বুধবার, ২৭ মে, ২০২০
সম্পাদকীয়
বাংলাদেশে করোনা আক্রান্ত বেড়েই চলেছে
Published : Wednesday, 29 April, 2020 at 12:08 PM
বাংলাদেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। বুধবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় আরও আটজনের মৃত্যুর মধ্য দিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৬৩ জন হয়েছে। দেশে এক দিনে আরও ৬৪১ জনের মধ্যে নতুন করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৭১০৩ জন। গত এক দিনে আরও ১১ জন সুস্থ হয়ে ওঠায় এ পর্যন্ত মোট ১৫০ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত বুলেটিনে যুক্ত হয়ে অতিরিক্ত মহাপরিচালক নাসিমা সুলতানা বুধবার দেশে করোনাভাইরাস পরিস্থিতির এই সবশেষ তথ্য তুলে ধরেন। এ তথ্যে আমাদের উদ্বেগ-উৎকন্ঠা বৃদ্ধি পাওয়াটা সঙ্গত।
এই উদ্বেগ-উৎকন্ঠার মাঝেই গভীর দুঃখের সাথে জানাতে হচ্ছে, শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে ভর্তির ঘণ্টাখানেকের মধ্যে মারা যাওয়া সাংবাদিক হুমায়ুন কবির খোকনের নমুনা পরীক্ষায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পাওয়া গেছে। পরীক্ষার প্রতিবেদন পাওয়ার পর হুমায়ুন কবির খোকনের স্ত্রী ও ছেলেমেয়েকে হোম আইসোলেশনে পাঠানো হয়েছে বলে রিজেন্ট হাসপাতালের জনসংযোগ কর্মকর্তা জানিয়েছেন। ঢাকার উত্তরার ওই বেসরকারি হাসপাতালে নেওয়ার পর মঙ্গলবার রাত সোয়া ১০টার দিকে মৃত্যু হয় দৈনিক সময়ের আলোর নগর সম্পাদক খোকনের। তীব্র শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ায় তখনই চিকিৎসকরা তার কোভিড-১৯ আক্রান্ত হওয়ার সন্দেহের কথা বলেছিলেন। হুমায়ুন কবির খোকনের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার মুরাদ নগরে। তার স্ত্রী, দুই মেয়ে, এক ছেলে রয়েছেন। তাদের হোম আইসোলেশনে থাকতে বলা হয়েছে। গত ১৫ দিন ধরে বাসা থেকেই অফিস করছিলেন খোকন। মঙ্গলবার সকালে তার শ্বাসকষ্ট ও মাথাব্যথা দেখা দেয়। এরপর শারীরিক অবস্থা অবনতির দিকে গেলে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির অ্যাম্বুলেন্সে করে রাত ৯টার দিকে তাকে রিজেন্ট হাসপাতালে নেওয়া হয়। হাসপাতালে ভর্তির সময়ই এই সাংবাদিকের অবস্থা আশঙ্কাজনক ছিল। ডাক্তাররা চেষ্টা করলেও ঘণ্টাখানেকের মধ্যে তার মৃত্যু হয়।
আরো একটি উদ্বেগজনক খবর হচ্ছে, ঢাকায় ১২ জন কারারক্ষীর নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খবর দিয়েছেন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার মাহবুবুর রহমান। যেসব হাসপাতালে বন্দিরা চিকিৎসাধীন থাকেন, সেখানে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে রক্ষীরা আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন তিনি। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার মাহবুবুর রহমান সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, নাজিম উদ্দিন রোডের পুরাতন কারাগারের কোয়ার্টারে প্রায় দুইশ কারারক্ষী থাকেন। অসুস্থ হয়ে বিভিন্ন হাসপাতালে কারাবন্দিরা ভর্তি হলে সেখানে পালা করে দায়িত্ব পালন করেন এখানকার কারারক্ষীরা। ডিউটি দিতে গিয়ে এই পর্যন্ত ১২ জন রক্ষী আক্রান্ত হয়েছেন নতুন এই ভাইরাসে। সবার অবস্থাই ভালো জানিয়ে জেলার মাহবুব বলেন, এখন পর্যন্ত কেরানীগঞ্জ কারাগারের কোনো বন্দি এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়নি।
এই ভাইরাসের বিস্তার রোধে সরকার ২৬ মার্চ থেকে ‘সাধারণ ছুটি’ ঘোষণা করে সবাইকে বাসায় থাকার আহ্বান জানিয়ে আসছে। কিন্তু বাসায় থাকা নিয়ে আমরা কতোটা সচেতনতার পরিচয় দিয়েছি তা সকলেই জানি। আমরা সবাই বেশী বেশী সচেতনতার পরিচয় না দিলে পরিস্থিতি আরো খারাপের দিকে যাবে বলে বিশেষজ্ঞরা বলছেন। এ পরিস্থিতিতে ঘরে থাকার কোনো বিকল্প এই মুহূর্তে আমাদের জানা নেই।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft