বৃহস্পতিবার, ০৯ জুলাই, ২০২০
জাতীয়
মিয়ানমারকে বন্ধুহীন ভাবার কারণ নেই : কাদের
কাগজ ডেস্ক :
Published : Saturday, 24 August, 2019 at 9:31 PM
মিয়ানমারকে বন্ধুহীন ভাবার কারণ নেই : কাদেররোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে কূটনৈতিক ব্যর্থতা নেই উল্লেখ করে মিয়ানমারকে বন্ধুহীন ভাবার কোনো কারণ নেই বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।
শনিবার (২৪ আগস্ট) দুপুর ১২টায় ডিপ্লোমা ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় তিনি এ কথা জানান। বিআরটিসি শ্রমিক কর্মচারী লীগের (সিবিএ) উদ্যোগে এ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।
সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানোর বিষয়ে যারা বলেন কূটনৈতিক প্রয়াস ব্যর্থ হয়েছে, এটা সঠিক নয়। আমাদের মনে রাখতে হবে মিয়ানমারেরও বন্ধু আছে, এশিয়ায়ও তাদের বন্ধু আছে। তারা বন্ধুহীন তা মনে করার কারণ নেই। অর্থনৈতিক কারণেও মিত্রতা হয়, হিসাবের অংকে মিয়ানমারও কম শক্তিশালী নয়। তাই জাতিসংঘসহ বিভিন্ন দেশের সমর্থন আদায়ের মতো সাফল্য আমাদের কূটনৈতিক কারণেই হয়েছে। তাই এখানে ব্যর্থতার কিছু নেই, বাস্তব কারণে এক পা পিছিয়ে গেলেও কূটনৈতিক ব্যর্থ বলা যাবে না।’
তিনি বলেন, ‘কোনো দেশে এতো উদার উন্মুক্ত সিমান্ত দিয়ে শরনার্থীরা ভিন্ন দেশে আশ্রয় পায়নি। ১১ লাখ রোহিঙ্গাকে লালন পালন করা ও আশ্রয় দেওয়ায় আমাদের পর্যটন, অর্থনীতি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। তারপরও শেখ হাসিনা বিশ্বের মানবিকতার দৃষ্টান্ত পেছনে ফেলে মানবিক কারণে তাদের আশ্রয় দিয়েছেন।’
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বর্তমানে মিয়ানমার সবচেয়ে বেশি চাপ অনুভব তৈরি করছে। কিন্তু তারা সেরকম পরিবেশ সৃষ্টি করতে পারেননি বলে রোহিঙ্গারা তাদের বিশ্বাস করতে পারছে না। এটার দায় মিয়ানমারকে নিতে হবে। আমরা যুদ্ধের পথে যাব না। এই সময়ে যুদ্ধের পথে গিয়ে জয় পাওয়া যাবে না। রোহিঙ্গাদের সম্মান ও নিরাপত্তা নিশ্চিত না করে ফেরত পাঠানো যাবে না।’
রোহিঙ্গাদের হাতে যুবলীগ নেতা ওমর ফারুক হত্যার প্রসঙ্গ টেনে মন্ত্রী বলেন, ‘এটি একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা। যেখানে রোহিঙ্গারা আছে সেখানে আমাদের দেশের মানুষ আছে চারলাখ আর রোহিঙ্গারা ১১ লাখ। রোহিঙ্গাদের সবাইকে নিরিহ ভাবার কারণ নেই। তাদের হতাশা আছে, সেখানে এ ধরনের ঘটনা ঘটতে পারে। এজন্য পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে যাবে তা ভাবার কারণ নেই। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে।’
ডেঙ্গু প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘ডেঙ্গুর জন্য সর্বাত্মক প্রয়াস অব্যাহত আছে। প্রধানমন্ত্রী সরাসরি ডেঙ্গুর বিষয়টি মনিটর করছেন। শোকের মাসের অনুষ্ঠানের মধ্যেও ডেঙ্গু বিষয়েও কার্যক্রম অব্যাহত আছে।’
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘ইতিহাসের সবচেয়ে কলঙ্কজনক রক্তাক্ত দিন ১৫ আগস্ট। একই সঙ্গে আরেকটি কলঙ্কজনক দিন ২০০৪ সালের ২১শে আগস্ট। এই দুটি ঘটনা একই সূত্রে গাঁথা। ১৫ আগস্ট প্রাইম টার্গেট ছিলেন বঙ্গবন্ধু আর ২১শে আগস্ট প্রাইম টার্গেট ছিলেন শেখ হাসিনা। এতো অন্ধকার পথ অতিক্রম করেও আমরা আলোর পথে এগিয়ে যাচ্ছি।’
শ্রম প্রতিমন্ত্রী মুন্নুজান সুফিয়ান বলেন, ‘বিআরটিসির কর্মকর্তা কর্মচারীদের সঠিক সেবা দিতে হবে। যে দাবি দাওয়া আছে সেগুলো সংশ্লিষ্টরা দেখবে। বিআরটিসি নিজের বাস ভাবলে শ্রমিক কর্মচারীরা বেতন পাচ্ছে না, সেই জায়গায় যেতে হবে না। তারা যদি প্রতিদিন ১০ হাজার টাকা জমা দেয় তাহলে তাদের বেতনের সমস্যা হওয়ার কথা নয়।’
আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন- বিআরটিসির চেয়ারম্যান ফরিদ আহমদ ভূঁইয়া, জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ।



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft