বুধবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
অর্থকড়ি
আরও বাড়তে পারে পেঁয়াজের দাম
কাগজ সংবাদ :
Published : Sunday, 22 September, 2019 at 10:34 PM
আরও বাড়তে পারে পেঁয়াজের দামযশোরের বাজারে পেঁয়াজের দাম না কমায় বিপাকে ক্রেতারা। এই পরিস্থিতিতে দ্রুত পেঁয়াজের দাম কমবে বলেও আশার বাণী শোনা যাচ্ছে না। বরং ব্যবসায়ীদের দাবি, দাম আরও বাড়তে পারে।  
শনিবার যশোরের বড় বাজার ঘুরে দেখা গেছে, প্রতিকেজি দেশি জাতের পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ৮০ টাকায়, আর ভারতীয় পেঁয়াজ তুলনায় বাজারে কম থাকলেও তা বিক্রি হয়েছে প্রতি কেজি ৭০ টাকায়। তবে ১০ দিন আগেও বাজারে পেঁয়াজের দাম স্বাভাবিক ছিল। তখন ৪০ থেকে ৪৫ টাকা প্রতিকেজি পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছিল। তা হঠাৎ বেড়ে দাড়িয়েছে ৮০ টাকায়।
আড়ৎদাররা জানান, ভারত সরকার পেঁয়াজের উপর প্রতি কেজিতে ১৫ টাকা হারে শুল্ক বসিয়েছে। ভারতে সাম্প্রতিক বন্যায় ক্ষেতের পেঁয়াজ নষ্ট হয়ে গেছে। সে কারণে ভারতেই পেঁয়াজের চাহিদা অনুযায়ী সরবরাহ কমে যাচ্ছে। এতে রপ্তানি কমাতে পেঁয়াজের উপর শুল্ক বাড়িয়ে দিয়েছে ভারত সরকার। যার ফলে বাংলাদেশে পেঁয়াজ সংকট দেখা দিয়েছে।
বাজার ঘুরে চোখে পড়েছে, যে ক্রেতা প্রতিদিন ৫০০ গ্রাম থেকে ১ কেজি পেঁয়াজ কেনেন,  তিনি এখন ২৫০ গ্রাম পেঁয়াজ কিনছেন। যা নিয়ে যতেষ্ট ঝামেলাও হচ্ছে বলে জানান ক্রেতারা।
আহসান সিদ্দিক সকাল থেকে প্রতিদিন বিকেল পাঁচটা অবধি রিকশা চালান। বিকেলে দিনের কেনাকাটা করে বাড়ি ফেরেন। শনিবারও তিনি এসেছিলেন বড় বাজারের। আলু, বেগুন আর কাঁচা তরকারি কেনা শেষে পেঁয়াজের দাম শুনে চমকে উঠেন। তিনি বলেন, ‘এখনও পেঁয়াজের দাম কমেনি। এভাবে দাম বাড়তে থাকলে পেঁয়াজ খাওয়া বন্ধ করে দিতে হবে।’
বড় বাজারের গোবিন্দ ভান্ডারের গোবিন্দ চন্দ্র সাহা বলেন, নতুন পেঁয়াজ না ওঠা পর্যন্ত পেঁয়াজের দাম কমবে না। তবে আরও বাড়তে পারে বলে তিনি মন্তব্য করেন।
বাজারে পেঁয়াজ সরবরাহের ব্যাপারে তিনি বলেন, ফরিদপুর এলাকায় পেঁয়াজ সংরক্ষণ করা হয় চাঙ্গে (মাচা)। শশ মণ পেঁয়াজ ওই অঞ্চলের কৃষকরা চাঙ্গে সংরক্ষণ করে। কিন্তু এ বছর বৃষ্টি বেশি হওয়ায় সংরক্ষিত পেঁয়াজ নষ্ট হয়ে গেছে। যার কারণে এখন বাজারে দেশি পেঁয়াজের সরবরাহ কম আর যা পাওয়া যাচ্ছে তাতে পচা পেঁয়াজ বেশি।
তিনি জানান, শনিবার তার আড়তে পাইকারি দরে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ৭০ টাকায় আর ভারতীয় পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে প্রতি কেজি ৫৮ টাকায়।
মদিনা ভান্ডারের স্বত্ত্বাধিকারী শেখ জিয়া বলেন, ভারতে এখন পেঁয়াজ সংকটের দিকে। এখনও এক মাস লাগবে ভারতের দক্ষিণাঞ্চলের পেঁয়াজ বাজারে উঠতে। ততদিন পর্যন্ত দাম কমবে না বলে জানান তিনি। তবে দাম আরও বাড়তে পারে। কারণ হিসেবে বলেন, সামনে দুর্গাপূজার বন্ধ পড়বে প্রায় ৮ থেকে ১০দিন। ওই সময়ে ভারতের কোন পেঁয়াজ বাংলাদেশে ঢুকবে না, ফলে সংকট আরও বাড়বে।
শেখ জিয়া আরও বলেন, তিনি বিভিন্ন আড়ৎদারের মাধ্যমে জানতে পেরেছেন, সরকার ইতোমধ্যে তুরষ্ক, মায়ানমারসহ কয়েকটি দেশের সাথে চুক্তি করেছে পেঁয়াজ আমদানির জন্যে। যা দেশে পৌঁছাতে আরও ২০-২৫দিন সময় লেগে যাবে।
তিনি বলেন, গেল বছর এ দেশের কৃষকরা পেঁয়াজ বিক্রি করতে গিয়ে ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কারণ বাজারে অনেকটা পানির দরে পেঁয়াজ বিক্রি করতে হয়েছে। যার ফলে এ বছর পেঁয়াজ চাষ থেকে কিছুটা মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে তারা। যার জন্যে এ বছর বাজারে দেশি পেঁয়াজের আমদানি কম বলে মন্তব্য তার।         




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft