শনিবার, ০৭ ডিসেম্বর, ২০১৯
জাতীয়
ছাত্রলীগে আগাম সম্মেলনের গুঞ্জন
কাগজ ডেস্ক :
Published : Monday, 9 September, 2019 at 7:34 PM
ছাত্রলীগে আগাম সম্মেলনের গুঞ্জনবঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া ঐতিহ্যবাহী ছাত্রসংগঠন ছাত্রলীগের শীর্ষ দুই নেতার বিতর্কিত কর্মকাণ্ড ও অযোগ্যতায় ক্ষুব্ধ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এমন খবরে সংগঠনটির নেতাকর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা ও তোলপাড় চলছে। ছাত্রলীগের দুবছর মেয়াদি বর্তমান কমিটির মেয়াদ শেষ হতে আরও ১১ মাস বাকি। এরইমধ্যে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে আগাম সম্মেলনের গুঞ্জন উঠেছে।
বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, গত শনিবার (৭ সেপ্টেম্বর) গণভবনে এক যৌথসভায় আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর সাম্প্রতিক কর্মকাণ্ডে বিরক্তি ও উদ্বেগ প্রকাশ করেন। এক পর্যায়ে তিনি ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটি ভেঙে দেওয়ারও নির্দেশ দেন। এসময় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার জন্য গণভবনে গিয়ে অপেক্ষা করছিলেন। তবে প্রধানমন্ত্রী তাদের সঙ্গে দেখা না করায় আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ নেতাদের পরামর্শে তারা সেখান থেকে বাড়ি ফিরে যান।
আওয়ামী লীগের একাধিক সূত্র জানায়, ওই সভায় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সম্পর্কে নানা অভিযোগ তোলেন উপস্থিত নেতারা। অভিযোগের মধ্যে রয়েছে- বিতর্কিতদের কেন্দ্রীয় কমিটিতে জায়গা দেওয়া, বিবাহিত ও জামায়াত-বিএনপি সংশ্লিষ্টদের পদায়ন করা, দুপুরের আগে ঘুম থেকে না ওঠা, অনৈতিক আর্থিক লেনদেন করা, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মেলনে গিয়ে সকাল ১১টা থেকে বিকাল তিনটা পর্যন্ত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের অপেক্ষা করা, সম্মেলনের দুই মাস পেরিয়ে যাওয়ার পরও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ও ইডেন কলেজে কমিটি দিতে না পারা ইত্যাদি।
এসব খবর ওইদিন রাতেই দেশের বিভিন্ন শীর্ষস্থানীয় অনলাইন পত্রিকায় প্রকাশ হয়। পত্রিকাগুলোতেও খবরটি গুরুত্বের সঙ্গে ছাপা হয়। এ খবরে ছাত্রলীগের বর্তামান নেতৃত্বের পক্ষে -বিপক্ষে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি হয়। অনেকেই সংগঠনের বিতর্কিত দুই নেতাকে বাদ দিয়ে নতুন করে কমিটি ঘোষণার দাবি জানান। রোববার দিনভর এ নিয়ে আলোচনা অব্যাহত ছিল। পরে অবশ্য আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের জানান, মনোনয়ন বোর্ডের বৈঠকে ছাত্রলীগ নিয়ে আলোচনা হয়েছে। ছাত্রলীগের কমিটি ভেঙে দেওয়া নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নির্দিষ্ট করে কিছু বলেননি। তবে কিছু বিষয়ে তার ক্ষোভ থাকতেই পারে। তিনি বলেন, যতক্ষণ পর্যন্ত কমিটি ভাঙার বিষয়টি সিদ্ধান্ত আকারে না আসছে, বাস্তবায়ন প্রক্রিয়ায় না যাচ্ছে, ততক্ষণ পর্যন্ত এর সত্যতা তিনি স্বীকার করবেন না। এসময় তিনি ছাত্রলীগকে সতর্ক ও সাবধান হতে এবং ভালো খবরের শিরোনাম হয়ে সুনামের ধারায় ফিরে আসতে বলেন।
এ প্রসঙ্গে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ডাকসুর জিএস গোলাম রাব্বানী অবশ্য গতকাল রোববার সাংবাদিকদের বলেছেন, সন্তান ভুল করলে মা অসন্তোষ প্রকাশ করতেই পারেন। সেটাই প্রধানমন্ত্রী করেছেন। আর ছাত্রলীগের কমিটি ভেঙে দেওয়ার কথাও প্রধানমন্ত্রী রাগের মাথায়ই বলেছেন।
ছাত্রলীগের ২৯তম জাতীয় সম্মেলনের আড়াই মাস পর গত বছরের ৩১ জুলাই রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনকে সভাপতি ও গোলাম রাব্বানীকে সাধারণ সম্পাদক করে দুই বছর মেয়াদী আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। এরপর দীর্ঘ ১ বছর পর গত ১৩ মে ৩০১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়। পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা হওয়ার পর পরই ছাত্রলীগে নতুন এক সংকট দেখা দেয়। কমিটিতে অনেক ত্যাগী নেতাদের বঞ্চিত করে অছাত্র, বিবাহিত, মাদকসেবী, জামায়াত-শিবির ও একাধিক মামলার আসামিদের পদ দেওয়ার অভিযোগ তুলে আন্দোলনে নামেন পদবঞ্চিত ও কাঙ্ক্ষিত পদ না পাওয়া নেতাকর্মীরা। এ নিয়ে মধুর ক্যান্টিনসহ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের দুপক্ষের মধ্যে বেশকয়েকবার মারামারির ঘটনা ঘটে। পরে আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা বিষয়টি সমাধানের আশ্বাস দিলে আন্দোলন স্থগিত করা হয়। তবে এখন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব নিয়ে খোদ প্রধানমন্ত্রী অসন্তোষ প্রকাশের খবরে নতুন করে আন্দোলনের দানা বাধতে শুরু করেছে। ছাত্রলীগের দু'বছর মেয়াদি কেন্দ্রীয় কমিটির মেয়াদ শেষ হবে আগামী বছরের ৩০ জুলাই বা আরও প্রায় ১১ মাস পরে। এরইমধ্যে সংগঠনের বর্তমান নেতৃত্বের বিরুদ্ধে উত্থাপিত নানা অভিযোগসহ উদ্ভূত পরিস্থিতিতে আগাম সম্মেলনের দাবি উঠেছে সংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্য থেকেই।
এ বিষয়ে ছাত্রলীগের গত কমিটির কর্মসূচি ও পরিকল্পনা সম্পাদক এবং নতুন কমিটিতে পদবঞ্চিতদের মুখপাত্র রাকিব হোসেন বলেন, ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সংগঠনকে কলঙ্কিত করেছেন। ছাত্রলীগে থাকার যোগ্যতা তাদের নেই। অচিরেই তাদের অপসারণ দাবি করছি। পাশাপাশি আগাম সম্মেলনেরও দাবি জানাচ্ছি- যেখানে ত্যাগী কর্মীদের মূল্যায়ন করা হবে।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft