বৃহস্পতিবার, ০৯ জুলাই, ২০২০
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
খোকসা ইউএনওর আশ্বাসে ভাইরাল শিক্ষকদের বহিষ্কার আন্দোলন স্থগিত
কুষ্টিয়া প্রতিনিধি :
Published : Sunday, 23 February, 2020 at 7:51 PM
খোকসা ইউএনওর আশ্বাসে ভাইরাল শিক্ষকদের বহিষ্কার আন্দোলন স্থগিতকুষ্টিয়ার খোকসায় যৌন হয়রানিকাণ্ডে ভাইরাল হওয়া ২ শিক্ষকের বহিষ্কার আন্দোলন স্থগিত ঘোষণা করেছে শিক্ষার্থীরা।
রবিবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুরের দিকে খোকসা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মৌসুমী জেরীন কান্তার আশ্বাসে শিক্ষার্থীরা তাদের আন্দোলন স্থগিত করে।
এর আগে খোকসার জানিপুর সরকারি পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অভিযুক্তদের চাকরিতে বহাল রাখায় প্রতিবাদে সকালে বিদ্যালয়ের ছাত্ররা বিক্ষোভ মিছিল বের করে। পরে মিছিলটি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অফিসের সামনে গিয়ে মানববন্ধন করে। একপর্যায়ে অভিযুক্ত দুই শিক্ষকের অপসারণের দাবিতে আন্দোলনরত ছাত্রদের সঙ্গে বিদ্যালয়ের সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কথা বলেন। সবশেষে তার আশ্বাসে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন স্থগিত ঘোষণা করে।
আন্দোলনের পর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার নাজমূল হক দৈনিক অধিকারকে বলেন, ‘তারা ইচ্ছা করে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলে বিলম্ব করেনি। একদিকে এসএসসি পরীক্ষা চলছে অন্যদিকে অভিযোগকারী ও বিবাদীর লিখিত বক্তব্য, ছবি, অডিও ও ভিডিও পর্যালোচনা করতে একটু সময় লাগছে। তবে এক থেকে দুই দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করা হতে পারে।’
তদন্ত কমিটির অপর এক সদস্য ও জানিপুর সরকারি পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মহম্মদ আলী বলেন, ‘অভিযুক্ত শিক্ষকদের মৌখিকভাবে স্কুলের কাজ থেকে বিরত রাখা হয়েছে। এছাড়া চলতি এসএসসি পরীক্ষার কাজ থেকেও তাদের দূরে রাখা হয়েছে। তবে সবই করা হয়েছে মৌখিকভাবে।’
এ ব্যাপারে ইউএনও মৌসুমী জেরীন কান্তা দৈনিক অধিকারকে জানান, ‘অভিযুক্ত শিক্ষকদের বিদ্যালয়ে না আসার জন্য নোটিশ দিতে প্রধান শিক্ষককে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া শিক্ষকদের নৈতিক স্খলনের অভিযোগের ছবি, অডিও, ভিডিওসহ প্রচুর তথ্য পাওয়া গেছে। সোমবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) তদন্ত প্রতিবেদন জমার পর বিষয়টি মাধ্যমিক শিক্ষা প্রশাসনকে অবহিত করা হবে। তারা এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা নেবেন বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।
প্রসঙ্গত, গত ২১ ফেব্রুয়ারি বিদ্যালয়টির শিক্ষক বিদ্যুত কুমার দাসের সঙ্গে একই স্কুলের জনৈক শিক্ষিকার ফোনালাপ ও অন্তরঙ্গ ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। তখন থেকেই নিন্দা ও ক্ষোভ জানায় শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও সচেতন সমাজের প্রতিনিধিরা।
ফাঁস হওয়া ফোনালাপে ওই শিক্ষিকাকে বলতে শোনা যায়- ‘তোর (বিদ্যুত মাস্টার) বিচার হবে পদ্মার চরে। তোর বউ আর মিয়ার (কন্যা) কাছ থেকে বিদায় নিয়ে আসিস। তোর হাত-পা কেটে দিব। তাতে আমার ২-৩ লাখ টাকা যায়, যাক।’



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft