সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০
জাতীয়
হাটে না গিয়ে অনলাইনে গরু কিনুন : মেয়র আতিক
কাগজ ডেস্ক :
Published : Thursday, 16 July, 2020 at 2:58 PM
হাটে না গিয়ে অনলাইনে গরু কিনুন : মেয়র আতিককরোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে মানুষের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় এবার ঈদুল আজহায় কোরবানি পশুর হাট কমানো হয়েছে বলে জানিয়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, আমরা মানুষের স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা চিন্তা করে পশুর হাট কমিয়েছি। আপনারা হাটে না গিয়ে অনলাইনে গরু কিনুন।
বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) এক ভিডিও বার্তায় মেয়র আতিকুল ইসলাম এ আহ্বান জানান। এসময় তিনি ঢাকাবাসীকে কঠোরভাবে স্বাস্থ্য সুরক্ষা মেনে চলারও আহ্বান করেন।
মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, এবার করোনাভাইরাস আছে, স্বাস্থ্যবিধির বিষয়টি আছে, প্রান্তিক চাষির কথাও চিন্তা করতে হবে। সবকিছু মিলেই এবারের কোরবানির হাট। স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা চিন্তা করে সবকিছুর ব্যবস্থা করতে হবে।
তিনি বলেন, স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা চিন্তা করে ঢাকা শহরের ভেতর থেকে হাট সরিয়ে ঢাকার বাইরে নিয়ে এসেছি। উত্তরা ১০, ১১, ১২ নং সেক্টর ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা তাই সেখানে হাট বসবে না। ওই এলাকার হাট ১৭ নং সেক্টরের বিন্দাবনে নিয়ে গেছি। ওখানে জনবসতি নেই।
তেমনি এবার ভাসানটেক হাট, তেজগাঁও হাট, বছিলা হাট, আফতাব নগর হাট, বনশ্রী হাট, ইস্টার্ণ হাউজিং হাট ও মিরপুরে হাট বসতে দেই নাই। এবার ডিএনসিসির রাজস্ব আহরণ কমে হবে তাতেও সিদ্ধান্ত থেকে সরেনি মেয়র।
গত বছর হাট থেকে আহরিত রাজস্ব হার তুলে ধরে বলেন, গত বছর বছিলার হাট থেকে সাড়ে ৪ কোটি টাকা রাজস্ব আহরিত হয়েছিল। একইভাবে উত্তরার হাট থেকে সাড়ে ৪ কোটি আয় হয় এবং তেজগাঁও, আফতাবনগর, বনশ্রী হাউজিং ও ইস্টার্ণ হাউজিং থেকে প্রায় সোয়া কোটি টাকা রাজস্ব আসে। এবার সবমিলিয়ে ২০ কোটি টাকার মতো রাজস্ব হারাচ্ছি। এটি বড় কথা না। জনগণের স্বাস্থ্যের কথা চিন্তা করে হাট ঢাকার বাইরে নিয়ে গেছি। এবার হাট বসবে কাওলা, ডুমনী, মৈনারটেক, বিন্দাবন এবং গাবতলী স্থায়ী হাটে।
ঢাকাবাসীর উদ্দেশে বলেন, আমরা হাট কমাচ্ছি, তবে ডিএনসিসির ডিজিটাল গরুর হাট করেছি। আপনাদের পশুর হাটে আসার দরকার নাই। অনলাইনে গরুগুলো বুক করুন, আপনাদের বাসায় গরুগুলো পৌঁছে দেওয়া হবে। যারা অনলাইনে গরু কিনবেন তাদের সেই গরুর স্বাস্থ্যগত সনদ দিয়ে দেওয়া হবে।
মেয়র বলেন, যারা গরু কোরবানি নিয়ে ঝামেলার কথা ভাবছেন তাদের উদ্দেশে বলা আপনারা নির্ধারিত চার্জ দিলেই আপনার বাসায় কোরবানির মাংস পৌঁছে যাবে। আপনাদের কিছুই করতে হবে না, আপনার পছন্দের গরুটি দক্ষ কসাই দিয়ে জবাই করে বাসায় মাংস পৌঁছে দেওয়া হবে। এবার ঈদের দিন ৪০০, ঈদের পর দিন এক হাজার এবং ঈদের তৃতীয় দিন ৬০০ গরু কোরবানি করার টার্গেট নির্ধারণ করা হয়েছে। ওই সকল গরু কোরবানি করে নির্ধারিত ব্যক্তির বাসায় মাংস পৌঁছে দেওয়া হবে।
আতিকুল ইসলাম বলেন, আপনারা হাটে যাবেন না, অনলাইনে গরু কিনুন। আর যারা হাটে যাবেন অবশ্যই নিরাপদ ‍দূরত্ব মেনে চলবেন, মাস্ক পরে আসবেন। অসুস্থ, বয়স্ক, শিশু, গর্ভবতী মায়েরা হাটে আসবেন না। বাসায় কোরবানি করলে যত্রতত্র ময়লা ফেলবেন না। নির্ধারিত জায়গায় ময়লা ফেলুন, আমাদের পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা ময়লা নিয়ে আসবে। 



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
 আমাদের পথচলা   |    কাগজ পরিবার   |    প্রতিনিধিদের তথ্য   |    অন লাইন প্রতিনিধিদের তথ্য   |    স্মৃতির এ্যালবাম 
সম্পাদক ও প্রকাশক : মবিনুল ইসলাম মবিন
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আঞ্জুমানারা
পোস্ট অফিসপাড়া, যশোর, বাংলাদেশ।
ফোনঃ ০৪২১ ৬৬৬৪৪, ৬১৮৫৫, ৬২১৪১ বিজ্ঞাপন : ০৪২১ ৬২১৪২ ফ্যাক্স : ০৪২১ ৬৫৫১১, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
Design and Developed by i2soft