রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
যশোরে সাড়ে ১০ হাজার খামারির ঘরে ৭০ হাজার কোরবানির পশু
এম. আইউব :
Published : Friday, 2 August, 2019 at 6:27 AM
যশোরে সাড়ে ১০ হাজার খামারির ঘরে ৭০ হাজার কোরবানির পশুকোরবানির পশু বিক্রি নিয়ে যশোরে ১০ হাজার খামারি প্রস্তুতি নিয়েছেন। তাদের ঘরে ইতোমধ্যে বিক্রির উপযোগী করেছেন ৭০ হাজার কোরবানিযোগ্য পশু। এসব পশু বিক্রি শুরু হয়েছে আরো এক মাস আগে থেকে। তবে, সেই বিক্রির পরিমাণ ছিল তুলনামূলক কম। খামারিরা বাড়ি বসেই এসব পশু বিক্রি করে আসছেন। বাড়িতে পালিত কোরবানির হাজার হাজার এ পশু হাটে তোলা শুরু হবে দু’ একদিনের মধ্যেই-এমন তথ্য প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তাদের।
জেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তর থেকে পাওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, যশোরের আট উপজেলায় ১০ হাজার ৮শ’ ২৭ জন খামারি ৭০ হাজার ৬শ’ ৪৭ টি কোরবানিযোগ্য পশু পালন করেছেন। এরমধ্যে গরু রয়েছে ৩১ হাজার ৯শ’ ৬ টি। ৩৮ হাজার ৭শ’ ৪১ টি রয়েছে ছাগল-ভেড়া মিলে।
যশোর সদর উপজেলার ১ হাজার ২শ’ ১০ জন খামারি ৩ হাজার ১শ’ ১২ টি গরু ও ৩ হাজার ৩শ’ ৪২ টি ছাগল-ভেড়া, ঝিকরগাছার ১ হাজার ৩শ’ খামারি ২ হাজার ৮শ’ ৫০ টি গরু ও ৩ হাজার ৬শ’ ৪০ টি ছাগল, শার্শার ১ হাজার ৫শ’ ৪ জন খামারি ৪ হাজার ৭শ’ ৮৫ টি গরু ও ৭ হাজার ৯শ’ ৯১ টি ছাগল-ভেড়া, মণিরামপুরের ২ হাজার ২৭ জন খামারি ৬ হাজার ৭শ’ ৬৫ টি গরু ও ৮ হাজার ৫শ’ ৩১ টি ছাগল, কেশবপুরের ১ হাজার ৫শ’ ৮০ জন খামারি ২ হাজার ৪শ’ ২২ টি গরু ও ২ হাজার ৫শ’ ৩৮ টি ছাগল, অভয়নগরে ১ হাজার ৫০ জন খামারি ৪ হাজার ৫শ’ ৬৯ টি গরু ও ৩ হাজার ৫শ’ ১২ টি ছাগল, বাঘারপাড়ার ৭শ’ ৯৪ জন খামারি ৩ হাজার ৪শ’ ৮৬ টি গরু ও ২ হাজার ৮শ’ ৩৭ টি ছাগল এবং চৌগাছার ১ হাজার ৩শ’ ৬২ জন খামারি ৩ হাজার ৮শ’ ১৭ টি গরু ও ৬ হাজার ৩শ’ ৫০ টি ছাগল পালন করেছেন। যশোরে এবার ভেড়া পালিত হয়েছে ৮শ’ ৪৩ টি। এগুলোর মধ্যে সদরে ১শ’ ২৩, শার্শায় ৫শ’ ৬৯, বাঘারপাড়ায় ৩২ ও চৌগাছায় ১শ’ ১৯ টি রয়েছে। জেলার আট উপজেলার মধ্যে সর্বাধিক পশু পালিত হয়েছে মণিরামপুরে ১৫ হাজার ২শ’ ৯৬ টি। আর সর্বনি¤œ কেশবপুরে ৪ হাজার ৯শ’ ৬০ টি। এসব পশু কোরবানি উপলক্ষে পালন করেছেন খামারিরা। অনেক খামারি তাদের খামারের নির্দিষ্ট কিছু পশুকে টার্গেট করে পালন করেছেন আলোচনায় আসার জন্যে। এ সম্পর্কে খামারিদের বক্তব্য,‘কয়েক বছর ধরে গরুটি পালন করে আসছি। কোরবানিতে বাজারে উঠানোর জন্যে। যাতে ভালো দাম পাওয়া যায়।’ ইতোমধ্যে মণিরামপুরের ‘পালসার বাবু’ ও ‘বরকত’ আলোচনায় এসেছে। গণমাধ্যমের দৃষ্টি কেড়েছেন এ দু’টি গরুর মালিক ইয়াহিয়া ও আব্দুল মান্নান। পালসার বাবুর দাম হাঁকা হয়েছে ১৫ লাখ। ১০ লাখ তোলা হয়েছে বরকতের। এ দু’টি গরু দেখার জন্যে গণমাধ্যম কর্মীদের পাশাপাশি অনেক উৎসুক মানুষ পালসার বাবু আর বরকতের খামারে ভিড় জমাচ্ছে। জেলার ২৪ টি স্থায়ী এবং অস্থায়ী হাটে বিক্রি হবে এসব পশু।
এবারের কোরবানিতে জেলায় মোট ৬৩ হাজার গরু-ছাগলের চাহিদা রয়েছে। এরমধ্যে গরু রয়েছে ২৮ হাজার এবং ছাগল ভেড়া ৩৫ হাজার। এ জেলায় কোনো মহিষ পালিত হয়নি বলে প্রাণিসম্পদ দপ্তর থেকে জানানো হয়েছে। যশোরের ২৪ টি হাটের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে, চৌগাছা, সাতমাইল, উপশহর, ঝিকরগাছা, মণিরামপুর, কেশবপুর, খেদাপাড়া, নাভারণ, বাগআঁচড়া, ছুটিপুর, খাজুরা, চাড়াভিটা, নারকেলবাড়িয়া, রূপদিয়া ও পুড়োপাড়া।
কোরবানির পশুর নিয়ে জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ভবতোষ কান্তি সরকার জানিয়েছেন, প্রতিনিয়ত কোরবানির পশুর বিষয়ে খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে। প্রত্যেকটি হাটে ভেটেরিনারি মেডিকেল টিম প্রস্তুত থাকবে। কোনো পশুতে আপত্তিকর কিছু পরিলক্ষিত হলে সেই বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft