মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯
অর্থকড়ি
চামড়া ওঠেনি রাজারহাটে!
কাগজ সংবাদ :
Published : Sunday, 18 August, 2019 at 6:49 AM
চামড়া ওঠেনি রাজারহাটে! দেশের অন্যতম বৃহত্তম চামড়ার মোকাম রাজারহাটে এবার চামড়া নিয়ে আসেনি বিক্রেতারা। বিক্রেতারা বলছে, দরপতনের কারণেই বাজারে চামড়া নিয়ে আসেননি। তবে, কয়েকজন বিক্রেতা চামড়া নিয়ে আসলেও দাম পাননি। ব্যবসায়ী নেতারা বলছেন, দেশ স্বাধীনের পর এবারই ঈদের বাজারে কম চামড়া উঠেছে হাটে। যা অত্যন্ত হতাশার। বেশি দামের আশায় ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা স্থানীয়ভাবে কাঁচা চামড়া মজুদ করে রেখেছে বলে দাবি তাদের। তবে, খুব শীঘ্রই ব্যবসায়ীদের সাথে বৈঠক করে বাজারে চামড়া আনা নিশ্চিত করতে উদ্যোগ নিবেন বলে জানিয়েছেন তারা।
কোরবানি ঈদের পর মূলত চামড়া কেনাবেচার প্রধান হাট হিসেবে ধরেন সংশ্লিষ্টরা। সে কারণে শনিবারই ছিল মূলহাট। কিন্তু দেশ স্বাধীনের পর যতগুলো হাট বসেছে তার প্রতি হাটে প্রায় ৭০ থেকে ৮০ হাজার পিচ চামড়া বেচাকেনা হয়েছে। অথচ শনিবারের চামড়ার হাটে তিন থেকে চার হাজার পিস চামড়া বেচাকেনা হয়। যা অত্যন্ত হতাশাজনক বলে স্থানীয় পাইকারি ব্যবসায়ীদের দাবি।
শনিবারের হাটে প্রতি পিচ গরুর চামড়া চারশ’ থেকে সাতশ’ টাকা আর ছাগলের প্রতি পিচ চামড়া বিক্রি হয়েছে ৩০ থেকে ৮৫ টাকার মধ্যে।      
বেশি দামের আশায় ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা স্থানীয়ভাবে কাঁচা চামড়া মজুদ করে রেখেছে বলে ব্যবসায়ী নেতারা দাবি করলেও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা তাতে দ্বিমত পোষণ চামড়া ওঠেনি রাজারহাটে! করেছেন। তারা বলছেন, প্রতি বছর গ্রামে ঘুরে ঘুরে তারা চামড়া কেনেন। কিন্তু এবার দাম কম হওয়ায় যারা কোরবানি দিয়েছেন তারাই চামড়া নষ্ট করে ফেলেছেন। কেউ নদীতে ফেলেছেন, কেউ মাটিতে পুতে রেখেছেন কেউ আবার নামমাত্র দান করে দিয়েছেন। যার ফলে আশানুরূপ  চামড়া বাজারে ওঠেনি।
এদিকে, বৃহত্তর যশোর জেলা চামড়া ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন মুকুল বলেছেন, এবার বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ঘোষণা ছিল কাঁচা চামড়া কিনে রপ্তানি করবে। কিন্তু ওই মন্ত্রণালয় এখনও পর্যন্ত কাঁচা চামড়া কেনার কোনো উদ্যোগ নেয়নি। অথচ সকল ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীই বেশি দামের আশায় চামড়া মজুদ করে রেখেছে। যার ফলে বাজারে চামড়া ওঠেনি।
একই সাথে কোনো চামড়াই পাচার হতে পারেনি বলে দাবি এ নেতার। তিনি বলেন, প্রশাসনের কড়া নিরাপত্তায় চামড়া পাচাররোধ করা হয়েছে।
আলাউদ্দিন মুকুল আরও বলেন, আগামী হাটের আগেই তারা ব্যবসায়ীদের সাথে বসে চামড়া বিক্রির ব্যাপারে পদক্ষেপ নেবেন। একই সাথে আগামী হাটে পর্যাপ্ত চামড়া উঠবে বলে দাবি করেন তিনি।  



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft