সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
শিক্ষা বার্তা
চাইলেই প্রধান পরীক্ষক হওয়া যাবে না
যশোর শিক্ষাবোডের্ প্রশ্নপত্র আপলোড বাধ্যতামূলক
এম. আইউব :
Published : Saturday, 7 September, 2019 at 6:25 AM
যশোর শিক্ষাবোডের্ প্রশ্নপত্র আপলোড বাধ্যতামূলকযশোর শিক্ষাবোর্ডের অধীনে অনুষ্ঠিত জেএসসি ও এসএসসি পরীক্ষায় এখন থেকে চাইলেই প্রধান পরীক্ষক হওয়া যাবে না। প্রধান পরীক্ষক হতে হলে শর্ত পূরণ করা বাধ্যতামূলক। আর এই শর্তটি হচ্ছে বোর্ড পরিচালিত অনলাইন প্রশ্নব্যাংকে বিষয়ভিত্তিক পূর্ণ এক সেট প্রশ্ন আপলোড করা। যে প্রশ্ন দ্বারা বিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীণ অর্থাৎ অর্ধবার্ষিক, বার্ষিক ও প্রাকনির্বাচনী পরীক্ষা গ্রহণ করা হবে।
শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে যশোর শিক্ষাবোর্ড অনলাইনে প্রশ্ন প্রণয়ন করে সংরক্ষণের লক্ষ্যে সৃজনশীল প্রশ্ন কাঠামো অনুযায়ী প্রশ্নব্যাংক সফটওয়্যারের আপডেট ভার্সন তৈরি করছে। প্রশ্নব্যাংকের আপডেট ভার্সনে বিষয় ভিত্তিক শিক্ষক জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের মানবন্টন এবং শিক্ষাবোর্ডের অভ্যন্তরীণ পরীক্ষার পাঠ্যসূচি বিভাজন অনুযায়ী এক একটি করে পূর্ণ এক সেট প্রশ্ন আপলোডের সুবিধা পাবেন। এই প্রশ্ন সৃজনশীল কিংবা বহু নির্বাচনী হতে পারে। শিক্ষকরা প্রশ্ন আপলোডের পর শিক্ষাবোর্ডের সার্ভারে সর্বোচ্চ গোপনীয়তায় সংরক্ষিত থাকবে বলে জানিয়েছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা।
শিক্ষাবোর্ড থেকে বর্তমানে যারা প্রধান পরীক্ষক রয়েছেন এবং নতুন করে প্রধান পরীক্ষক হতে ইচ্ছুকদের জন্যে নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। সেই নির্দেশনায় বলা হয়েছে, জেএসসি ও এসএসসি পরীক্ষায় যারা প্রধান পরীক্ষক হতে চান তাদেরকে অবশ্যই পূর্ণ এক সেট প্রশ্ন আপলোড করতে হবে। সিলেবাস ও বোর্ডের অনলাইন প্রশ্নব্যাংকের আদলে যারা এই প্রশ্নপত্র আপলোডে ব্যর্থ হবেন তারা কোনোভাবেই প্রধান পরীক্ষক হতে পারবেন না। পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মাধব চন্দ্র রুদ্র স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত পত্রের স্মারক নম্বর পনি/প্র.ব্যাংক-০২/৪৩৫। শিক্ষাবোর্ডের পত্রের এই অনুলিপি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সচিব, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর খুলনা অঞ্চলের পরিচালক, খুলনা বিভাগের সকল জেলা প্রশাসক ও জেলা শিক্ষা অফিসার, সকল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারকে দেয়া হয়েছে।
মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানদের প্রতি জারি করা হয়েছে ১১ টি নির্দেশনা। এগুলো হচ্ছে, শিক্ষকদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যথাসময়ে উপস্থিতি এবং ফলপ্রসূ পাঠদান নিশ্চিত করা, প্রাত্যহিক সমাবেশে শিক্ষার্থীদের দিয়ে দু’টি নৈতিক বাক্য পাঠ করানো, শিক্ষকদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে প্রতিষ্ঠান প্রধানদের নিয়মিত ইনহাউজ প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা, নির্ধারিত শিক্ষকের অনুপস্থিতিতে কোনো ক্লাস বন্ধ না রাখা, শ্রেণিকক্ষে পাঠ্যপুস্তকের বাইরে কোনো নোটবুক এবং গাইড বই ব্যবহার না করা, মাল্টিমিডিয়া ও কম্পিউটার ল্যাব ব্যবহার নিশ্চিত এবং সকল শিক্ষককে আইটি বিষয়ে পারদর্শী হতে হবে। সহশিক্ষা কার্যক্রম যথাযথভাবে বাস্তবায়ন এবং বিজ্ঞানাগার ও লাইব্রেরি ব্যবহার নিশ্চিত করা, স্টুডেন্ট কেবিনেটের কার্যকর ব্যবহার নিশ্চিত করা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন এবং স্বাস্থ্যসম্মত রাখার নিশ্চয়তা বিধান করা, লাইব্রেরিতে শিক্ষার্থীদের নাগালের মধ্যে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ দলিলপত্র (১৫ খন্ড) রাখা ও পড়ার জন্যে উৎসাহিত করতে হবে এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়, শিক্ষা অধিদপ্তর ও শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক বিভিন্ন সময় জারিকৃত অফিস আদেশ, পরিপত্র ও প্রজ্ঞাপন সংরক্ষণ, অনুসরণ ও বাস্তবায়ন নিশ্চিত করতে হবে।
মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক প্রফেসর ডক্টর সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক স্বাক্ষরিত এই অফিস আদেশটি শিক্ষাবোর্ডের পত্রের সাথে সংযুক্ত করে দেয়া হয়েছে। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের এই অফিস আদেশের স্মারক নম্বর ৩৭.০২.০০০০.১০১.৯৯.০০১.১৯।
এসব বিষয়ে যশোর শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মাধব চন্দ্র রুদ্র বলেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে প্রশ্নব্যাংক সমৃদ্ধ করতে এ সংক্রান্ত পত্র দেয়া হয়েছে। একই সাথে প্রধান পরীক্ষক হতে ইচ্ছুকদের জন্যে বাধ্যতামূলক করা হয়েছে অনলাইন প্রশ্নব্যাংকে বিষয়ভিত্তিক পূর্ণাঙ্গ সেট প্রশ্নপত্র আপলোড করা।  



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft