বুধবার, ১৬ অক্টোবর, ২০১৯
সারাদেশ
সাদুল্যাপুরে আ.লীগের তিন নেতার বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ
ছাদেকুল ইসলাম রুবেল, গাইবান্ধা :
Published : Sunday, 25 August, 2019 at 7:48 PM
গাইবান্ধার সাদুল্যাপুরে তিন আওয়ামীলীগ নেতার বিরুদ্ধে আপন ভাই ও বোনের পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া জমি দখল করার অভিযোগ উঠেছে।
রসুলপুর ইউনিয়নের মহিষবান্দি এলাকার আবদুল লতিফ সরকারের ২৪ শতক জমিতে লাগানো আমন চারা নষ্ট করে জোরপূর্বক দখলের পর চারা রোপনের অভিযোগ ওঠে তাদের বিরুদ্ধে।
এ ঘটনায় ভুক্তভোগী আবদুল লতিফ সরকার বাদী হয়ে তিন আ.লীগ নেতাসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে সাদুল্যাপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
অভিযুক্তদের মধ্যে মতিয়ার রহমান গাইবান্ধা জেলা আ.লীগের ত্রাণ ও দুর্যোগ বিষয় সম্পাদক, আবদুল ওয়াহেদ সরকার রসুলপুর ইউনিয়ন আ.লীগের সাবেক সধারণ সম্পাদক ও আবদুল আবদুল জলিল সরকার সাদুল্যাপুর উপজেলা কৃষক লীগের সদস্য।
ঘটনার পর থেকে বাদির বাড়ি দখল ও ভাঙচুর করার হুমকিও দিয়ে আসছেন অভিযুক্তসহ তাদের পক্ষের লোকজন। শুধু তাই নয়, তাদের দেয়া প্রাণনাশের হুমকিতে বর্তমানে চরম নিরাপত্তাজীনতায় ভুগছেন বাদিসহ পরিবারের লোকজন।
লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, রসুলপুর ইউনিয়নের মহিষবান্দি ও শ্রীকলা মৌজার কয়েকটি দাগ-খতিয়ানভুক্ত জমি পৈত্রিক সুত্রে (মৃত্যু-আসমত উল্লা) মালিক আবদুল লতিফ, আবদুল মজিদ ও তার বোন শাহার বানু। দীর্ঘদিন থেকে জমি মালিকানা সূত্রে ভোগ দখল করে আসছেন তারা। এরমধ্যে আবদুল লতিফ তার প্রাপ্ত ২৪ শতক জমি স্থানীয় রইচ উদ্দিনের কাছে বন্ধক রাখায় তিনি চাষাবাদ করে আসছেন। চলতি মৌসুমে রইচ উদ্দিন জমিতে আমন ধানের চারা রোপন করেন। কিন্তু পৈত্রিক সুত্রে পাওয়া জমি নিয়ে ভাই মোস্তাফা, মতিয়ার, জলিল ও ওয়াহেদের সঙ্গে মনোমানিল্য ও পারিবারিক দ্বন্দ চলে আসছিলো।
গত ১৭ আগস্ট দুপুরে মোস্তফা, মতিয়ার, জলিল ও ওয়াহেদ তাদের ভাড়াটিয়া লোকজন নিয়ে জমিতে প্রবেশ করে। এসময় জমিতে লাগানো আমন চারা পাওয়ার ট্রিলার মেশিন দিয়ে সম্পন্ন নষ্ট করে ১০ হাজার টাকার ক্ষতি সাধন করে এবং জমিতে নতুন করে আমন চারা রোপন করেন। এছাড়া এসময় পুকুর, গাছপালা, বসতবাড়িসহ অন্য জমি দখল এবং কেউ বাঁধা দিলে খুন-জখমের হুমকি দেয় তারা।
ভুক্তভোগী আবদুল মজিদ মিয়া বলেন, পৈত্রিক সম্পত্তি সব ভাইদের মধ্যে ভাগবাটোয়ারা হয়েছে। সে অনুযায়ী সকলে তাদের জমি দখলে নিয়ে চাষাবাদ করে আসছেন। তার ভাই মতিয়ার রহমান, জলিল ও ওয়াহেদ সরকার ক্ষমতাসীন দলের নেতা হওয়ায় স্থানীয় আরও কয়েকজন টাউট নেতাদের পরোক্ষ সহযোগিতায় জোরপূর্বক জমি দখল করেন। মতিয়ার তার ভাগের জমি অনেক আগেই বিক্রি করেছেন। বর্তমানে মতিয়ার ধারদেনায় জর্জরিত হওয়ায় ক্ষমতার প্রভাব দেখিয়ে জমি দখলের অপকর্মে লিপ্ত হয়েছেন।
এ বিষয়ে মতিয়ার রহমানের বোন শাহার বানুর অভিযোগ, পৈত্রিক জমিজমা নিয়ে এরআগেও তাকে ও তার মাকে নির্যাতন করেন মতিয়ারসহ ভাইয়েরা। বর্তমানে নির্যাতনের শিকার হয়ে তার মা বাড়ি ছেড়ে অসুস্থ্য অবস্থায় তাদের বাড়িতে অবস্থান করছেন। এ ঘটনার প্রতিকার চেয়ে তার মা মতিয়ারসহ ভাইয়ের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিবেন।
এ বিষয়ে বাদি আবদুল লতিফ সরকার বলেন, পৈত্রিক সম্পত্তি ভাগবাটোয়ার পর সেই জমি প্রত্যেকের নামে রের্কডভুক্ত হয়েছে। সমস্ত কাগজপত্র থাকার পরেও অন্যায় আর ক্ষমতার জোরে মতিয়ার, মোস্তফা, জলিল ও ওয়াহেদ স্থানীয় কয়েকজন পাতি নেতাকে সঙ্গে নিয়ে জমি দখল করেন। বর্তমানে পুকুর, বাড়ি ভাঙচুরসহ অন্য জমি দখলসহ থানায় অভিযোগ করার কারণে প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছেন তারা। এতে পরিবার নিয়ে চরম নিরাপত্তহীনতায় ভুগছেন তিনি।
তবে অভিযুক্ত আ.লীগ নেতা মতিয়ার রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জমি দখলের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এ বিষয়ে জমির প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও মালিকাসুত্র যাচাই করলে ঘটনার সত্যতা পাওয়া যাবে। এছাড়া অপর অভিযুক্ত আবদুল জলিল ও আবদুল ওয়াহেদ সরকারের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।
এদিকে, বাদির লিখিত অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সম্প্রতি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে পুলিশ।
এ বিষয়ে তদন্তকারী কর্মকর্তা সাদুল্যাপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আশরাফুল আলম বলেন, অভিযোগের বিষয়টি সরেজমিনে তদন্ত করা হয়েছে। তদন্ত শেষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft