মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর, ২০১৯
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
লোহাগড়ায় পুলিশ হেফাজতে যুবককে হাতকড়া পরিয়ে চোখ বেঁধে নির্যাতন
লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি :
Published : Friday, 8 November, 2019 at 7:55 PM
লোহাগড়ায় পুলিশ হেফাজতে যুবককে হাতকড়া পরিয়ে চোখ বেঁধে নির্যাতননড়াইলের লোহাগড়া থানা হেফাজতে শিহাব মল্লিক (২৮) নামের এক যুবককে চোখ বাঁধা ও পেছনে হাতকড়া পরিয়ে অমানুষিক নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। নির্যাতনের শিকার শিহাব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তিনি লোহাগড়ার গোপীনাথপুর গ্রামের এনামুল মল্লিকের ছেলে।
শিহাব মল্লিক সাংবাদিকদের বলেন, গত শনিবার সকালে আর্থিক ও পারিবারিক বিরোধে ফুফাতো ভাই মনিরুল ও খাইরুল মল্লিক তার পিতা এনামুল মল্লিকের ওপর চড়াও হয়। বিষয়টি নিয়ে তাদের বড় ভাই বদরুল মল্লিকের সাথে তার বাকবিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে শিহাব বদরুলকে মারধর করেন। এ ঘটনায় বদরুলে ছোট ভাই মনিরুল মল্লিক শিহাব ও তার মা বিউটি বেগমকে আসামি করে লোহাগড়া থানায় মামলা করেন। মামলার তদন্তভার পান এসআই নুরুস সালাম সিদ্দিক। তিনি পরদিন রোববার সন্ধ্যা ছয়টার দিকে শিহাবকে গ্রেফতার করে থানা হেফাজতে রাখেন। খবর পেয়ে তার পরিবারের লোকজন ছুটে যান থানায়। পরিবারের লোকজনকে দেখা করা ও রাতের খাবার দিতে দেননি মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা।
শিহাব বলেন, গত রোববার রাত সাড়ে ১১টা ও সোমবার সকালে এসআই সিদ্দিক তাকে পেছনে হাতকড়া পরিয়ে চোখ বেঁধে নির্দয়ভাবে নির্যাতন করেছেন। নির্যাতনের কারণে তিনি কয়েকবার জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। শিহাবকে কিছুটা সুস্থ্য করে সোমবার সকালে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করেন। আদালত চত্ত্বরে তার পরিবারের কাছে পুলিশ হেফাজতে নির্যাতনের রোমহর্ষক বর্ণনা দেয় শিহাব। বৃহস্পতিবার শিহাব জামিনে মুক্ত হলে সন্ধ্যায় তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে পরিবার।
হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক কামরুল ইসলাম বলেন, রোগীর দুই হাঁটুর ওপর এবং কোমরের নিচের অংশে অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।  
বাদীর ভাই খায়রুল মল্লিক এলাকায় আদম পাচারকারী হিসেবে পরিচিত। তিনি কয়েক’শ যুবককে বিদেশ পাঠানোর নাম করে টাকা নিয়ে পথে বসিয়েছেন। শিহাব নিজেও আদম পাচারের শিকার। এ নিয়েই তার সাথে বিরোধ।   
এসআই নুরুস সালাম সিদ্দিকের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি অস্বীকার করে বিষয়টি এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন।
লোহাগড়া থানার ওসি মোকাররম হোসেন বলেন, পুলিশ হেফাজতে কোনো আসামিকে পারপিট করা হয়নি। তবুও বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft