বুধবার, ২৭ মে, ২০২০
অর্থকড়ি
চরম অনিশ্চিয়তায় রাজশাহীর আম চাষিরা
রাজশাহী ব্যুরো :
Published : Friday, 15 May, 2020 at 10:51 AM
চরম অনিশ্চিয়তায় রাজশাহীর আম চাষিরাকৃষি বিভাগের তথ্য মতে, এবার রাজশাহী জেলায় ১৭ হাজার ৫৭৩ হেক্টর জমিতে আমের বাগান রয়েছে। সেখান থেকে উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২ লাখ ১০ হাজার মেট্রিক টন। তবে এবার এই লক্ষ্যমাত্রার অর্ধেকও পূরণ হবে না বলে মনে করছেন চাষিরা। তাদের দাবি এবার শুরুতেই আবহাওয়া ছিল বৈরী। এরপর আমের অফ সিজন। দুইয়ে মিলে এবার আমের ফলন গত কয়েক বছরের চেয়ে কম হবে।
প্রশাসনের বেধে দেওয়া সময় অনুযায়ী আজ ১৫ মে থেকে রাজশাহীতে আম পাড়ার দিন থাকলেও আরও কয়েকদিন সময় লাগবে বাজারে আম আসতে।
এদিকে আমের ফলন যাই হোক না কেন, এবার বাজার নিয়ে রয়েছে চরম অনিশ্চিয়তা। বিশেষ করে করোনা আতঙ্কের কারণে এখনো পাইকারী কোনো ব্যপারী নামেননি আমের বাগান কিনতে। এতে করে যেসব কৃষক বা চাষি বছরজুড়ে আমের দিকে তাকিয়ে থাকেন, তারা রয়েছেন চরম শঙ্কায়। এবারও আমের বাজার কম হলে কৃষকদের মাথায় হাত পড়বে বলেও দাবি করেছেন তাঁরা। যাদের অনেকেই রয়েছে বাগান লিজ নিয়ে আমের উৎপাদন করে থাকেন।
অন্যদিকে রাজশাহীতে আজ ১৫ মে থেকে আম পাড়ার সময় বেঁধে দিলেও আরও কয়েকদিন লাগবে বাজারে আম আসতে। কারণ এবার আম এখনো সেভাবে পোক্ত হয়নি। ফলে প্রকৃত আমচাষিদের আম বাজারে আসবে আরো কয়েকদিন পরে। বাজার শুরু হওয়ার পরেই আমচাষিরা বুঝতে পারবেন এবার দাম কেমন যাবে। তবে এখনো রাজশাহীতে এবার আমের বাগান পাইকারী দরে তেমন বেচাকেনা হচ্ছে না বলে জানান দুর্গাপুরের মাড়িয়া গ্রামের চাষি রফিকুল ইসলাম।
তিনি বলেন, এবার আমের তেমন কোনো চাহিদা নাই। গতবার এরই মধ্যে আমার আমের বাগান বিক্রি হয়ে গেছিলে পাইকারীভাবে। কিন্তু এবারও কোনো ক্রেতাই আসেনি। আবার আমের ফলনও অনেক কম হবে। গত বছর যে গাছ থেকে ২০ মণ আম হয়েছে এবার সেখানে ১০ মণও হবে কিনা সন্দেহ রয়েছে। কোনো কোনো গাছে তো আমই নাই।’
আরেক চাষি আবু বাক্কার বলেন. ‘এবার আমের দাম না পেলে মারাত্মভাবে ক্ষতিরমুখে পড়বো। কারণ গত দুই বছর ধরেই প্রায় লোকসান হয়ে আসছে। এবারও দাম তেমন হবে না বলেই মনে হচ্ছে। করোনা আতঙ্কে এখনো পাইকারী আমের ক্রেতারা রাজশাহীতে আসেননি। এই অবস্থা চলতে থাকলে যে বাগান দেড় লাখ টাকায় কেনা আছে, সেখানে ৫০হাজার টাকার আমও হয়তো বিক্রি হবে না। এবার আমের ফলনও অনেক কম।’
এদিকে প্রশাসনের বেধে দেওয়া সময় অনুযায়ী আজ শুক্রবার থেকে রাজশাহীর বাজারে আটি বা গুটি জাতের আম নামার কথা রয়েছে। এছাড়াও গোপালভোগ আম চাষিরা নামাতে পারবেন ২০ মে থেকে। রানীপছন্দ ও লক্ষণভোগ বা লখনা ২৫ মে, হিমসাগর বা খিরসাপাত ২৮ মে, ল্যাংড়া ৬ জুন, আম্রপালি ১৫ জুন এবং ফজলি ১৫ জুন থেকে নামানো যাবে। সবার শেষে ১০ জুলাই থেকে নামবে আশ্বিনা এবং বারী আম-৪।
তবে এবার প্রতিটা আমই আরও দেরিতে বাজারে আসবে বলে জানান পঠিয়ার আমচাষি আকবর আলী। তিনি বলেন, এবার আমের অবস্থা খুবই খারাপ। গাছে গাছে তেমন আম নাই। তার পরেও বৈরী আবহাওয়ার কারণে এবারও আম আসতে একটু দেরি হবে। গুটিজাতের আম আসতে আরও ৪-৫ দিন সময় লাগতে পারে।’



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft