শনিবার, ১১ জুলাই, ২০২০
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
ফলাফলের পরিসংখ্যানে ১০ হাজার ছেলে পরাজিত
এসএসসিতে চার বছরে মেয়েদের বাজিমাৎ
জাহিদ আহমেদ লিটন :
Published : Monday, 1 June, 2020 at 12:32 AM
এসএসসিতে চার বছরে মেয়েদের বাজিমাৎএসএসসি পরীক্ষায় ফলাফলের দৌড়ে মেয়েদের থেকে পিছিয়ে রয়েছে ছেলেরা। পাসের হারে মেয়েদের সাফল্যই বেশি। বছরের পর বছর তারা বাজিমাৎ করে চলেছে। মেয়েরা গত চার বছরে প্রায় দশ হাজার ছেলেকে পেছনে ফেলেছে। ২০১৭ থেকে ২০২০ পর্যন্ত এসএসসির পরিসংখ্যান সে তথ্যই জানান দিচ্ছে।
মেয়েরা অভিভাবকের শাসন মেনে ঘরে থাকে ও পড়াশুনায় সময় কাটায় বলে সাফল্যে এগিয়ে রয়েছে, এমন মন্তব্য করেছেন শিক্ষকরা।
যশোর শিক্ষাবোর্ডের ফলাফল সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থী ছিল এক লাখ ৬০ হাজার ৬৩৫ জন। এরমধ্যে মেয়ে পরীক্ষার্থী ছিল ৮০ হাজার ৩২৬ ও ছেলে ৮০ হাজার ৩০৯ জন। এ বছর পাসের হার ৮৭ দশমিক ৩১ ভাগ। এদের মধ্যে মেয়েরা পাস করেছে বেশি। তাদের সংখ্যা ৭১ হাজার ৩২৪ ও ছেলেরা পাস করেছে ৬৮ হাজার ৯১৯ জন। এক্ষেত্রে মেয়েদের পাসের হার ৮৮ দশমিক ৭৯ ও ছেলেদের পাসের হার ৮৫ দশমিক ৮২ ভাগ। এ হিসেবে মেয়েদের তুলনায় দুই হাজার ৪০৫ জন ছেলে বেশি অকৃতকার্য হয়েছে। যা পাসের দৌড়ে ছেলেদের পিছনে ফেলে মেয়েরা অনেকখানি এগিয়ে রয়েছে।    
একই হিসেবে ২০১৯ সালে এসএসসি মোট পরীক্ষার্থী ছিল এক লাখ ৮২ হাজার ৩১০ জন। এরমধ্যে মেয়ে ৯১ হাজার ১২৩ ও ছেলে ৯১ হাজার ১৮৭ জন। এ বছর পাসের হার ছিল ৯০ দশমিক ৮৮ ভাগ।এদের মধ্যে মেয়েরা পাস করেছে ৮৪ হাজার ৫১ জন ও ছেলেরা পাস করেছে ৮১ হাজার ৬৩৭ জন। এক্ষেত্রে মেয়েদের পাসের হার ছিল ৯২ দশমিক ২৫ ও ছেলেদের পাসের হার ৮৯ দশমিক ৫৩ ভাগ। মেয়েদের তুলনায় ছেলেরা বেশি অকৃতকার্য হয়েছে দুই হাজার ৪১৪ জন।
২০১৮ সালের এসএসসিতে মোট পরীক্ষার্থী ছিল এক লাখ ৮৩ হাজার ৫৮৫ জন। এরমধ্যে মেয়ে ছিল ৯১ হাজার ১৪২ ও ছেলে ৯২ হাজার ৪৪৩ জন। এ বছর পাসের হার ছিল ৭৬ দশমিক ৬৪ ভাগ। এদের মধ্যে মেয়েরা পাস করেছে ৭১ হাজার ৮৮২ ও ছেলেরা পাস করেছে ৬৮ হাজার ৮১৭ জন। এক্ষেত্রে মেয়েদের পাসের হার ছিল ৭৮ দশমিক ৮৭ ও ছেলেদের পাসের হার ৭৪ দশমিক ৪৪ ভাগ। মেয়েদের তুলনায় ছেলেরা বেশি অকৃতকার্য হয়েছে তিন হাজার ৬৫ জন।
২০১৭ সালে এসএসসিতে মোট পরীক্ষার্থী ছিল এক লাখ ৫৩ হাজার ৬৭৩ জন। এরমধ্যে মেয়ে ৭৫ হাজার ৫১৩ ও ছেলে ৭৮ হাজার ১৬০ জন। এ বছর পাসের হার ছিল ৮০ দশমিক ০৪ ভাগ। এদের মধ্যে মেয়েরা পাস করেছে ৬২ হাজার ২৪ ও ছেলেরা পাস করেছে ৬০ হাজার ৯৭১ জন। এক্ষেত্রে মেয়েদের পাসের হার ছিল ৮২ দশমিক ১৪ ও ছেলেদের পাসের হার ৭৮ দশমিক ০১ ভাগ। মেয়েদের তুলনায় ছেলেরা বেশি অকৃতকার্য হয়েছে এক হাজার ৫৩ জন।
এ হিসেবে এসএসসি পরীক্ষার গত চার বছরের গড় পরিসংখ্যানে মেয়েদের থেকে ছেলেরা বেশি অকৃতকার্য হয়েছে আট হাজার ৯৩৭ জন। এ কারণে এসএসসি পর্যায়ে পড়াশুনার দৌড়ে ছেলেদের পিছনে ফেলে মেয়েরা এগিয়ে রয়েছে। এর কারণ হিসেবে শিক্ষকরা মন্তব্য করেছেন, মেয়েরা ঘরে থাকে বেশি ও অভিভাবকদের শাসন মেনে চলে। আর ছেলেরা বাইরে বন্ধুদের সাথে সময় কাটায় বেশি। পড়াশুনার চাইতে বাইরে আড্ডা দেয়ায় তারা অভ্যস্ত।
এ বিষয়ে যশোর সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা ভারপ্রাপ্ত লায়লা শারমিন বলেন, মেয়েরা সব সময় নিয়ম মেনে চলে ও পড়াশুনার মধ্যে থাকে। তাদের বাইরে ঘোরাফেরা বা আড্ডা দেবার কোন সুযোগ থাকে না। যে কারণে বরাবরই তাদের ফলাফল ভালো হয়। পড়াশুনায় ছেলেরা তাদের সাথে পেরে ওঠে না।
এ ব্যাপারে যশোর শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক মাধব চন্দ্র রুদ্র বলেন,
ছেলে বা মেয়ে নয়, বইয়ের সাথে যে শিক্ষার্থী যুক্ত থাকবে, পড়াশুনা করবে তার হাতে সাফল্য ধরা দেবেই। যশোর বোর্ডের ফলাফলে বরাবরই মেয়েরা এগিয়ে। কারণ তারা বাড়িতে থাকে ও পড়াশুনার মধ্যে থাকে। এ কারণে তাদের হাতে সাফল্য ধরা দেয় ও তারা এগিয়ে থাকে।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft