শুক্রবার, ১০ জুলাই, ২০২০
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে যশোর পৌরসভার নির্দেশনা
ইজিবাইকে তিনজনের বেশি যাত্রী নয়
উজ্জ্বল বিশ্বাস ও স্বপ্না দেবনাথ
Published : Wednesday, 3 June, 2020 at 11:52 PM
ইজিবাইকে তিনজনের বেশি যাত্রী নয়করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে বিশেষ নির্দেশনা দিয়েছে যশোর পৌরসভা। নতুন এ নির্দেশনা অনুযায়ী এখন থেকে আর ইজিবাইকে তিনজনের বেশি যাত্রী বহন করা যাবে না। এটার ব্যতিক্রম হলে সংশ্লিষ্ট বাইকের চালকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থাও নেয়া হবে বলে নির্দেশনায় জানানো হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে জনসচেতনতা সৃষ্টির জন্যে শহরে পৌরসভার পক্ষ থেকে প্রচারণাও চালানো হয়েছে।
তবে, যাত্রীদের অভিযোগ মাইকিং এর পর পরই ইজিবাইক চালকরা ভাড়া দ্বিগুণ করে দিয়েছে। যা নিয়ে যাত্রীরা অনেকটা বিপাকে পড়েছেন বলে মন্তব্য করেছেন অনেকে। তবে চালকরা বলছেন সরকারি নির্দেশ মতই যাত্রীদের কাছ থেকে ভাড়া আদায় করছেন তারা।
এদিকে, ইজিবাইকে পৌরসভার যাত্রী কমানোর সিদ্ধান্তে সাধারণ মানুষ স্তস্তি প্রকাশ করে এই নির্দেশনা বাস্তবায়নে নিয়মিত মনিটরিং এবং অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পৌর কর্তৃপক্ষের কাছে অনুরোধ করেছেন।
গত ৩০ মের পর সাধারণ ছুটি না বাড়ায় সারা দেশের মতো যশোরেও সব কার্যক্রমে গতি বেড়েছে। বাজার ও সড়কে বাড়ছে মানুষের ভীড়। পুরোদমে চলছে রিকশা, ভ্যান ও ইজিবাইক। কম ভাড়ায় গন্তব্যে পৌঁছানো যায় বলে সাধারণ যাত্রীরা রিকশা বা অন্যান্য বাহনের থেকে ইজিবাইকের প্রতি বেশি ঝুঁকছেন। আবার একসাথে বেশি যাত্রী নেয়া যায় বলে চালকেরাও অল্প ভাড়ায় সন্তুষ্ঠ হন। কিন্তু, করোনাকালে এটাই হয়ে গেছে সবথেকে আতঙ্কের বাহন। কারণ, এক বাইকে ছয় থেকে সাতজন পর্যন্ত যাত্রী বহন করায় গাদাগাদি বসতে হচ্ছে-যা করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়িয়ে দিচ্ছে। বিষয়টি আমলে এনে যশোর পৌরসভা এক ইজিবাইকে তিনজনের বেশি যাত্রী বহন না করার নির্দেশনা জারি করেছে।
ইতোমধ্যে এ বিষয়ে সচেনতা সৃষ্টির জন্য পৌর এলাকায় প্রচার মাইকও বের করা হয়েছে। এতে তিনজনের বেশি যাত্রী ইজিবাইকে না তোলার জন্য চালকদের নির্দেশনা দেয়া হচ্ছে। নির্দেশনায় বলা হয়েছে, কোনো চালক তিনজনের বেশি যাত্রী তার বাইকে ওঠালে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তবে পৌর এলাকায় চলাচলকারী রিকশা ও অন্য যানবাহনের ক্ষেত্রে কিছু বলা হয়নি নির্দেশনায়।
রোকসানা পারভীন নামে বেসরকারি সংস্থায় কর্মরত এক নারী জানান, নীলগঞ্জ এলাকা থেকে প্রতিদিন তিনি চাঁচড়া এলাকায় যান। অনেক মানুষ একসাথে যাওয়ায় করোনা নিয়ে সব সময় মনে ভয় কাজ করে উল্লেখ করে তিনি বলেন, পৌরসভার এ উদ্যোগটা বেশ ভালো। তবে কম যাত্রী উঠালে ভাড়া কী হবে এ বিষয়ে কোনো নির্দেশনা দেয়া হয়নি। জনস্বার্থ রক্ষা করতে গিয়ে এটা আবার হয়রানী হবে কিনা তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেন তিনি। সাধারণ যাত্রীদের অভিযোগ, পৌরসভার মাইকিং এর পরই শুরু হয়েছে ডাবল ভাড়া নেয়ার প্রতিযোগিতা। যে যার মত ভাড়া বাড়ানো শুরু করেছে।
এসব নিয়ে চালকদের রয়েছে ভিন্নমত। মন্টু শেখ নামে এক ইজিবাইক চালক বলেন, মোটে না চালাতে পারা থেকে চালানোর সুযোগ পাওয়াটাই অনেক। তবে যাত্রী অর্ধেক নিলে গাড়ির মালিককে কী দেবেন আর সংসার কিসে চলবে এটা নিয়ে ভাবতে হবে জানিয়ে তিনি বলেন, যাত্রীদের কাছ থেকে নির্দিষ্ট ভাড়ার ৫০ বা একশ’ শতাংশ বেশি নেয়ার বিষয়টি তাহলে এ পরিস্থিতিতে সকলের সম্মতিতে পাশ করাতে হবে।
তপন নামে আর একজন চালক বলেন, নির্দেশনা শুধু চালকদের দিলে হবে না। যাত্রীদেরও সচেতন হতে হবে। একই পরিবারের তিনজনের অধিক যাত্রী থাকলে কিংবা দু’শিশু সন্তানসহ মা যাত্রী উঠলে করণীয় কী হবে তা পরিস্কার করতে হবে।
মাস্ক ছাড়া যাত্রীদের ইজিবাইকে না নিতে চাইলে অনেক সময় চালকদের হেনস্তা হতে হচ্ছে জানিয়ে কয়েকজন চালক প্রশ্ন তোলেন, যদি তিনজন-চারজন যাত্রী নিয়ে রিকশা চলাচল করতে পারে তাহলে শুধু ইজিবাইকের জন্য এ নির্দেশনা কেনো।
তবে বাংলাদেশ অটোবাইক কল্যাণ শ্রমিক সোসাইটি যশোরের সভাপতি আবু হাসান ঠাঙ্কু বলেন, তার কানে বেশি ভাড়া নেয়ার ব্যাপারটা এসেছে। তবে যদি কেউ ভাড়া বেশি নেয় তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।
তিনি বলেন, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ-বিআরটিএ বাসের ভাড়া ৮০ শতাংশ বাড়ানোর সুপারিশ করলেও ভোক্তা ও নাগরিক অধিকার সংগঠনগুলো তা নিয়ে আপত্তি করেছিল, যার ফলে ভাড়া কমানো হয়। শেষ পর্যন্ত ভাড়া ৬০ শতাংশ বাড়ানো হয়।
বিআরটিএ-এর ওই প্রজ্ঞাপনে আরও বলা হয়, কোভিড-১৯ এর বিস্তাররোধে শর্তসাপেক্ষে সীমিত পরিসরে নির্দিষ্ট সংখ্যাক যাত্রী নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করে আন্তঃজেলা ও দূরপাল্লার চলাচলকারী বাস ও মিনিবাসের ভাড়া পুনঃনির্ধারণ করা হয়।
তবে তিনি আরও বলেন, প্রাথমিকভাবে ইজিবাইক চালকদের মৌখিকভাবে বলা হবে। কোনো প্রকার কর্ণপাত না করলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। একইসাথে যাত্রী সাধারণের উদ্দেশ্যে শহরে মাইকিং করা হবে। কোথায় যেতে কত টাকা ভাড়া দিতে হবে তা প্রচার করা হবে। এতে আর কেউ অতিরিক্ত ভাড়া নিতে পারবে না বলে মন্তব্য করেন তিনি।
এ বিষয়ে যশোর পৌরসভার প্রশাসনিক কর্মকর্তা উত্তম কুÐু বলেন, জনস্বার্থে ইজিবাইকে অর্ধেক যাত্রী বহনের নির্দেশনা দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। তবে রিকশা ও ভ্যানের বিষয়ে এ ধরনের কোনো নির্দেশনা নেই। চালকের নিজের এবং যাত্রীর সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করতে এবং যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে যাতায়াত করতে চালক ও যাত্রীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তিনি।
ভাড়ার বিষয়ে উত্তম কুÐু গ্রামের কাগজকে জানান, ভাড়ার বিষয়ে নির্দিষ্ট কোনো নির্দেশনা দেয়া হয়নি। যেহেতু গণপরিবহণে চলাচলের জন্য সরকার ভাড়ার বিষয়ে একটা নির্দিষ্ট সিদ্ধান্ত দিয়েছে এ ক্ষেত্রে চালকরা তা অনুসরণ করতে পারে। ইজিবাইকের ভাড়ার ক্ষেত্রে চালক এবং যাত্রী সকলের স্বার্থ যাতে রক্ষা হয় সেজন্য চালকদের যতœবান হওয়ার পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, প্রয়োজনে এ বিষয়ে কর্তৃপক্ষ সুনির্দিষ্ট সিদ্ধান্ত নেবে।




সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft