বুধবার, ১৩ নভেম্বর, ২০১৯
জাতীয়
বঙ্গমাতা চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন : স্পিকার
কাগজ ডেস্ক :
Published : Thursday, 8 August, 2019 at 8:00 PM
বঙ্গমাতা চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন : স্পিকারজাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব রত্নগর্ভা একজন আদর্শ বাঙালি নারী বঙ্গবন্ধুর সহধর্মিনী, জীবনসাথী যিনি মরণেও জাতির পিতার সাথী হয়েছেন। বঙ্গমাতা চিরকাল আমাদের জাতীয় জীবনে অনন্ত অনুপ্রেরণার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবেন। তিনি হয়ে থাকবেন চিরস্মরণীয়।
বৃহস্পতিবার (৮ আগস্ট) বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় আয়োজিত বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব এর ৮৯ তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
স্পিকার বলেন, বঙ্গমাতা এক অসাধারণ চারিত্রিক দৃঢ়তা আত্মপ্রত্যয় দৃঢ় মনোবল সাহস এবং অসীম ধৈর্য্যের অধিকারী ছিলেন। তার জীবন বিশ্লেষণ করলে অনন্য বৈশিষ্ট খুঁজে পাই। স্বামীর প্রতি তার প্রগাঢ় ভালবাসা। বঙ্গবন্ধুকে তিনি গভীরভাবে ভালবাসতেন সেই সাথে বাঙালির অধিকার আদায়ের সংগ্রামের নেতৃত্ব দিয়েছেন। বাঙালির অধিকার আদায়ের সংগ্রামের জন্য জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বার বার কারাবরণ করেছেন। আর বঙ্গবন্ধুকে নেপথ্যে সাহস যুগিয়েছেন, পরামর্শ দিয়েছেন, প্রেরণা দিয়ে সহযোগিতা করেছেন এই মহিয়সী নারী বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব। তীক্ষ্ণ বুদ্ধি সম্পন্ন একজন নারী ছিলেন তিনি। তার ছিল গভীর রাজনৈতিক প্রজ্ঞা যেটা তার বিভিন্ন ঘটনা বিশ্লেষণে দেখতে পাই।
ড. শিরীন বলেন, বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনীতে বঙ্গবন্ধু বিভিন্ন জায়গায় রেণুর কথা বলেছেন। তিনি (বঙ্গবন্ধু) বলেছেন, “রেণু খুব কষ্ট করত কিন্তু কিছুই বলত না। নিজে খুব কষ্ট করে আমার জন্য টাকা পয়সা জোগাড় করে রাখত যাতে আমার কষ্ট না হয়।” এই কাজটি বঙ্গমাতা করতেন অনেক ছোট বয়স থেকেই নিজের অর্থ নিজের জন্য ব্যয় না করে বঙ্গবন্ধুর জন্য সংরক্ষিত রাখতেন, যেন বঙ্গবন্ধু তার রাজনৈতিক কাজে সেই অর্থ ব্যবহার করতে পারেন। সেটাও সত্যি অনন্য বিষয়।
বঙ্গমাতার রাজনৈতিক প্রজ্ঞা সম্পর্কে বলেন, আওয়ামী লীগকে সংগঠিত করা, বঙ্গবন্ধু যখন কারাগারে থাকতেন তার অনুপস্থিতিতে দলটি পরিচালনা করা নেতাকর্মীদের সকল ধরণের প্রয়োজন সুবিধা অসুবিধার বিয়ষ জানা, সাহস দেওয়া সহযোগীতা করা। শুধু আওয়ামী লীগ নয় দলের অন্যান্য সহযোগী সংগঠন যেমন ছাত্রলীগকে বলতে গেলে নিজের হাতেই গড়ে তোলেন বঙ্গমাতা।
স্পিকার বলেন, নির্যাতনের শিকার নারীদের পুনবার্সনের জন্য বঙ্গমাতা সক্রিয়ভাবে কাজ করেছেন। তার জীবনের কিছু কিছু ঘটনা সব সময় স্মরণীয় হয়ে থাকবে। বঙ্গবন্ধু যাতে প্যারোলে মুক্তি না হন সেই পরামর্শ দিয়েছিলেন বঙ্গমাতা। নিজের সুবিধার কথা চিন্তা না করে স্বাধীনতার বিষয়টি বড় করে দেখেছিলেন। সে কারণে পরবর্তীতে জাতির পিতাকে গণঅভ্যত্থানে মুক্ত করা হয়েছিলেন। আসুন এই মহিয়সী নারীর জন্মদিন এমনভাবে উদযাপন করি যেন তার জীবনের বিভিন্ন ঘটনা বিশ্লেষণ করে আমরা সেখান থেকে শিক্ষা গ্রহণ করতে পারি।
এ সময় তিনি বঙ্গমাতার স্মরণে রবীন্দ্রনাথের কবিতার দুটি লাইনে বলেন, “নয়ন সন্মুখে তুমি নাই, নয়নেরও মাঝখানে নিয়েছ যে ঠাঁই, তুমি রবে নিরবে হৃদয়ও মম।
মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা’র সভাপতিত্বে  বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মেহের আফরোজ চুমকি, জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট অধ্যাপক মমতাজ বেগম ।
মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি অ্যাডভোকেট তারানা হালিম।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft