সোমবার, ২৫ মে, ২০২০
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
কন্ট্রোলরুমে উদ্বিগ্ন মানুষের ফোন, আসছে ভুল তথ্যও
করোনা প্রতিরোধে সর্বশেষ অবস্থা পর্যবেক্ষণ যৌথবাহিনীর
এম. আইউব
Published : Thursday, 26 March, 2020 at 6:12 AM

করোনা প্রতিরোধে সর্বশেষ অবস্থা পর্যবেক্ষণ যৌথবাহিনীর করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে যশোর জেলা প্রশাসনের খোলা কন্ট্রোলরুমে উদ্বিগ্ন মানুষের ফোন আসছে প্রতিদিন। বুধবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ৪০ টি ফোন আসে বলে কন্ট্রোলরুম সূত্রে জানা গেছে। উদ্বিগ্ন মানুষ জানতে চাচ্ছে সেনাবাহিনী মাঠে নামার কারণে সবকিছু বন্ধ হয়ে যাবে কিনা। আবার অনেক জায়গা থেকে হোমকোয়ারেন্টাইনে থাকা না থাকা নিয়েও ফোন আসছে কন্ট্রোলরুমে। তবে, দু’একটি ভুল তথ্যও আসছে বলে জানিয়েছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।
সিভিল প্রশাসনের নেতৃত্বে বুধবার মাঠে নেমে কাজ শুরু করেছে সেনাবাহিনী। যৌথ বাহিনী বিভিন্ন উপজেলা পর্যায়ে অভিযান চালিয়েছে। কোথায় হোমকোয়ারেন্টাইনের সর্বশেষ অবস্থা কী সেটি জানার চেষ্টা করেছেন এ বাহিনীর নেতৃত্বে থাকা কর্মকর্তারা।
বুধবার সন্ধ্যায় জেলা প্রশাসনের কন্ট্রোলরুমের দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শেখ মঈনুল ইসলাম মঈন জানান, আজ বৃহস্পতিবার থেকে তিনজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে যৌথবাহিনী শহরে টহল জোরদার করবে। একজন ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে সাতজনের টিম পালাক্রমে দায়িত্ব পালন করবে ২৪ ঘণ্টা কন্ট্রোলরুমে। ম্যাজিস্ট্রেট মঈন জানান, কন্ট্রোলরুমে প্রতিদিন অনেক ফোন আসছে। কারা হোমকোয়ারেন্টাইন মানছে না, কারা মানছে এসব তথ্য আসছে বিভিন্ন জায়গা থেকে। তবে, কিছু কিছু ভুল তথ্যও আসছে বলে জানিয়েছেন তিনি। বুধবার এমনই এক তথ্য আসে। ফোন করে জানানো হয় একব্যক্তি হোমকোয়ারেন্টাইন মানছে না। সাথে সাথে সেখানে ম্যাজিস্ট্রেট পাঠানো হয়। ম্যাজিস্ট্রেট গিয়ে ওই ফোনের কোনো সত্যতা পাননি। কেবল তাই না, যিনি হোমকোয়ারেন্টাইন মানছে না বলে কন্ট্রোলরুমে জানানো হয়েছিল সেই ব্যক্তি এখনও বাড়িতেই আসেনি। অনেকেই কন্ট্রোলরুমে ফোন করে জানতে চেয়েছেন সেনাবাহিনী নামার কারণে সকল দোকানপাট বন্ধ হয়ে যাবে কিনা। কন্ট্রোলরুম থেকে জানানো হয়েছে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দোকানপাট বন্ধ হবে না। মানুষের দৈনন্দিন প্রয়োজন মেটাতে সেগুলো খোলা থাকবে। তিনি বলেন, বিদেশফেরত দু’ তিনজন নিয়ম না মেনে বাইরে ঘোরাফেরা করছিল। যৌথবাহিনী বুধবার তাদের হোমকোয়ারেন্টাইনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।
সন্ধ্যায় এনডিসি প্রীতম সাহা জানান, বুধবার যৌথবাহিনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা সহকারী কমিশনারের (ভূমি) নেতৃত্বে বিভিন্ন জায়গায় হোমকোয়ারেন্টাইনে থাকার সর্বশেষ অবস্থা জেনেছে। একইসাথে কোনোভাবেই যাতে তারা ঘরের বাইরে না যায় সেবিষয়ে সতর্ক করা হয়েছে। আশপাশের লোকজনকে বলা হয়েছে হোমকোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তিরা কোনোভাবেই নিয়ম ভঙ্গ করলে সাথে সাথে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে অবহিত করতে। এনডিসি জানিয়েছেন, বুধবার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শফিউল আরিফের নেতৃত্বে পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন, সেনাবাহিনীর দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা লে. কর্নেল নেয়ামুল ইসলাম, সিভিলসার্জন শেখ আবু শাহীনসহ যৌথবাহিনী শহরের সর্বশেষ প্রস্তুতি পর্যবেক্ষণ করেন। এদিন, বকচরের বক্ষব্যাধী হাসপাতালে ৩১ টি শয্যা প্রস্তুত, মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা সংক্রান্ত আইসোলেশন ওয়ার্ডে একটি এক্স-রে ও একটি ইসিজি মেশিন চালু করা হয়েছে। নিশ্চিত করা হয়েছে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ইবনে সিনা হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিটের প্রস্তুতি। এদিন বেসরকারি বিভিন্ন হাসপাতাল-ক্লিনিকের অবস্থা যাচাই করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন এনডিসি প্রীতম সাহা।    
 



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft