বুধবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৯
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
ঐতিহ্য হারাতে যাচ্ছে যশোর
সংরক্ষণের দাবি বিশিষ্টজনদের
এম. আইউব :
Published : Thursday, 19 September, 2019 at 6:10 AM
ঐতিহ্য হারাতে যাচ্ছে যশোরযশোর তার ঐতিহ্য হারাতে বসেছে । শত বছরের এসব ঐতিহ্য এক প্রকার ধ্বংসের পথে। বিশেষ করে তিনটি ভবনের মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে থাকা রীতিমত ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে। পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে আছে দু’টি ভবন। আর একটি ভেঙে ফেলার চেষ্টায় আছে কর্তৃপক্ষ। এসব নিয়ে ইতোমধ্যে মুখ খুলতে শুরু করেছেন শহরের বিশিষ্টজনেরা। তারা প্রাচীন এসব ঐতিহ্য রক্ষার দাবি তুলেছেন। কিন্তু এখনও পর্যন্ত কোনো রকম উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি।
যশোরের প্রথম কালেক্টরেট ভবন হচ্ছে জেলা রেজিস্ট্রি অফিসের পরিত্যক্ত ভবন। এই ভবনটি থেকে আধুনিক প্রশাসনিক ব্যবস্থা পরিচালনা করা হতো। পরবর্তীতে স্থান সংকুলান না হওয়ায় ভবনটি জেলা রেজিস্ট্রি অফিসের জন্যে ছেড়ে দিয়ে এখনকার ভবনে ওঠেন কর্মকর্তারা। বর্তমানে যশোরের প্রথম এই কালেক্টরেট ভবনটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। বাঁশ দিয়ে ঠেকনা লাগানো হয়েছে ছাদে। খসে পড়ছে পলেস্তারা। সাথে ছাদও। ছাদে বিভিন্ন ধরনের গাছ জন্মেছে। গাছের শিকড়ের কারণে নতুন নতুন ফাটলের সৃষ্টি হচ্ছে। ঐতিহ্যবাহী ভবন রক্ষায় কারো কোনো মাথাব্যথা নেই। যে কারণে দিন দিন ধ্বংসের দিকে যাচ্ছে।
দ্বিতীয়টি হচ্ছে জেলা পরিষদ ভবন। স্থানীয় প্রশাসনিক ব্যবস্থা পরিচালনার জন্যে ১৯১৩ সালে এই ভবনটি নির্মিত হয়। এই ভবনটি অপসারণের উদ্যোগ নেয় জেলা পরিষদ কর্তৃপক্ষ। আর এ কারণেই প্রতিবাদমুখর হয়ে ওঠেন শহরের সচেতন নাগরিকরা। গঠিত হয় যশোরের ঐতিহ্য রক্ষা সংগ্রাম কমিটি। জেলা পরিষদ ভবন যাতে অপসারণ করা না হয় সে লক্ষ্যে এই কমিটি বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে। গত ৩০ জানুয়ারি জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে স্থানীয় ঐতিহ্য হারাতে যাচ্ছে যশোরসরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, ‘যে জাতির ইতিহাস নেই সে জাতি নিঃস্ব। যশোর জেলাবাসী সমৃদ্ধ ইতিহাস ঐতিহ্যের অধিকারী। কিন্তু এসব ইতিহাস ঐতিহ্যের স্মারকগুলো রক্ষার দায়িত্বে যারা তাদের, অজ্ঞতা, অদূরদর্শিতা ও স্বার্থপ্রীতির কারণে একে একে ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। ঐতিহ্য রক্ষায় ব্রিটিশরা সচেতন বলেই তারা আজ পৃথিবীতে অগ্রসর জাতি হিসেবে পরিচিত। জেলা পরিষদ ভবনটি সংস্কারের প্রয়োজন হতে পারে। এ ক্ষেত্রে মূল নকশা অপরিবর্তিত রেখে সংস্কার করে ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে যশোরের ইতিহাস জানার সুযোগ দেয়া  উচিত।’ জেলা পরিষদ ভবন রক্ষার প্রথম দাবি জানান যশোরের ১০ জন বিশিষ্ট সাংবাদিক।ঐতিহ্য হারাতে যাচ্ছে যশোর
তাদের বিবৃতির পর যশোরের ইতিহাস-ঐতিহ্য রক্ষার জন্য একটি কমিটি গঠন নকরা হয়। যার আহবায়ক হন প্রবীণ সাংবাদিক ও মুক্তিযোদ্ধা রুকুনউদ্দেলাহ, সদস্য সচিব করা হয় আইনজীবী মাহমুদ হাসান বুলুকে। তাদের আন্দোলনের মুখে ভবনটি আপাতত ভাঙ্গা হচ্ছে না।
ধ্বংসের পথে যশোরের জেলা জজ ভবনটিও। এই ভবনের ছাদ চুইয়ে পানি পড়ছে। খসে পড়ছে পলেস্তারাও। পরিত্যক্ত অবস্থায় ভবনটি ফেলে রাখা হয়েছে। দিন দিন ধ্বংসের দিকে যাচ্ছে ঐতিহ্যবাহী কালের সাক্ষী এ ভবনটি। একজন প্রকৌশলী বলেন, ‘ছাদ ফেলে দিয়ে এবং দেয়ালের পলেস্তারা খসিয়ে নতুন করে করতে পারলে জেলা জজ ভবনটি আরও একশ’ বছরে কিছুই হবে না।’
এসব বিষয়ে যশোর ঐহিত্য রক্ষা সংগ্রাম কমিটির আহবায়ক বিশিষ্ট সাংবাদিক রুকুনউদ্দৌলাহ বলেন, ভবনগুলো যশোরের ঐতিহ্য। নতুন প্রজন্মের ইতিহাস জানার স্বার্থে এগুলো রক্ষা করা জরুরি। অথচ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অদূরদর্শিতার কারণে এসব ভবন রক্ষার পরিবর্তে ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। যা কারোরই কাম্য না। শত বছরের এসব ঐতিহ্য রক্ষা করতে সরকারকে জরুরি ভিত্তিতে পদক্ষেপ নিতে হবে।
সংগ্রাম কমিটির সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট মাহমুদ হাসান বুলু বলেন, ভবনগুলো যশোরের ঐতিহ্য। আমরা ঐতিহ্যবাহী ভবনগুলো রক্ষার দাবি জানাচ্ছি। ইতিহাসের অংশ এসব ভবন রক্ষায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের এখনই উদ্যোগ নিতে হবে।   



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft