শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
দূর্ঘটনা ও প্রাণহানির আশঙ্কা এলাকাবাসীর শ্রীপুরের গোয়ালপাড়া খালের সেতু ঝুঁকিপূর্ণ
আশরাফ হোসেন পল্টু, শ্রীপুর (মাগুরা) প্রতিনিধি :
Published : Sunday, 6 October, 2019 at 6:25 AM
দূর্ঘটনা ও প্রাণহানির আশঙ্কা এলাকাবাসীর শ্রীপুরের গোয়ালপাড়া খালের সেতু ঝুঁকিপূর্ণমাগুরার শ্র্র্রীপুর-লাঙ্গলবাঁধ সড়কের কুমার নদ সংযোগ জিকে সেচ প্রকল্পের গোয়ালপাড়া খালের ওভার ট্যাংকি সেতুটি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। এখানে যে কোন মূহুর্তে বড় ধরনের দূর্ঘটনার আশঙ্কা করছে এলাকাবাসী। ষাট দশকের শুরুর দিকে জি, কে সেচ প্রকল্প কৃষকের সেচ সুবিধা জোরদার করার জন্য শ্রীপুর সদর ইউনিয়নের গোয়ালপাড়া খাল নামকস্থানে এস-১১/ কে খালের ৮ নং ট্যাংকি ওভার সেতুটি নির্মান করা হয়। এলাকার প্রবীণ ব্যক্তিরা জানান, সেতুটি যখন নির্মাণ করা হয়েছিল, তখন একমাত্র জিকে সেচ প্রকল্পের নিজস্ব যানবাহন চলাচল ও তাদের সেচ সুবিধা বাস্তবায়ন করার জন্যই এটি নির্মান করা হয়েছিল। জিকে প্রজেক্ট তখন ভাবেনি, ভবিষ্যতে এ সেতুটি বা সড়কটি এতো গুরুত্বপূর্ণ হবে বা ভারি যানবাহন চলাচল করবে। যে কারনে সেতুটি তখন তেমন সময়োপযোগি টেকসই করে নির্মাণ করা হয়নি। কিন্তু বর্তমানে শ্র্র্রীপুর-লাঙ্গলবাঁধ সড়কটি অত্যন্ত জনগুরুত্বপূর্ণ ব্যস্ততম সড়ক হওয়ায় প্রতিদিন অসংখ্য পণ্যবাহী হেভি লোড ট্রাক, পিক-আপ, কাভার্ড ভ্যান, তেলবাহী লরি, যাত্রীবাহী বাস, টেম্পুসহ যানবাহন এই সড়ক দিয়ে যাতায়াত করছে। সেতুটি দীর্ঘদিনের পুরাতন হওয়ায় এর উপর দিয়ে ভারি যানবাহন চলার কারনেই মুলতঃ সেতুর বিভিন্ন স্থানে ফাটল দেখা দিয়েছে। বর্তমানে সেতুটির কিছু কিছু অংশ ভেঙ্গে পড়তে শুরু করেছে। সম্প্রতি পাথর বোঝাই কয়েকটি হেভি লোড  ট্রাক সেতুটি ওপার দিয়ে পার হওয়ায় এর ভারে  সেতুর উপরিভাগের মাঝখানের একটি অংশ ভেঙে বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে এবং সেতুটিতে লম্বা-লম্বিভাবে ফাটল দেখা দিয়েছে। অনেকদিন ধরে সেতুর রেলিং ভেঙ্গে ঝুলে রয়েছে এবং প্রবল পানির স্্েরাতের কারনে  সেতুর তলদেশের পাকা পাটাতন ভেঙে চুর্ণ-বিচূর্ণ হয়ে নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। এক কথায় সেতুটি বর্তমানে চরম ঝুকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে এবং যে কোন মুহুর্তে বড় ধরণের দূর্ঘটনা ও প্রাণহানীর আশংকা করছে এলাকাবাসী।
এলাকাবাসী জানায়, সেতুটি ক্ষতিগ্রস্থ হলে মাগুরা জেলার সাথে ঝিনাইদহ, কুষ্টিয়া ও রাজবাড়ী জেলার যোগাযোগ ব্যবস্থা অনেকাংশে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে। তাছাড়া কৃষি কাজের পানির সেচ ব্যবস্থা সম্পূর্ণরুপে অচল হয়ে পড়বে। তখন এলাকার মানুষের দুঃখ-দুর্দশা ও দূর্ভোগের সীমা থাকবে না। সেতুটি ক্ষতিগ্রস্থ হবার সংবাদ পেয়ে মাগুরার পানি উন্নয়ন বোর্ড তড়িঘড়ি করে সম্প্রতি ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করেন এবং সেতু এলাকায় সতর্কিকরণ নোটিশবোর্ড টাঙিয়ে ভারি যানবাহন চলাচল নিষিদ্ধ ঘোষণা করেন। কিন্ত আইনের কোন তোয়াক্কা না করে ভারি যানবাহন সেতুর উপর দিয়ে অবাধে চলাচল করছে। এদিকে মিডিয়াকর্মীদের ফোন পেয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টিগোচর হওয়ায় শুক্রবার থেকে তড়িঘড়ি করে সেতুর ক্ষতিগ্রস্থ স্থানে পুটিং ও রেলিং সংস্কারের কাজ শুরু করেছে।
এ বিষয়ে মাগুরা জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক সাংগঠনিক কমান্ডার ও সেতুর পার্শ্ববর্তী হরিন্দী গ্রামের মিঞা শাহাদাত হোসেন বলেন, জিকে প্রজেক্টের খাল গোয়ালপাড়ার এই পুরাতন সেতুটি যোগাযোগের ক্ষেত্রে এবং কৃষিসেচ ব্যবস্থায় দীর্ঘদিন ধরে ভুমিকা পালন করে আসছে। বর্তমানে সেতুটির যে ভগ্নদশা তাতে যে কোন সময় ভেঙ্গে পড়ে বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। এ কারণে সেতুটি যতদ্রুত সম্ভব সংস্কার করার প্রয়োজন বলে মনে করি ।  
শ্রীপুর সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও শ্রীপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মসিয়ার রহমান বলেন, শ্রীপুর-লাঙ্গলবাঁধ সড়কটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এ সড়কের গোয়ালপাড়ার খালের সংযোগ সেতুটির দূর্দশার বিষয়টি এলাকার লোকজন আমাকে বলেছে এবং আমি নিজেও সেতুটির সমস্যা দেখেছি। সেতুটি বর্তমানে খুবই ঝুকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। ভারি যানবাহন চলাচল বন্ধ করা না হলে যে কোন সময় দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা রয়েছে। তাই দ্রুত সংস্কারের বিষয়ে মাগুরা-১ আসনের সংসদ সদস্য মহোদয়কে অবগত করা হয়েছে। তাঁর নির্দেশনা পেলে সাধ্যমত কাজ করা হবে ।
এ ব্যাপারে মাগুরা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সারোয়ার জাহান বিষয়টির সত্যতা স্বীকার করে বলেন, পুরাতন এই সেতুর উপর দিয়ে কয়েকদিন আগে ১০ চাকার হেভি লোড ট্রাক যাওয়ার কারনে সেতুটি বেশ ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। তবে ক্ষতির বিষয়টি জানার পর তিনি তৎক্ষনাৎ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং সেতুটি ঝুকিপূর্ণ ঘোষণা করে সেখানে সতর্কিকরণ নোটিশ টাঙিয়ে দিয়েছেন। তাছাড়া এ সেতু দিয়ে ভারি যানবাহন চলাচলে নিষেজ্ঞাও আরোপ করা হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ সেতু হিসেবে সনাক্ত করে উর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে বিষয়টি অবগতও করা হয়েছে। বর্তমান অবস্থায় সংস্কারের বিষয়ে কোন চিন্তা-ভাবনা না থাকলেও আগামী বাজেটে শুষ্ক মৌসূমে যতটুকু সম্ভব সংস্কার কাজ করা হবে বলে তিনি জানান ।
মাগুরা-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট সাইফুজ্জামান শিখর এ বিষয়ে বলেন, এলাকাবাসী ক্ষতিগ্রস্ত সেতুর বিষয়টি আমাকে অবগত করেছেন। যতদ্রুত সম্ভব গুরুত্বপূর্ণ এ সেতুটি সংস্কারের বিষয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।  




আরও খবর
সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft