শনিবার, ০৪ জুলাই, ২০২০
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল
করোনায় বন্ধ কিন্ডারগার্টেন যশোরে আড়াই হাজার পরিবারে অসহায় জীবনযাপন
এম. জিহাদ
Published : Tuesday, 30 June, 2020 at 12:59 AM
করোনায় বন্ধ কিন্ডারগার্টেন যশোরে আড়াই হাজার পরিবারে অসহায় জীবনযাপনকরোনার ভয়াল থাবায় বন্ধ হওয়ার পথে যশোরের আড়াইশ’র অধিক কিন্ডারগার্টেন স্কুল। গত ১৮ মার্চ থেকে সরকারি সিদ্ধান্ত মোতাবেক বন্ধ রয়েছে এই স্কুলগুলো। কবে খুলবে জানা নেই কারো। শিক্ষার্থী না থাকায় তিনমাস যাবৎ বেতন পাচ্ছেন না এসব প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আড়াই হাজার শিক্ষক-কর্মচারী। কর্মহীন হয়ে পড়ে অসহায় জীবনযাপন করছেন তারা। বেঁচে থাকতে সরকারের সহযোগিতা চান তারা। স্কুল মালিকরা বলছেন, শিক্ষকদের বেতন তো দূরের কথা, বাড়ি ভাড়া দিতে না পারায় বন্ধ হয়ে যেতে পারে এসব প্রতিষ্ঠান।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, যশোর জেলায় মোট আড়াইশ’র অধিক কিন্ডারগার্টেন রয়েছে। যার মধ্যে সদর উপজেলায় একশ’ ১০টি, শার্শায় ৫১ টি, ঝিকরগাছায় ৩১ টি, মণিরামপুরে ১৯ টি, বাঘারপাড়ায় ১৮ টি, কেশবপুরে ১৫ টি ও চৌগাছায় ১১ টি। অভয়নগরে কয়টি কিন্ডারগার্টেন রয়েছে তার সংখ্যা জানা যায়নি। এসব স্কুলে ৩৫ হাজারেরও বেশি শিশু শিক্ষার্থী লেখাপড়া করে। আটটি উপজেলায় থাকা এসব প্রতিষ্ঠানের অধিকাংশরই কার্যক্রম চলে ভাড়া বাসায়। গত সাড়ে তিনমাসের ভাড়া পরিশোধ করতে পারছে না কিন্ডারগার্টেন কর্তৃপক্ষ। অনেকেই বাসা মালিকের চাপে ঋণ করে এক থেকে দু’মাসের ভাড়া পরিশোধ করেছেন।
কিন্ডারগার্টেন শিক্ষকদের বেতন হয় মূলত শিক্ষার্থীদের টিউশন ফি আর কোচিং থেকে। বর্তমান পরিস্থিতিতে টিউশন ফি আদায় করতে পারছে না কর্তৃপক্ষ। আবার নিষেধাজ্ঞার কারণে কোচিংও করতে পারছেন না শিক্ষকরা। এ অবস্থায় সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছেন সংশ্লিষ্টরা। শিক্ষকের মর্যাদা নিয়ে চলা এসব মানুষ পড়েছেন অনিশ্চিত ভবিষ্যতের মুখে।
বিএড এক্সপেরিমেন্টাল স্কুলের প্রধান শিক্ষক মকবুল হোসেন বলেন, তার প্রতিষ্ঠানে ১০ জন শিক্ষক ও একজন কর্মচারী রয়েছেন। শিক্ষার্থী রয়েছে দুশ’। স্কুল বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে কোনো বেতন পাচ্ছেন না। তিন মাস যাবৎ এসব শিক্ষকের কোনো আয় উপার্জন না থাকায় তারা চরম অর্থসংকটে জীবনযাপন করছেন। শিক্ষক হয়ে অভাব অনাটনের কথা কাউকে বলতেও পারছেন তারা। এসব শিক্ষককে অর্থ সহায়তা দেয়া না হলে বেঁচে থাকাই কঠিন হয়ে পড়বে বলে জানান তিনি।
যশোর কিন্ডারগার্টেন অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ইকবাল কবির খান বলেন,অর্থের অভাবে সারাদেশে কিন্ডারগার্টেনগুলো বন্ধের পথে। যশোরেও একই অবস্থা। কীভাবে ভাড়া পরিশোধ করবেন এ চিন্তায় ঘুম নেই তাদের। এ মুহূর্তে সরকারি সহযোগিতা না পেলে বেকার হয়ে পড়বে হাজার হাজার শিক্ষক। একইসাথে বন্ধ হয়ে যাবে শিশুদের প্রাথমিক শিক্ষার হাতেখড়ি দেয়া প্রতিষ্ঠানগুলো। এসব কারণে আর্থিক সহায়তার জন্যে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।
 






 



 



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft