বেশী ডেঙ্গুতি মরার খবরও আসতেচে। তাই ইডা নিয়ে একন কুচো কতা কওয়ার সুমায় নেই।
ডেঙ্গু ঠেকাতি সরকার এর মদ্দি নানা উদ্যোগ নেচেন। ডেঙ্গু রোগ শিনাক্ত করার জন্যি সরকারি হাসপাতালে টেস করা ফিরি কইরে দেচেন। আর ব্যবসা করা হাসপাতালে সরকার দর বাইন্দে দেচে ৫০০ টাকা কইরে। যদিও সিডা সবাই মানচে তাও না। চারিদিকি চলচে মশা নিধন কম্মসুচি। কিন্তুক এ নিয়ে সাধারন মানসির এন্তার অভিযোগ। অনেকের অভিযোগ সিটি, পৌরসভা কিম্বা অইন্য সরকারি উদ্যোগে মশা খেদানোর জন্যি যে ওষুদ ছিটোনো হচ্চে তা নাই অভিনয়। ধুমা আর ফাকা আওয়াজ ছাড়া আর কোন কিচু নাই তাতে নেই। অনেকের দাবি, মশা খেদানোর জন্যি যে ওষুদ আনা হয়েচে তাও নাকি ভেজাল। যে কুম্পানী এই ওষুদ দেচ্চে তারা ভেজাল ওষুদ দিয়ে মুটা টাকা টাইনে নেচে। ওষুদ কিনার সাতে যারা থাকে তারা মুকে কুলুপ আইটে আচে, যিডা আরো সন্দেহ বাড়ায় দেচ্চে।
সেদিন যাচ্চি। চোকি পইড়লো ধুমো আর শব্দের আওয়াজ। একজনের কাচে জানতি চালাম, কি হচ্চে? সে কলে, মশা নিধন কম্মসুচি চলচে। তাই শুইনে পাশেত্তে এক মুরুব্বী কলে, যা হচ্চে তাতে মশা নিধনের নি হচ্চে কিনা জানিনে তেবে পরের টুক হচ্চে সিডা কতি পারি। তাই শুইনে হাসপো না কানবো বুইজে উটতি পাল্লাম না।
আমি মুক্কু সুক্কু মানুস, কারো উপদেশ দিয়া আমার মুকি সাজে না। তেবে মনে হচ্চে, পরের মুক মুকো তাগায় না থাইকে নিজিগের বাড়ির মদ্দি আর আশপাশ নিজেগেরই পাট পরিস্কার রাকতি হবে। বিশেষ কইরে ফুলির টব, ডাবের খুলা আর ডেরেনে পানি জমায় রাকতি দিয়া যাবে না। আর ঘুমানোর আগে মশারি খাটাতি হবে। আর গা গরম হলিই ডাক্তার বাড়ি যাতি হবে।
ইতি-
অভাগা আক্কেল চাচা
০১৭২৮৮৭১০০৩



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft