শনিবার, ০৭ ডিসেম্বর, ২০১৯
আক্কেল চাচার চিঠি (আঞ্চলিক ভাষায় লেখা)
ফ্যাশন কত্তি যাইয়ে ভাঙ্গলো ঠ্যাঙ!
Published : Thursday, 28 November, 2019 at 6:51 AM
ফ্যাশন কত্তি যাইয়ে ভাঙ্গলো ঠ্যাঙ!আনকা ফ্যাশান কত্তি যাইয়ে ঠ্যাংয়ে বাড়ি খাইয়ে ঠ্যাং ভাইঙ্গে খুড়া হইয়ে হাসপাতালে শুইয়ে কুতরাচ্চেন এক সোন্দর্যপ্রিয় নারী।
জাড়ের সুমায় হাউস কইরে সাপের মতো দেকতি এক জুড়া মুজা কিইনে আনিলেন বাজারেত্তে। সেই মুজা হাটুর দিকি সাপের ল্যাজ আর পা’র আঙুলির দিকি সাপের মাতার মতো। পা’র বুড়ো আঙুল সাপের এক চোক আর কেড়ো আঙুলি আরাক চোক। পুরো পা’র পাতারে মনে হবে সাপের ফনা। আর হটাস দেকলি মুজা পড়া ঠ্যাংরে মনে হবে জ্যান্ত সাপ। ফ্যাশন আলা বিটিডা সেই মুজা কিনে আইনে পরে মনের সুকি ফটক তুইলে ফেসবুকি ছাড়িলো। অনেক বন্দু বান্দবরা সেই ছবিতি লাইক আর কমেন্টও করিল। সারাদিন মজা কইরে রাত্তিরি খাইয়ে দাইয়ে শুইয়ে পড়িল ডুম লাইট জালায়ে। মুজাডা তার এতো পচন্দ হইলো যে সিডা পইরেই শুইয়ে পড়িল। সারা গা লেপ খ্যাতায় ঢ্যাকা থাকলিও পা’ দুডো ছিলো খ্যাতার বাইরি। বিটিডার বর কাজে কামেত্তে বাড়ি ফিরে শুয়ার ঘরে ঢুকতিই ঘইটে যায় ফ্যাসাদ। শুয়ার ঘরে টিম টিম কইরে ডুম লাইটির আলো জলতিলো। সেই কুমা আলোয় হটাস খাটের দিকি নজর যাতিই বউ’র সাপের মুজা পরা ঠ্যাংরে জ্যান্ত সাপ মনে কইরে ভয়তি আকাটা মাইরে যায় বরডা। আশপাশে তলাশ কইরে চোকি পড়ে ঘরের কুনায় রাকা এট্টা ব্যাট। গুটিগুটি পায় ঘরের কুনায় যাইয়ে ব্যাট উচু কইরে গা’র বল দিয়ে মাইরেচে ইরাম এক বাড়ি তাতে বউ’র ঠ্যাং ভাঙ্গা সারা। বউ কান্দে উটায় আর মুজার মদ্দি পার আঙ্গুল ফাইটে রক্তারক্তি হইয়ে যাওয়া থতমত খাইয়ে যায় বরডা। জকার শুইনে আশপাশতে লোকজন দোড়োয় আইসে ঘরের বড় আলো জাইলে বিষয়ডা দেইকে হাসপে কা কানবে তাই নিয়ে সব হতভম্ব হইয়ে পড়েচে। পড়ে হাতাসিঙ কইরে তারে হাসপাতালে ভত্তি করা হয়েচে।
ঘটনাডা সুশ্যাল মিডিয়ায় ছড়ায় পড়লি সব হাইসে কুটি কুটি হয়েচে। পরে অবশ্যি অনেকে দুক্কু পোকাশ কইরেচে। ঘটনাডা সুশ্যাল মিডিয়ায় শিয়ার হতেই নানা রকম পোতিক্রিয়া আসে। ছবিডা স্যুশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট কইরে স্যানে লিকা হয়, বিটিরা সাবদান।  হাউস কইরে কেউ যেন আর পশুর চামড়ার রঙের কোন পুশাক পরবেন না।
ইতি-
অভাগা আক্কেল চাচা
০১৭২৮৮৭১০০৩



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft