বুধবার, ২১ আগস্ট, ২০১৯
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
কেশবপুরে রাজহাঁস চুরির ঘটনায় মামলা, প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন
কেশবপুর (যশোর) ব্যুরো :
Published : Sunday, 11 August, 2019 at 6:00 AM
কেশবপুরে রাজহাঁস চুরির ঘটনায় মামলা, প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলনকেশবপুরে রাজহাঁস চুরির অপবাদ দিয়ে সাধারণ মানুষকে আসামি করে থানায় মামলা করার প্রতিবাদে শনিবার দুপুরে কেশবপুর প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলার বরনডালি গ্রামের আব্দুল গফুর তোতা এ সংবাদ সম্মেলন করেন।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, গত ৭ আগস্ট সাতক্ষীরার পলাশপোল গ্রামের মোসলেম উদ্দীন দেয়াড়া গ্রামের রেজাউল করিমের ১০টি ও বরনডালী গ্রাম থেকে ৫টিসহ মোট ১৫টি রাজহাঁস চুরি করে সরসকাটি ব্রিজ পার হচ্ছিল। এ সময় হাঁস মালিক রেজাউল করিম মোবাইল ফোন করে এ ঘটনা সবাইকে জানিয়ে দেন। খবর পেয়ে বরনডালি গ্রামের ফিরোজ সরসকাটি ব্রিজের উত্তর পাশ থেকে হাঁসসহ চোর মোসলেমকে আটক করতে গেলে সাইকেলসহ হাঁস রেখে সে পালিয়ে যায়। এসময় আশপাশের লোকজন সেখানে উপস্থিত হয়। খবর পেয়ে ভালুকঘর ক্যাম্প ইনচার্জ নাছির উদ্দীন একদল পুলিশ নিয়ে হাঁস ও সাইকেল উদ্ধার করে ক্যাম্পে নিয়ে যান। ওইদিন রাতে ক্যাম্প ইনচার্জ নাছির উদ্দীন বরনডালি গ্রামের শাহাজান আলী, ত্রিমোহিনী ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক আলাউদ্দীন, ত্রিমোহিনী ইউনিয়ন যুবলীগের সদস্য কিরণ মিয়া ও জামাল হোসেনকে ডেকে ক্যাম্পে নিয়ে হাঁস চোর হিসেবে কেশবপুর থানায় সোপর্দ করে। ৮ আগস্ট সকালে পুলিশ মোসলেম উদ্দীনকে এ মামলার বাদি করে নীরিহ ৪ জনকে আসামি করে থানায় একটি মামলা রেকর্ড করে তাদেরকে আদালতে সোপর্দ করে। মামলা নং-২।
তিনি সংবাদ সম্মেলনে আরও উল্লেখ করেন, যে ব্যক্তি হাঁসসহ চোরকে আটক করতে গিয়েছিল সেই ফিরোজকে এ মামলায় আসামি করা হয়নি। অথচ যারা ঘটনাস্থলে ছিল না পুলিশ তাদেরকে ডেকে নিয়ে আসামি করেছে। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হাঁসের মালিক দেয়াড়া গ্রামের রেজাউল করিম অভিযোগ করে বলেন, পুলিশ কার স্বার্থে হাঁস চোর মোসলেমকে বাদি করে নিরীহ লোকদের চোর সাজিয়ে মামলা নিল? তিনি উদ্ধার হওয়া তার হাঁস ফিরে পেতে ও নিরীহদের এ মামলা থেকে অব্যাহতির দাবি জানান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আলাউদ্দীনের ভাই  কামাল হোসেন।
এ ব্যাপারে ভালুকঘর ক্যাম্প ইনচার্জ নাছির উদ্দীন জানান, এ মামলার বাদি মোসলেম পুলিশে খবর দিয়ে জানান, তিনি একজন হাঁস মুরগির ব্যবসায়ী। তিনি এলাকা থেকে হাঁস মুরগি ক্রয় করে যাওয়ার সময় মামলার উল্লেখিত ৪ ব্যক্তি তার কাছ থেকে ছিনিয়ে নেয়। এ অভিযোগে একটি মামলা রুজু করা হয়।  



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], edito[email protected]
Design and Developed by i2soft